লিওনেল মেসি, জেনে নিন এলএম টেন সম্পর্কে ১০টি চমকপ্রদ তথ্য

0
631

1প্রথম জার্সি নম্বর

মেসি বার্সেলোনায় যখন খেলা শুরু করেন, তখন পরতেন ৩০ নম্বর জার্সি। ২০০৬ সালে ১৯ নম্বর জার্সি পরতে শুরু করেন। ২০০৮ সালে রোনাল্ডিনহো বার্সা ছাড়ার পর ১০ নম্বর জার্সি দখলে আসে এলএম টেনের।

2ডেকোর পরিবর্তে

কার জায়াগায় প্রথমবার বার্সার জার্সি গায়ে মাঠে নেমেছিলেন লিওনেল? এখন অনেকেরই তা মনে থাকবে না। তিনি ছিলেন পোর্তুগালের ডেকো। ২০০৪ সালে তিনি ছিলেন দুনিয়ার অন্যতম সেরা খেলোয়াড়।

3ক্লাবের হয়ে প্রথম গোল

বার্সেলোনার হয়ে মেসি প্রথম গোলটি করেন ২০০৫ সালের ১মে। ক্লাবের জার্সি গায়ে চাপানোর সাড়ে সাত মাস পর। সেই লিগ ম্যাচে প্রতিপক্ষ ছিল আলবাসেটে। বার্সেলোনার হয়ে কোনো লিগ ম্যাচে সবচেয়ে কমবয়সি গোলদাতা মেসিই।

4প্রথম ম্যাচেই লাল কার্ড, সেই শেষ

২০০৫ সালের আগস্টে প্রথম দেশের হয়ে মাঠে নামেন মেসি। হাঙ্গেরির বিরুদ্ধে সেই ম্যাচে মাত্র ৯০ সেকেন্ড মাঠে ছিলেন তিনি। তাঁকে ফাউল করেন এক প্রতিপক্ষ ডিফেন্ডার। মেসি হাত চালিয়ে দেন। দেশ বা ক্লাবের হয়ে ওই একবারই লাল কার্ড দেখেছেন মেসি।

5অলিম্পিক পদকও

মেসির ঝুলিতে পুরস্কারের ভাণ্ডার, সে আমরা সকলেই জানি। কিন্তু অনেকেরই হয়তো মনে নেই তাতে একটা অলিম্পিক পদকও আছে। ২০০৮ সালে নাইজেরিয়াকে হারিয়ে অলিম্পিকে সোনা জেতে আর্জেন্তিনা। সেবারের অলিম্পিকে দুটি গোল করেছিলেন মেসি।

6ট্রফিহীন মরশুম

মাত্র ১টি মরশুমই ট্রফিহীন কেটেছে মেসির। ২০০৭-০৮। সেবার লা লিগায় তৃতীয় হয়ে শেষ করে বার্সা। চ্যাম্পিয়নস লিগ এবং কোপা ডেল রে-তে হেরে যায় সেমিফাইনালে।

7চারটি ফাইনালে পরাজয়

ক্লাবের হয়ে প্রচুর সাফল্য অর্জন করলেও দেশের হয়ে মেসির ব্যর্থতাও কিন্তু ভোলার নয়। আর্জেন্তিনার হয়ে চারবার ফাইনালে হেরেছেন তিনি। ২০১৪ সালের বিশ্বকাপ এবং ২০০৭, ২০১৫ এবং ২০১৬ সালের কোপা আমেরিকা।

8৭৪টি গোল পেনাল্টিতে

ক্লাব ও দেশের হয়ে পেনাল্টিতে ৭৪টি গোল করেছেন মেসি। মিস করেছেন ২০টি। অর্থাৎ তাঁর মোট গোলের ১৩.১% পেনাল্টি থেকে। মোটা পেনাল্টির ৭৭.৫% ক্ষেত্রে গোল দিয়েছেন তিনি।

9শেষের বিদ্যুৎ ঝলক

ম্যাচের ৭৬ মিনিট থেকে খেলার শেষ মুহূর্তের মধ্যে ১৪১টি গোল করেছেন মেসি। তার মধ্যে একটি আমাদের স্মৃতিতে এখনও উজ্জ্বল। গত মরশুমের এল ক্ল্যাসিকোয় তাঁর ইনজুরি টাইএর শেষ মুহূর্তের গোল।

10বক্সের বাইরে ৮৮

মেসির ৫৬৫টি গোলের মধ্যে ৮৮টি এসেছে বক্সের বাইরে থেকে। অর্থাৎ পেনাল্টি বক্সের মধ্যে থেকে তিনি ৪৭৭টি গোল দিয়েছেন।

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here