autum in kolkata
পুজোয় এরকম আকাশের দেখাই মিলবে।

কলকাতা: গত এক দশকের রেকর্ড ভেঙে গেল। তড়িঘড়ি গোটা রাজ্যকে বিদায় জানিয়ে দিল দক্ষিণপশ্চিম মৌসুমি বায়ু। শুক্রবার এই ঘোষণা করেছে আবহাওয়া দফতর।

সাধারণত ৮ অক্টোবর পশ্চিমবঙ্গকে বিদায় জানানোর কথা বর্ষার। কিন্তু গত কয়েক বছরে বর্ষার বিদায় ক্রমশ পিছিয়ে গিয়েছে। এমনকি কিছু কিছু বছরে নভেম্বরেও বিদায় নিয়েছে বর্ষা। এ বারও সে রকমই কিছু মনে করা হচ্ছিল, যখন উত্তরপশ্চিম ভারত থেকে ২৯ সেপ্টেম্বর বিদায় যাত্রা শুরু করে বর্ষা। কিন্তু গত প্রায় এক সপ্তাহ ধরে উত্তর, পশ্চিম এবং পূর্ব ভারতে কার্যত শুকনো আবহাওয়াকে সঙ্গী করেই এত তাড়াতাড়ি ভারতের অধিকাংশ এলাকা থেকেই বিদায় নিল মৌসুমি বায়ু।

বেসরকারি আবহাওয়া সংস্থা ওয়েদার আল্টিমার কর্ণধার রবীন্দ্র গোয়েঙ্কার কথায়, বর্ষা বিদায়ের সময়ের কাছাকাছি কোনো অঞ্চলে যদি টানা তিন দিন উল্লেখযোগ্য বৃষ্টি না হয়, তা হলে বর্ষা বিদায়ের কথা ঘোষণা করে দেওয়া হয়। ঠিক এমনটাই হয়েছে এখন। ১ অক্টোবর থেকে পশ্চিমবঙ্গের কথাওই সে ভাবে বৃষ্টি হয়নি। শুধু এ রাজ্যই নয়, বৃষ্টি নেই উত্তরপূর্ব ভারত, মধ্য ভারত এবং পশ্চিম ভারতেও। সেই সব জায়গা থেকেও এ দিন বিদায় নিয়েছে বর্ষা।

এই পরিস্থিতির মধ্যেই আগামী কয়েক দিনের মধ্যেই দক্ষিণ ভারতে ফিরতি বর্ষা শুরু হওয়ার কথা ঘোষণা করে দেবে আবহাওয়া দফতর।

কিন্তু তার মানে এই নয়, যে রাজ্যে বৃষ্টি পুরোপুরি বন্ধ হয়ে গেল। সামনের সপ্তাহেই এক দফার জোর বৃষ্টির সম্ভাবনা ক্রমশ উজ্জ্বল হচ্ছে রাজ্য, বিশেষত দক্ষিণবঙ্গের জন্য। আলিপুর আবহাওয়া দফতর তরফ থেকে জানানো হয়েছে, সোমবার বঙ্গোপসাগরে একটি নিম্নচাপের সৃষ্টি হতে পারে। তার অভিমুখ হবে ওড়িশার দিকে। ১২ অক্টোবর নাগাদ সেটি গভীর নিম্নচাপে পরিণত হয়ে ওড়িশা উপকূলে পৌঁছোতে পারে। এর ফলে সামনের সপ্তাহের বৃহস্পতিবার থেকে পঞ্চমী পর্যন্ত দক্ষিণবঙ্গে জোর বৃষ্টি হতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর।

তবে সোমবার পর্যন্ত দক্ষিণবঙ্গে সর্বোচ্চ পারদ ঊর্ধ্বমুখীই থাকবে। সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৫ থেকে ৩৭ এবং সর্বনিম্ন পারদ ২৪ থেকে ২৬-এর মধ্যে ঘোরাফেরা করবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন