কৃষ্ণ-দ্রৌপদী

ওয়েবডেস্ক : রবিবার ২৬ আগস্ট রাখি। ভাইকে বিপদের কালো ছায়া থেকে দূরে রাখতে পালন করা হয় এই দিনটি। হাতে বেঁধে দেওয়া হয় রাখি। কিন্তু কবে থেকে এই রাখিবন্ধন উৎসবের সূচনা হল তা নিয়ে নানা গল্প কথা রয়েছে। সেই রকমই কিছু পৌরাণিক এবং ঐতিহাসিক গল্প রইল আপানাদের জন্য।

পৌরাণিক গল্প

১। শ্রীকৃষ্ণ ও দ্রৌপদী: একবার সুভদ্রার মনে প্রশ্ন আসে কেন কৃষ্ণ দৌপদীকে বেশি স্নেহ করেন। বেশি স্নেহ কেন তা এক ঘটনার মাধ্যমে কৃষ্ণ সুভদ্রাকে তার ব্যাখ্যা করে দেন। একবার কৃষ্ণের আঙুল কেটে গেলে, দ্রৌপদী তাঁর গায়ের দামি কাপড় ছিঁড়ে তা বেঁধে দিয়েছিলেন কৃষ্ণের আঙুলে। সেই সময় সুভদ্রা ভাবছিলেন কী করবেন, ঘুণাক্ষরেও তাঁর দামি কাপড় ছিঁড়ে দাদার হাতে বেঁধে দেওয়ার কথা মাথায় আসেনি।  এই ঘটনার পর কৃষ্ণ কথা দেন, যে কোনো বিপদেই তিনি দ্রৌপদীকে রক্ষা করবেন।

২। যম ও যমুনা :  যমুনা তাঁর ভাই যমের হাতে রাখি বেঁধেছিলেন।

৩। লক্ষ্মী ও বানররাজ বালি :  একবার এক দরিদ্র নারীর রূপ ধরে বালির কাছে আশ্রয় চান ধনদাত্রী দেবী লক্ষ্মী। বালি নিজের প্রাসাদের দরজা খুলে দেন তাঁর জন্য। খুশি হয়ে লক্ষ্মী, কাপড়ের টুকরো বেঁধে দেন বালির হাতে। দিনটি ছিল শ্রাবণ মাসের এক পূর্ণিমা।

আরও পড়ুন : রাখি বন্ধনে ভাইকে দিন মনের মতো উপহার

৪। মা সন্তোষী— রাখি বন্ধনের সঙ্গে সন্তোষীর জন্মবৃতান্ত জড়িত। গণেশের দুই পুত্র, শুভ ও লাভ, এক সময় বায়না ধরে নিজেদের বোনের হাতে তারা রাখি পরতে চায়। উপায়ান্তর না দেখে, দুই স্ত্রী, ঋদ্ধি ও সিদ্ধির অন্তর থেকে নির্গত অগ্নি থেকে গণেশ সৃষ্টি করেন সন্তোষী মাকে।

ঐতিহাসিক গল্প

১। হুমায়ুন ও রানি কর্ণবতী: শত্রুর হাত থেকে নিজের রাজ্যকে বাঁচাতে, মুঘল সম্রাট হুমায়ুনের কাছে সাহায্য চান মেওয়ারের রানি কর্ণবতী। সেই সময়ে তিনি একটি রাখিও পাঠান হুমায়ুনকে।

২। পুরু ও রোক্সানা: আলেকজান্ডার যখন ভারত আক্রমণ করেন তখন পুরুর শক্তির কথা জানতে পেরে আলেকজান্ডারের স্ত্রী রোক্সানা স্বামীর প্রাণ রক্ষার আর্জি জানিয়ে রাখি পাঠিয়েছিলেন পুরুকে। অবশেষে আলেকজান্ডার ও পুরুর মুখোমুখি যুদ্ধ শুরু হলে পুরু তাঁকে হত্যা করতে চাননি। যুদ্ধে শেষ পর্যন্ত হেরে গিয়েছিলেন পুরু।

ইন্টারনেট থেকে সংগৃহীত তথ্য