সাজা ঘোষণার পরে অভিযুক্তরা। নিজস্ব চিত্র

সমীর মাহাত, ঝাড়গ্রাম: তৃণমূল করার ‘অপরাধে’ খুনের অভিযোগে প্রতিরোধ কমিটির তিন জনকে যাবজ্জীবন সাজা দেওয়া হল। সোমবার এই সাজা ঘোষণা করলেন অ্যাডিশনাল ডিস্ট্রিক্ট কোর্টের বিচারক বিভাস চট্টোপাধ্যায়।

গত ২৪ ডিসম্বর ২০১২ সালে কুড়ুল দিয়ে প্রথমে নাক কেটে, তার পর মাথায় মেরে নৃশংস ভাবে খুন করা হয় শ্যামল সাহাকে। এই ঘটনায় অভিযুক্ত হন প্রতিরোধ কমিটির তিন সদস্য সুধীর সাহা, হরেন্দ্র নাথ মুর্মু, সুশান্ত সর্দার। অন্য অভিযুক্ত শ্যমাপদ সর্দার কেস শুরুর অাগেই মারা যান।

ঘটনা, ২৪ ডিসেম্বর রাতের। প্রাক্তন শিক্ষক সুধীর সাহার বাড়িতে চড়াও হয় চার অভিযুক্ত। দরজা না খুললে বাড়ি ভাঙচুর শুরু করে। টালির ছাদ সরিয়ে পালাতে গিয়ে পরে কোমর ভেঙে যায় সুধীরবাবুর। এর পরেই বাড়ির লোক ভয়ে দরজা খুলে দিলে সুধীর সাহাকে না পেয়ে তার ছেলে শ্যামল সাহাকে খুন করে চার জন।

তৃণমূল করলে এই অবস্থাই করা হবে, বেরিয়ে যাওয়ার সময় এই কথাই বলে এই চার জন। পরের দিন সকালে শ্যামলবাবুর মৃতদেহ উদ্ধার করে তদন্ত শুরু করে পুলিশ।

এত দিন পরে সাজা ঘোষণায় খুশি মৃতের পরিবারের লোকজন। অভিযুক্তরা উচ্চ অাদালতে যাবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন