খবর অনলাইন: তালিবানি আক্রমণে পড়ে মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে আসা মালালা ইউসুফজাই ও তাঁর পরিবার গত চার বছরে কোটিকোটিপতি ক্লাবে ঢুকে গিয়েছেন। তাঁদের আয়ের উৎস মালালার বইয়ের বিক্রি এবং বিশ্ব জুড়ে বিভিন্ন স্থানে মালালার বক্তৃতা দেওয়া।

পাকিস্তানের সোয়াত ভ্যালির মালালা তখন স্কুলের ছাত্রী। ইতিমধ্যেই সে মেয়েদের অধিকার নিয়ে লড়াই শুরু করে দিয়েছে। তালিবানের অধীনে তারা কেমন আছে তা নিয়ে বিবিসি-র উর্দু বিভাগে সে লিখছে ‘গুল মকাই’ ছদ্মনামে। শিক্ষা সংক্রান্ত বিভিন্ন সেমিনারে সে বক্তৃতা করছে। পেয়েছে পাকিস্তানের প্রথম জাতীয় শান্তি পুরস্কার। এমন সময়ে ২০১২-এর অক্টোবরের একটি দিনে স্কুলবাসে বাড়ি ফেরার পথে মালালা আক্রান্ত হয়। তালিবানের লক্ষ্য ছিল মালালাই। তার মাথায় গুলি চালানো হয়। এক সপ্তাহ পরে মালালার জ্ঞান ফেরে বার্মিংহামের এক হাসপাতালে। সে বুঝতে পারে, বেঁচে আছে। রাতারাতি বিখ্যাত হয়ে যায় মালালা, মেয়েদের অধিকারের জন্য সংগ্রাম চালাতে যে পিছপা হয়নি, শত হুমকিতে যে পিছিয়ে যায়নি।

সুস্থ হয়ে মালালা আবার তার মিশনে ঝাঁপিয়ে পড়ে। তারই স্বীকৃতি স্বরূপ ২০১৩-তে সে পায় ইন্টারন্যাশনাল চিলড্রেনস পিস প্রাইজ, ২০১৪-তে মাত্র ১৭ বছর বয়সে নোবেল শান্তি পুরস্কার। এত কম বয়সে কেউ নোবেল পুরস্কার পায়নি।

সেই মালালা এখন কোটিকোটিপতি, না কোটিপতি নয়, কোটিকোটিপতি। মালালা বর্তমানে ব্রিটেনের অধিবাসী। কিন্তু তাকে চায় সারা বিশ্ব। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ইনস্টিটিউট অব পলিসি স্টাডিজ জানিয়েছে, প্রতিটা বক্তৃতার জন্য মালালার ফি এখন ১ লক্ষ ৫২ হাজার ডলার। নিলসন বুক রিসার্চের এক মুখপাত্র জানান, ২০১৩ সালে প্রকাশিত মালালার আত্মজীবনী ‘আই অ্যাম মালালা’ ব্রিটেনে বিক্রি হয়েছে ২ লক্ষ ৮৭ হাজার ১৭০ কপি, যা থেকে মালালার পরিবারের আয় হয়েছে ৩০ লক্ষ ডলার। এ ছাড়াও এই বইটি ব্রিটেনের বাইরে সারা বিশ্বে ১৮ লক্ষ কপি বিক্রি হয়েছে।

বিভিন্ন উনয়নশীল দেশে মেয়েদের শিক্ষা সংক্রান্ত বিভিন্ন প্রকল্পে আর্থিক সাহায্য করার জন্য ইউসুফজাই মালালা ফান্ড চালু করেছে। তা ছাড়া মালালার জীবনকাহিনির অধিকার সংরক্ষণের জন্য ২০১৩ সালে সালারজাই লিমিটেড নামে একটি কোম্পানি প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। সরকারি সূত্রে জানা গিয়েছে, মালালা, তার বাবা জিয়াউদ্দিন এবং মা তুর পেকাইয়ের মালিকানাধীন ওই কোম্পানির সম্পদের পরিমাণ ২০১৫-এর আগস্টে দাঁড়িয়েছে ১৮ লক্ষ ৭০ হাজার পাউন্ড। থমসন রয়টার্স ফাউন্ডেশনকে পাঠানো এক ই-মেলে ইউসুফজাই পরিবার জানিয়েছে, পাকিস্তান-সহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে প্রধানত শিক্ষা সংক্রান্ত প্রকল্প চালাতে তাঁরা ১০ লক্ষ ডলারেরও বেশি দান করেছেন। সিরীয় উদ্বাস্তু ছেলেমেয়েদের জন্য ১৪০ কোটি ডলার সাহায্যের প্রতিশ্রুতি দেওয়ার জন্য মালালা লন্ডনে বছরের গোড়ায় অনুষ্ঠিত এক সম্মেলনে বিশ্বনেতাদের অনুরোধ করেন।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here