Mamata Banerjee
নবান্নে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ছবি: দ্য এশিয়ান এজ থেকে

কলকাতা: গত সোমবার রাজ্যের পঞ্চায়েত মনোনয়ন মামলায় সুপ্রিম কোর্টের শুনানি শেষ হলেও রায়ের জন্য লাগতে পারে সপ্তাহখানের সময়। অন্য দিকে এই রায়ের দিকে চেয়ে না থেকে পঞ্চায়েত এলাকার উন্নয়ন কাজ এগিয়ে নিয়ে যেতে তৎপর মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নবান্ন সূত্রে খবর, আগামী ২৩ আগস্ট তিনি পঞ্চায়েত দফতর ও সংশ্লিষ্ট অন্যান্য দফতরের আধিকারিক-সহ জেলা প্রশাসনের কর্তাদের নিয়ে এ বিষয়ে বৈঠকে বসছেন।

পঞ্চায়েত দফতর ছাড়াও ওই বৈঠকে উপস্থিত থাকবে কৃষি ও কৃষি বিপণন, খাদ্য সরবরাহ এবং স্বাস্থ্য দফতরের মন্ত্রী, সচিব এবং আধিকারিকরা। এ ছাড়া থাকবেন প্রতিটি জেলার জেলাশাসক-সহ জেলা পরিষদের সহকারী কার্যনির্বাহী আধিকারিক এবং পঞ্চায়েত আধিকারিকরা। পাশাপাশি ওই বৈঠকে থাকবেন কলকাতা, হাওড়া এবং বিধাননগর পুর নিগমের কমিশনাররাও।

জানা গিয়েছে, বৈঠকের নির্দেশ সংশ্লিষ্ট দফতরগুলিতে ইতিমধ্যেই পৌঁছে গিয়েছে। নির্দেশ হাতে পাওয়ার পর দফতরগুলিও জোরকদমে নেমে পড়েছে রিপোর্ট তৈরিতে। পঞ্চায়েতের উন্নয়ন কাজের সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত ওই রিপোর্টগুলি খতিয়ে দেখেই পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেবেন মমতা। পঞ্চায়েত মামলা সুপ্রিম কোর্টে আটকে থাকায় বোর্ড গঠনেও জটিলতা সৃষ্টি হয়েছে। বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয় পাওয়া পঞ্চায়েতগুলিতে ইতিমধ্যেই বোর্ডগঠনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার। ফলে মামলার জটে আটকে থাকা ১০০ দিনের কাজ, ধান সংগ্রহ, স্বাস্থ্য প্রকল্পগুলি যাতে দ্রুত স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরিয়ে নিয়ে আসা যায়, সে দিকে তাকিয়েই এই বৈঠকের আয়োজন বলে জানা গিয়েছে।


পড়তে পারেন: ‘ব্রেন-ডেড’ মল্লিকার কিডনি নিয়েও বাঁচলেন না মৌমিতা


উল্লেখ্য, গত সোমবার সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি দীপককুমার মিশ্রের বেঞ্চ রাজ্যের পঞ্চায়েত মামলার শুনানি শেষ করেছে। জানানো হয়েছে, রায় দিতে লাগতে পারে সপ্তাহখানেক সময়। আগামী ২২ আগস্টের মধ্যে উভয়পক্ষের তরফে যদি কিছু জানানোর থাকে, তা সর্বোচ্চ আদালতে পেশ করতে বলা হয়েছে। স্বাভাবিক ভাবেই সুপ্রিম কোর্ট নির্ধারিত ওই নির্দিষ্ট সময়ের পর দিনই বৈঠকে বসছে রাজ্য প্রশাসন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন