ওয়েবডেস্ক: যতই প্রথা মেনে, গুরু গ্রন্থসাহিব-এর পবিত্র উপস্থিতিতে সাঙ্গ হোক না কেন সোনম কাপুর আর আনন্দ আহুজার আনন্দ করাজ (শিখরা বিয়েকে এই নামেই ডাকেন), শিরোমণি গুরুদ্বার প্রবন্ধক কমিটি জানিয়েছিল- ওটা আদতে বিয়েই নয়! কেন না, আনন্দ করাজ-এর সব নিয়ম পালন করা হয়নি ওই বিয়েতে। আর প্রথামাফিক বিয়েতে যদি প্রথাই মানা না হয়, তবে আর তাকে বিয়ে বলা যাবে কী করে!

জানা গিয়েছে, আনন্দ করাজ-এর এক গুরুত্বপূর্ণ প্রথা হচ্ছে, বরের পাগড়ি থেকে কলগি বা ব্রোচ খুলে নেওয়া। প্রধান পুরোহিতই নিয়ম মেনে সেই কাজ সাঙ্গ করে থাকেন। অন্যথায়, বর বিয়েতে বসার অধিকার পান না। কিন্তু আনন্দ আহুজার ক্ষেত্রে এই নিয়ম মানা হয়নি। আগাগোড়া পাগড়িতে হিরের কলগি পরে ঘুরে বেড়িয়েছেন তিনি। হিরের ছটার পাশাপাশি তাঁর পৌরুষকে জেল্লা দিয়েছে কলগির সফেদ পালকও।

আর এই জায়গা থেকেই ক্ষোভে ফেটে পড়েছিল শিরোমণি গুরুদ্বার প্রবন্ধক কমিটি। তাঁরা জানতে চাইছিলেন- এত বড়ো ভুল হল কী করে! যে পুরোহিত বিয়েটা দিয়েছেন, তাঁর তো নিয়ম না জানার কথা নয়। তা হলে গুরু গ্রন্থ সাহিব-এর উপস্থিতিতে নিয়ম ভঙ্গের ধৃষ্টতা তাঁর হল কী করে! আর অবৈধ এবং অসম্পূর্ণ বিয়ের পরে নবদম্পতিকে মিলনের অনুমতি তিনি দিলেনই বা কোন মুখে!

তা, সেই জায়গা থেকেই কি আনন্দ এস আহুজাকে আরেকবার বিয়ে করে ফেললেন সোনম কে আহুজা?

খবর বলছে, ব্যাপারটা ঠিক তা নয়! ‘ভোগ’ পত্রিকা তাদের নতুন সংখ্যায় নিয়ে এসেছে সোনম আর আনন্দের বিয়ের বহু অপ্রকাশিত ছবি! পাশাপাশি, ছেপেছে কিছু নতুন ফটোশুটও!

দেখছেনই তো ছবিগুলো, তা কি আসল বিয়ের চেয়ে কম কিছু?

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here