নয়াদিল্লি: “মোদী তো নিজেই বলেছিলেন বাতিল নোট জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ৩১ মার্চ”। সরকারি ভাবে বাতিল নোট ব্যাঙ্কে জমা নেওয়ার সময়সীমা শেষ না হলেও, ৩১ ডিসেম্বরের পর তা নেওয়া হচ্ছে না। এই প্রসঙ্গে একটি মামলার ভিত্তিতে মঙ্গলবার এমনই মত পোষণ করল সুপ্রিম কোর্ট।

আড়াই মাস হল সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি পালটে গিয়েছে। বিচারপতি টিএস ঠাকুরের বদলে তাঁর জায়গায় এখন জগদীশ কেহর। কিন্তু নোট বাতিল ইস্যুতে এখনও শীর্ষ আদালতের সমালোচনার মুখে পড়ছে কেন্দ্র। সুধা মিশ্র নামক জনৈক এক বিধবা মহিলার আবেদনের ভিত্তিতে এমনই মতামত দেয় প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ। ৩১ মার্চ পর্যন্ত বাতিল নোট জমা নেওয়া হবে, মোদীর এই আশ্বাস সত্ত্বেও বাতিল নোট জমা নিচ্ছে না ব্যাঙ্কগুলি, এই অভিযোগে মামলা করেন সুধাদেবী।

এই আবেদনের প্রতিপ্রেক্ষিতে সুপ্রিম কোর্ট এ দিন জানায় যে, ৮ নভেম্বর নোট বাতিল ঘোষণা করার সময়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেছিলেন, কারও যদি ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে বাতিল নোট ব্যাঙ্কে জমা দিতে অসুবিধা হয়, সেই অসুবিধার উপযুক্ত কারণ দেখালে তাকে বাতিল নোট জমা দেওয়ার জন্য ৩১ মার্চ পর্যন্ত সময় দেওয়া হবে। যাঁরা ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে নোট জমা করতে পারেনি, তাঁদের জন্য কেন আলাদা একটি বিভাগ তৈরি করা হয়নি সে ব্যাপারেও অ্যাটর্নি জেনারেল মুকুল রোহতগিকে প্রশ্ন করে বিচারপতি কেহরের ডিভিশন বেঞ্চ।

এই বিষয়ে কেন্দ্রের জবাবদিহি চেয়ে, শুনানির পরবর্তী দিন ১১ এপ্রিল ঘোষণা করেছে সুপ্রিম কোর্ট।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন