suvendu adhikari

ইসলামপুর: বিজেপির ডাকা বাংলা বন্‌ধকে কেন্দ্র করে অগ্নিগর্ভ স্থানীয় এলাকা। এরই মধ্যে ইসলামপুরে এসে বিজেপির উদ্দেশে কড়া ভাষায় প্রতিক্রিয়া জানালেন রাজ্যের পরিবহণমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী।

তিনি বলেন, “দু’-চারজন মুখে গামছা বেঁধে হামলা চালিয়েছে। কিষেণজিও মুখে গামছা বেঁধে হামলা চালিয়েছিল। তার কী হাল হয়েছে সবাই জানে। ধমকে-চমকে তৃণমূলকে আটকানো যাবে না”।

গত ২০ সেপ্টেম্বর স্থানীয় দাঁড়িভিট হাইস্কুলে শিক্ষক নিয়োগকে ঘিরে উত্তেজনা ছড়ায়। মৃত্যু হয় স্কুলের দুই প্রাক্তন ছাত্রের। অভিযোগের তির ধেয়ে যায় পুলিশের দিকে। কিন্তু সে বিষয়ে এখনও তদন্ত চলছে। পরিবহণমন্ত্রী বলেন, “ইসলামপুরে না কি পুলিশ বন্দুকে সাইলেন্সার লাগিয়ে গুলি চালিয়েছে। নন্দীগ্রামে পুলিশ অনেক গুলি চালিয়েছে। আমি সেখানে ছিলাম। কিন্তু কখনো শুনিনি পুলিশ বন্দুকে সাইলেন্সার লাগিয়ে গুলি চালায়”।

পুলিশি তদন্ত শেষ না হলেও বিজেপি প্রথম থেকে দাবি করে আসছে পুলিশের গুলিতেই রাজেশ সরকার ও তাপস বর্মণ নামে দুই ছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। এ দিন শুভেন্দুবাবু বলেন, “দাঁড়িভিট কাণ্ডের পূর্ণাঙ্গ তদন্ত হবে। তাপস-রাজেশের খুনিরা শাস্তি পাবেই। আমরা তাঁদের পরিবারের পাশে আছি। তাঁদের মৃত্যু নিয়ে ঘৃণ্য রাজনীতি করছে ধ্বংসাত্মক পার্টি”।


আরও পড়ুন: জেলা পরিষদ সভাধিপতিপদে হ্যাটট্রিক করলেন শামিমা সেখ

পাশাপাশি তিনি চ্যালেঞ্জের সুরে বলেন, “জঙ্গলমহল, মুর্শিদাবাদ ফাঁকা করেছি। ইসলামপুর আজ এসেছি। এ বার দু’-চারদিন পর পর এখানে আসব”।

এ দিনে বিজেপির ডাকা বন্‌ধ প্রসঙ্গে তাঁর প্রতিক্রিয়া, “মানুষ বন্‌ধে স্বত;স্ফূর্ত ভাবে সাড়া দেননি। বন্‌ধ ব্যর্থ করেছেন রাজ্যের মানু। যে কারণে বন্‌ধ সফল করতে বাসে আগুন লাগিয়েছে বিজেপি। সব ঘটনারই ভিডিও ফুটেজ আমার কাছে আছে। বেছে বেছে ব্যবস্থা নেব। এর পর হিংসাত্মক কাজে জড়িত কেউ জেলের বাইরে থাকবে না”।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন