CPIM and BJP Flag
প্রতীকী ছবি, ইন্টারনেট থেকে নেওয়া

কলকাতা: আগামী ৩ ডিসেম্বর পশ্চিমবঙ্গে রথযাত্রার সূচনা করছে বিজেপি। তারাপীঠ, কোচবিহার এবং গঙ্গাসাগর থেকে শুরু হওয়া এই রথযাত্রা কর্মসূচির মাধ্যমেই লোকসভা ভোটের আগে রাজ্যে গেরুয়া ঝড় তুলতে চলেছে তারা। তবে বসে থাকছে না বামপন্থী দলগুলিও। তাদের সম্মিলিত মঞ্চের ব্যানারে অধিকার যাত্রা নামের একটি কর্মসূচির পালিত হবে বিজেপির রথযাত্রার আগেই।

গত পঞ্চায়েত নির্বাচনের পর রাজ্য রাজনীতিতে প্রধান বিরোধী দলের ভূমিকায় কিছুটা রদবদল হয়ে গিয়েছে। শাসক তৃণমূলের সঙ্গে সমানে-সামনে টক্কর দিতে কংগ্রেস এবং বামেদের পিছনে ফেলে এগিয়ে গিয়েছে বিজেপি। অন্তত ওই পঞ্চায়েত নির্বাচনের ফলাফল ভিত্তিক পরিসংখ্যান সেটাই বলছে। যার ফলশ্রুতিতে অনেকটাই উজ্জীবিত বিজেপিও চাইছে আগামী লোকসভা নির্বাচনের আগে প্রচার আরও জোরালো করতে।

জানা গিয়েছে, বামপন্থী গণসংগঠনগুলির মঞ্চ বেঙ্গল প্ল্যাটফর্ম অব মাস অর্গানাইজেশন (বিপিএমও) আগামী ১০ সেপ্টেম্বর রাজ্য জুড়ে অধিকার যাত্রা কর্মসূচিতে শামিল হচ্ছে। সারা রাজ্যে কমভেনশন আয়োজনের পর যা শেষ হবে আগামী ৩ অক্টোবর কলকাতায় কেন্দ্রীয় সমাবেশের মাধ্যমে। টানা ২৪ দিনের ওই প্রচার কর্মসূচিতে তুলে ধরা হবে ৮টি দাবি। যার মধ্যে রয়েছে পেট্রোপণ্যের দামে লাগাম, অসমের নাগরিকপঞ্জিতে সমস্ত নাগরিকের নাম অন্তর্ভুক্তি, ন্যূনতম বেতন ১৮ হাজার টাকা করা, সারদা ও নারদ আর্থিক দুর্নীতিতে জড়িতদের শাস্তি, ফ্রান্সের সঙ্গে রাফায়েল চুক্তি প্রকাশ-সহ ৮টি দাবি।


আরও পড়ুন: ‘যাও বহার যাকে জোর সে বোলো’-বামপন্থীদের উদ্দেশে বলেছিলেন বাজপেয়ী


বামফ্রন্ট সূত্রে খবর, বিভিন্ন বামপন্থী গণসংগঠনগুলির ব্যানারে আয়োজিত এই কর্মসূচিতে অংশ নেবেন বামদলগুলির উচ্চ নেতৃত্ব থেকে শুরু তৃণমূল স্তরের কর্মীরাও। গত ২০১৬ সালে রাজ্যের বিধানসভা ভোটের আগেও এই ধরনের রাজ্যব্যাপী কর্মসূচি নিয়েছিল বিপিএমও। এ বার প্রতিবাদের রেশ যে তার থেকে অনেক বেশি বিস্তার লাভ করবে, সে বিষয়ে আশাবাদী সংগঠন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন