kolkata rain

কলকাতা: অস্বস্তিও বাড়িয়েছে ‘মোরা’, বৃষ্টিও দিচ্ছে ‘মোরা’। বঙ্গোপসাগরের এই ঘূর্ণিঝড়টির আশীর্বাদে চরিত্রবিরোধী দু’রকম আবহাওয়া এখন দক্ষিণবঙ্গের ওপর। এক দিকে ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে বাড়তি জলীয় বাষ্প থাকার ফলে দক্ষিণবঙ্গে অস্বস্তিকর গরম, অন্য দিকে এই জলীয় বাষ্পের প্রভাবেই রোজই বিকেলে ঝড়বৃষ্টি পাচ্ছে দক্ষিণবঙ্গ।

আবহাওয়া বিশেষজ্ঞদের মতে, গোটা রাজ্যের ওপরেই এখন প্রাক-বর্ষার পরিস্থিতি। বর্ষার আগে এই সময়ে এ রকম অস্বস্তিকর আবহাওয়া অস্বাভাবিক কিছু নয়। তবে এই অসস্বস্তিকর আবহাওয়া বজায় থাকলেও, রোজই বিকেল অথবা সন্ধের দিকে ঝড়বৃষ্টি হতে পারে দক্ষিণবঙ্গে।

উত্তরবঙ্গের দোরগোড়ায় বর্ষা, দক্ষিণের জন্য অপেক্ষা সাত দিনের

বেশি দিন নয়, সামনের সপ্তাহের শেষের দিকে দক্ষিণবঙ্গে পদার্পণ করবে বর্ষ। বিদেশি কিছু আবহাওয়া সংস্থার মতে, ৭ জুন নাগাদ বঙ্গোপসাগরে দানা বাঁধতে পারে নতুন একটি নিম্নচাপ। ওড়িশা উপকূলের অভিমুখ হতে পারে নতুন এই নিম্নচাপটির। এর হাত ধরেই দক্ষিণবঙ্গে ঢুকে যাবে বর্ষা। ইতিমধ্যেই অবশ্য উত্তরবঙ্গের দোরগোড়ায় পৌঁছে গিয়েছে বর্ষা। অসমের কোকরাঝাড়ে এখন অবস্থান করছে মৌসুমি বায়ু। আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস, আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে উত্তরবঙ্গে শুরু হয়ে যাবে বর্ষার বৃষ্টি। এমনিতেও গোটা উত্তরবঙ্গ জুড়ে বিক্ষিপ্তভাবে ভারী বৃষ্টি হচ্ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় শিলিগুড়িতে ১০০ মিমি বৃষ্টি হয়েছে। জলপাইগুড়ি এবং কোচবিহারে যথাক্রমে বৃষ্টি হয়েছে ৭০ এবং ৬০ মিমি।

পশ্চিম উপকূলে স্তব্ধ বর্ষার অগ্রগতি

ভারতের পূর্ব প্রান্তে মৌসুমি বায়ু সক্রিয় থাকলেও, পশ্চিম উপকূলে কিছুটা দুর্বল হয়ে পড়েছে সে। তাই দক্ষিণ কেরল পৌঁছলেও তার বেশি এগোতে পারেনি মৌসুমি বায়ু। তবে আবহাওয়া দফতর থেকে জানানো হয়েছে ৪৮ ঘণ্টা পর থেকে ফের কিছুটা সক্রিয় হবে বর্ষা। ৮ জুন নাগাদ গোয়ায় পৌঁছে যাবে মৌসুমি বায়ু।

সুতরাং কলকাতাবাসীদের জন্য সুখবর আর দিন সাতেক দূরে। ততদিন না হয় কষ্ট করে এই ঘর্মাক্ত, অস্বস্তিকর আবহাওয়া সহ্য করে নেওয়া যাক।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন