মূর্তি কোনো জায়গার নাম নয়, একটি নদীর নাম। ভূটান পাহাড় থেকে নেমে এসে চলে যাচ্ছে বাংলাদেশের দিকে। এই নদীর ধারে ধুপঝোরা অঞ্চলে গড়ে উঠেছে এই টুরিস্ট স্পট।

murti-2

শিলিগুড়ি থেকে ৭০ কিমি আর জলপাইগুড়ি থেকে ৪৫ কিমি দূরে অবস্থিত এই মূর্তি।

murti-5

মূর্তিতে রাত কাটিয়েই গরুমারা, চাপরামারি সাফারি করে নিতে পারেন। মূর্তি থেকে গরুমারা ১৫ কিমি আর চাপরামারি ১০ কিমি। পরিষ্কার দিনে মূর্তি থেকেই দেখা যায় কাঞ্চনজঙ্ঘা।

murti-3

কলকাতা থেকে মূর্তি যাওয়ার সব থেকে সুবিধাজনক উপায় হল ট্রেনে মালবাজার পৌঁছনো। শিয়ালদহ থেকে রাত সাড়ে আটটার কাঞ্চনকন্যা এক্সপ্রেসে নিউ মাল পৌঁছন পরের দিন সকাল ৯:২০তে। মালবাজার থেকে মূর্তি মাত্র  ১৫ কিমি।

murti1

মূর্তিতে থাকার জন্য রয়েছে পশ্চিমবঙ্গ পর্যটন উন্নয়ন নিগমের মূর্তি টুরিস্ট রিসোর্ট। রাজ্য বন উন্নয়ন নিগমের ‘বনানী’-ও থাকার পক্ষে যথেষ্ট ভালো জায়গা। এ ছাড়া রয়েছে মূর্তি নদীর ধারে বেশ কিছু বেসরকারি হোটেল ও রিসোর্ট। murti-4

ছবি: নিজস্ব চিত্র

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here