;চিরঞ্জীব : রাশিয়ান গল্পের প্রতি বাঙালির একটা আকর্ষণ রয়েছে। বিশেষত যারা সত্তর কিংবা আশির দশকে জন্মেছেন, তাঁদের। সেই সময় একটু লেখাপড়া করা বাড়ির বই রাখার জায়গায় উঁকিঝুঁকি দিলেই মিলে যেত সোভিয়েত ম্যাগাজিন কিংবা দমিতরি গরিগারোভিচের সারকাসের ছেলের মতো বই। যে বইগুলি হাতে পেলে গোগ্রাসে পড়তাম।

আমার মতো অনেকেরই জীবনের ছোটবেলার বেশ খানিকটা অংশ জুড়ে রয়েছে ওই বইগুলি। রূপালী প্রকাশনীর সদ্য প্রকাশিত রাশিয়ান ছোটগল্পের অনুবাদ পশ্চিমী ফাঁদ ও অন্যান্য গল্পের বইটি হাতে নিয়ে একটু নস্টালজিক হয়ে পড়লাম। মিখাইল জোশেনকার লেখা। অনুবাদ করেছেন অরুণিম বন্দ্যোপাধ্যায়।

অনুবাদক মুখবন্ধে লিখেছেন,‘‘ মিখাইল জোশেনকা রুশ পাঠক মহলে সমাদৃত একটি নাম। কেউ কেউ জোশেনকাকে বিখ্যাত রুশ লেখক আন্তন চেখভের যোগ্য উত্তরসূরী বলে মনে করেন। জোশেনকার লেখায় বিষয়বস্তুর বৈচিত্র্য এবং ভাষার প্রাণময়তা বিশেষভাবে চোখে পড়ে। সোভিয়েত সমাজের দুঃখ, হাসি কান্নার গল্প প্রাণবন্ত হয়ে ওঠে জোশেনকার কলমর আঁচড়ে। প্রত্যেকটি গল্পই হাসায় এবং ভাবায়।

রুশ পাঠকমহলে জনপ্রিয় হলেও সেভাবে বিদেশের বাজারে খুঁজে পাওয়া যায় না জোশেনকার লেখা। কারণটা কী?

অনুবাদকের মতে,‘‘ তৎকালীন রাজনৈতিক ব্যবস্থার সক্রিয় অনুসারী না হওয়ার কারণে তাঁর লেখা বহুল প্রচারিত হয়নি বা তাঁর সমসাময়িক অন্যান্য অনেক রুশ লেখকের মতো তাঁর গল্পের বিদেশি ভাষায় অনুবাদও তেমন ভাবে করা হয়নি। কিন্তু তাঁর গল্পের মধ্যে রয়েছে একটি সর্বজনীন আবেদন।’’

এখানে উল্লেখযোগ্য, অনুবাদক নিজে রাশিয়ান ভাষার শিক্ষক। তাই অন্য কোনো ভাষা থেকে নয় রাশিয়ান ভাষা থেকে গল্পগুলির অনুবাদ করেছেন । তাঁর নিজের কথায়,‘‘ অনেক সময় অন্য ভাষা থেকে অনুবাদ করতে গিয়ে দেখা যায়, অনুবাদের ভাষা কৃত্রিম হয়ে পড়েছে। তাই অনুবাদ করার সময় মূল ভাষার ভাব যতটা সম্ভব ধরে রাখার চেষ্টা করেছি আর সেই সঙ্গে অনুবাদের ভাষা যেন কৃত্রিম না হয়, সেটাও দেখার চেষ্টা করেছি।’’ তাই রূপালী প্রকাশনীর প্রকাশিত এই বইটি আপনার সংগ্রহে রাখতেই পারেন।

বইমেলায় রূপালীর স্টল : ২৪৯

পশ্চিমী ফাঁদ ও অন্যান্য গল্প

লেখক : মিখাইল জোশেনকা

প্রকাশক: রূপালী

যোগাযোগ : ৯৪৩২০৬২৯২৮

আরও পড়ুন

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন