মঙ্গল শোভাযাত্রায় বিশিষ্টজনেরাও।

কলকাতা: নানা উৎসব, অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে শনিবার পালিত হল নববর্ষ। বাঙালি বরণ করে নিল ১৪২৪ বঙ্গাব্দকে।

শহরের মূল অনুষ্ঠানটি ছিল মঙ্গল শোভাযাত্রা। মঙ্গল শোভাযাত্রা প্রতি বছরই নতুন বছরের দিন বাংলাদেশে বের করা হয়। ইউনেস্কো এই মঙ্গল শোভাযাত্রাকে ‘ইনট্যাঞ্জিবল হেরিটেজ’ বলে স্বীকৃতি দিয়েছে। সেই বাংলাদেশের  মঙ্গল শোভাযাত্রার আদলে কলকাতায়ও বের হয় মঙ্গল শোভাযাত্রা। শনিবার সক্কালে গাঙ্গুলিবাগান থেকে শোভাযাত্রা শুরু হয়ে শেষ হয় যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে।

শোভাযাত্রায় যোগদানকারী শিশুদের হাতে ছিল বাংলা বর্ণমালা।

রবীন্দ্রনাথ, মাইকেল, নজরুল, সুকান্ত প্রভৃতি কবি-সাহিত্যিকদের বাণী সম্বলিত প্ল্যাকার্ড কিশোরী-কিশোরদের হাতে।

শোভাযাত্রায় ছিল বাংলার হস্তশিল্পের নমুনাও।

মঙ্গল শোভাযাত্রার গোটা পথ জুড়ে আঁকা হয়েছিল সুদৃশ্য আলপনা।

বিকেলে কলেজ স্ট্রিটে বের করা হয় ‘জুলুস’।

এই ‘জুলুস’-এর প্রধান উদ্দেশ্য ছিল নববর্ষ উপলক্ষে ধর্মীয় মৌলবাদের বিরুদ্ধে সরব হওয়া।

দেশপ্রিয় পার্কের কাছে রাসবিহারী অ্যাভেনিউতে নববর্ষের মিছিলে শামিল হয়েছিলেন রাজ্যের বিদ্যুৎমন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়।

এ দিন ছিল শুভ হালখাতা মহরতের দিন। সেই উপলক্ষে কালীঘাটে পুজোপাঠ।

দক্ষিণেশ্বরের মন্দিরেও পুজো দেওয়ার জন্য পড়েছিল দীর্ঘ লাইন।

ছবি: রাজীব বসু ও নিজস্ব চিত্র

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here