no rain in bengal
বৃষ্টির অভাবে জলশূন্য দামোদর। দুর্গাপুর ব্যারেজ। ফাইল ছবি

ওয়েবডেস্ক: আবহাওয়ার খামখেয়ালিপনায় ঘোল খেয়ে যাচ্ছেন আবহাওয়া বিশেষজ্ঞরা। যখনই ভালো বৃষ্টির আশা জাগিয়ে কোনো নিম্নচাপ তৈরি হচ্ছে, তখনই কাকতালীয় ভাবে বৃষ্টি কমে যাচ্ছে বঙ্গে। রবিবার ঠিক এ রকমই হয়েছে। এক দিকে বঙ্গোপসাগরে ক্রমশ ঘনীভূত হতে শুরু করেছে নিম্নচাপ, তখনই দক্ষিণবঙ্গের আকাশে গনগনে রোদ, বৃষ্টি যাও বা হচ্ছে তা খুবই সামান্য। তাতে স্বস্তি দূরঅস্ত।

নিম্নচাপের সময়ে বৃষ্টি না হওয়ার রহস্য কী?

এর একটি ব্যাখ্যা দিয়েছেন বেসরকারি আবহাওয়া সংস্থা ওয়েদার আল্টিমার কর্ণধার রবীন্দ্র গোয়েঙ্কা। এ বার নিম্নচাপগুলি মূলত ওড়িশা উপকূল ঘেঁষে তৈরি হচ্ছে। তাঁর কথায়, “এখনই পর্যন্ত যা নিম্নচাপ তৈরি হয়েছে, তার বেশির ভাগই ওড়িশার দিকে হচ্ছে এবং সেগুলি পশ্চিম উত্তর-পশ্চিম দিক দিয়ে এগোচ্ছে। ফলে প্রবল বৃষ্টি হচ্ছে ওড়িশায়। পশ্চিমবঙ্গের পশ্চিমাঞ্চলে তুলনায় বেশি বৃষ্টি হচ্ছে। কলকাতাকে সন্তুষ্ট থাকতে হচ্ছে বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির ওপর দিয়েই।”

আরও পড়ুন মুম্বইয়ের ‘সাইলেন্ট জোন’-এ দূষণ নীতি ভাঙলে এক লক্ষ টাকার জরিমানা ও পাঁচ বছরের জেল

এই পরিস্থিতি কবে বদলাবে?

রবীন্দ্রবাবুর মতে, এই সপ্তাহের শেষ দিকে আরও একটা ঘূর্ণাবর্ত তৈরি হতে পারে বঙ্গোপসাগরে। এখনই পর্যন্ত তিনি যা বিশ্লেষণ করেছেন, তাতে মনে হচ্ছে তার গতিপথ পশ্চিমবঙ্গের দিকে হতে পারে। সেটা হলে বৃহস্পতিবার থেকে বৃষ্টি বাড়বে দক্ষিণবঙ্গে। কিন্তু সেটা যতক্ষণ না তৈরি হচ্ছে সেই ব্যাপারে নিশ্চিত করে কিছু বলছেন না তিনি।

তবে আপাতত আগামী কয়েক দিন বিক্ষিপ্ত ভাবে হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি এবং দুর্বিষহ ঘর্মাক্ত আবহাওয়ার সঙ্গেই মানিয়ে নিয়ে চলতে হবে সাধারণ মানুষকে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন