Rally
বুধবারের মিছিল

সমীর মাহাত: ঝাড়গ্রামের পর এ বার বেলপাহাড়িতে বিভিন্ন দাবি-দাওয়া নিয়ে মিছিল করল, “শহিদ ও নিখোঁজ পরিবারগুলির যৌথ মঞ্চ”। একই ভাবে একই দাবিতে এর আগে গত ২৬ জুন ঝাড়গ্রাম শহরে এই মঞ্চ মিছিল করে। প্রসঙ্গত, মাওবাদী সন্ত্রাসের সময় জঙ্গল মহলের ঝাড়গ্রামের প্রত্যন্ত এলাকার কয়েক’শ বাসিন্দা খুন গুম হন।

অভিযোগ ওঠে মাওবাদীদের বিরুদ্ধে। তাদের বেশির ভাগ বাম কর্মী-সমর্থক হিসেবে পরিচিত। তৃণমূল কংগ্রেস সরকার প্রতিষ্ঠার পর সেই খুনোখুনি বন্ধ হয়। পাশাপাশি, মাওবাদী বিচারাধীন অভিযুক্তদের অনেকেই পুলিশের কনস্টেবল পদে বিভিন্ন থানায় চাকরি পান। গত পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে এলাকার সর্বত্রই চর্চা শুরু হয়, “যারা মারল তারা পেল চাকরি, যারা প্রাণ দিল তাদের পরিবার কিছু-ই পেল না”। আবার যে রাজনৈতিক দল করার সুবাদে এত মানুষের প্রাণ গিয়েছে, সেই দলের পক্ষ থেকে এই দাবির মিছিল লক্ষ্য করা যায়নি। পঞ্চায়েত নির্বাচনের পরে নিখোঁজ ও শহিদ পরিবারগুলি নিজেরাই এই থেকে দাবিতে সোচ্চার হয়েছে। যার প্রথম বহিঃপ্রকাশ ঘটেছিল ঝাড়গ্রামে। ৩ অক্টোবর তার পুনরাবৃত্তি দেখা গেল বেলপাহাড়িতে।


আরও পড়ুন: বন্ধ হয়ে পড়ে আছে প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রের আন্ত:বিভাগ, চলছে মদ-জুয়ার আসর

একই সঙ্গে, পাথর ব্যবসায়ীরা আমরণ অনশনে বসেছেন বেলপাহাড়ি বিডিও অফিসের সামনে।বেলপাহাড়ির ন’জন পাথর ব্যবসায়ী মঙ্গলবার সকাল থেকেই বেলপাহাড়ি বিডিও অফিসের সামনে অনশনে বসেছেন। তাঁদের, অভিযোগ পাথর গাড়ি চালাতে দেওয়া হচ্ছে না।ফলে ব্যবসায়ীরা চরম আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়েছেন। এই বিষয়ে বেলপাহাড়ির বিডিও জানিয়েছেন, বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন