ওয়েবডেস্ক: ২৫ জুলাই শপথ নেওয়ার পর নয়াদিল্লির নর্থ ব্লকের রাইসিনা হিলসে প্রবেশ করবেন ভারতের চতুর্দশ রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। আর সেই বাড়ি থেকে বেরিয়ে নিজের নতুন বাড়ি ১০ নম্বর রাজাজি মার্গে চলে যাবেন প্রণব মুখোপাধ্যায়। রাজনীতির কথা, ভোটের লড়াইয়ের কথা ফেলে আসুন দেখে নিই ভারতের রাষ্ট্রপতি ভবনের ভেতরের ছবিটা।

রাষ্ট্রপতি ভবনের অনেকগুলি সম্মেলন কক্ষের একটি

রামনাথ যে বাড়িটিতে ঢুকবেন, সেটি এক সময় ছিল ব্রিটিশ সাম্রাজ্যের প্রাসাদ, ১৯৫০ সালের ২৬ জানুয়ারি সেটি পরিণত হয় গণতন্ত্রের প্রতিষ্ঠানে। সেদিনই ওই বাড়িতে প্রবেশ করেন ভারতের প্রথম রাষ্ট্রপতি ড.রাজেন্দ্র প্রসাদ।

রাষ্ট্রপতি ভবনের অশোক হল

রাষ্ট্রপতি ভবন তৈরি করতে প্রাথমিক খরচ ধরা হয়েছিল ৪ লক্ষ পাউন্ড। কিন্তু কাজ শুরু হওয়ার ১৭ বছর বাড়িটি যখন সম্পূর্ণ হয়, তখন খরচ বেড়ে দাঁড়ায় ৮,৭৭,১৩৬ পাউন্ড। সেটা ছিল ১৯২৯ সাল। সেই সময়ের হিসেবে তা ছিল প্রায় ১ কোটি ২৮ লক্ষ টাকা। এর সঙ্গে ভবনের লাগোয়া মুঘল গার্ডেন এবং কর্মচারীদের কোয়ার্টার সৈরির খরচ যোগ করলে মোট খরচ বেড়ে দাঁড়েয় প্রায় ১ কোটি ৪০ লক্ষ টাকা।

রাষ্ট্রপতি ভবনের দরবার হল

২লক্ষ বর্গ ফুটের ৪ তলা রাষ্ট্রপতি ভবনে ৩৪০টি ঘর আছে। এটি তৈরি করতে ৭০ কোটি ইঁট এবং ৩০ লক্ষ ঘ ফুট আয়তনের পাথর লেগেছে। এই ভবন তৈরি করতে প্রায় কোনো লোহা ব্যবহার করা হয়নি।

কাঠের আসবাবে সজ্জিত এবং সম্পূর্ণ কাঠের তৈরি রাষ্ট্রপতি ভবনের একটি শয়ন কক্ষ

স্থপতি এডউইন লুটিয়েনস নিজেই বলে গেছেন, এই ভবনটি তৈরি করতে তিনি রামান ও ভারতীয় স্থাপত্যের সাহায্য নিয়েছেন।

আরও পড়ুন: ১৯৭৪ সালের পরবর্তী রাষ্ট্রপতিদের মধ্যে সবচেয়ে কম ভোট পেলেন রামনাথ

নয়াদিল্লির এই ভবনটি ছাড়াও ভারতে রাষ্ট্রপতির আরও দুটি আবাস রয়েছে। একটি হল সিমলার মাশোব্রা এবং অন্যটি হায়দরাবাদের বোলারাম। দুটি আবাসেই বছরে অন্তত একবার করে থাকেন ভারতের রাষ্ট্রপতি।

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here