কলকাতা: সরস্বতী পুজো উপলক্ষে অভিনব উদ্যোগ নিলেন কলকাতা বামুনঘাটা হাইস্কুল কর্তৃপক্ষ। স্কুলের সামনে এক কিলোমিটার রাস্তায় এক হাজার পড়ুয়া এক সঙ্গে আলপনা দিচ্ছে। লেদার কমপ্লেক্স থানা এলাকার এই স্কুল ও স্থানীয় মানুষজনের সহযোগিতায় এই অভিনব উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

আলপনার মধ্যে বাংলার প্রাচীন সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য রয়েছে। কিন্তু সময়ের সঙ্গেই এই শিল্প প্রায় হারিয়ে যেতে বসেছে। কিছু দিন আগেও বাংলার বহু ঘরে পুজো বা অন্য অনুষ্ঠান উপলক্ষে দেওয়া হতো নানা ধরনের আলপনা। বাংলার সেই প্রাচীন সংস্কৃতিকে ফিরিয়ে আনতে স্কুল কর্তৃপক্ষ এ বার সরস্বতী পুজো উপলক্ষে আলপনার আয়োজন করেছে।

প্রসঙ্গত সরস্বতী পুজোর সময় কলকাতার বিভিন্ন এলাকায় আলপনা দেওয়া হয়। এমনকী যুব বিশ্বকাপ ফুটবল উপলক্ষে নব নির্মিত যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গনের প্রবেশপথে আলপনা দেওয়া হয়েছিল, যা বিশ্বের দরবারে বাংলার মুখ উজ্জ্বল করেছিল।

বামুনঘাটা হাইস্কুলে প্রাথমিক থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পর্যন্ত পড়ানো হয়। বর্তমানে স্কুল স্টাফ রয়েছেন ৪০ জন। পড়ুয়ার সংখ্যা ১৯০০ জন। প্রধান শিক্ষক মানস হালদার বলেন, ‘আমাদের মূল উদ্দেশ্য বাংলার প্রাচীন ঐতিহ্যবাহী আলপনা ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে ছড়িয়ে দেওয়া। তার জন্য আমরা স্কুলের বাইরে রাস্তাকেই বেছে নিয়েছি। স্কুলের সামনে প্রায় এক কিলোমিটার রাস্তায় এই আলপনা দেওয়া হবে’।

আরও পড়ুন – প্রতিবাদের পর কেরলের কলেজে সরস্বতী পুজোর অনুমতি মিলল

স্কুলের এক জন শিক্ষক বলেন, ‘এক কিলোমিটার রাস্তায় আলপনা দিতে ১০ লিটার রং ব্যবহার করা হচ্ছে। এর জন্য সমস্ত ক্লাসের পড়ুয়াদের মধ্যে ভাগ করে দেওয়া হয়েছে তাদের কাজ। প্রতি সেকশন পিছু ২০ মিটার ধার্য করা হয়েছে’। স্কুলে ২৫টি সেকশন রয়েছে। তাদের সাহায্যে ৫০০ মিটার আলপনা দেওয়া যাবে। এ ছাড়াও স্কুলের শিক্ষক শিক্ষিকা এবং স্থানীয় মানুষের জন্য বাকি ৫০০ মিটার রাখা হয়েছে।

সরস্বতী পুজো উপলক্ষে সকাল ১১টা থেকে বিকেল চারটে পর্যন্ত পড়ুয়ারা এক সঙ্গে এই আলপনা দেবে। স্কুলের সামনে থেকে গোটা রাস্তায় এই আলপনা আঁকা হবে। চলাচলের রাস্তায় যাতে কোনো অসুবিধে না হয়, সেই জন্য ট্রাফিক পুলিশের সঙ্গে কলকাতা লেদার কমপ্লেক্স থানার পুলিশও সহযোগিতা করবে এই অভিনব কাজে। এই কাজের জন্য বিকল্প রাস্তার ব্যবস্থাও করা হয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here