নয়াদিল্লি : সৌর জগতের ঠাকুরদা বৃহস্পতি। এই পরিবারের সব থেকে বয়স্ক গ্রহ। মানে প্রাচীনতম গ্রহ। সৌরজগৎ সৃষ্টি হওয়ার পর খুব অল্প সময়ের মধ্যেই এই দৈত্য গ্রহ বা জায়েন্ট প্ল্যানেট বৃহস্পতির জন্ম। কিন্তু একটি নতুন আবিষ্কার প্রমাণ করল, এত দিন বৃহস্পতির বয়স যা ভাবা হত আসলে তার থেকেও বহু বছর আগে বৃহস্পতির সৃষ্টি হয়েছে। এর সৃষ্টি সৌর জগত তৈরি হওয়ার মাত্র ১০ লক্ষ বছর পরেই। এখন  বৃহস্পতির বয়স ৫০০ কোটি বছর।

গবেষণাটি করেছেন, জার্মানের মুনস্টারের বিশ্ববিদ্যালয় এবং ক্যালিফোর্নিয়ার লরেন্স লাইভমোর ন্যাশনাল ল্যাবরেটরি (এলএলএনএল)-এর গবেষকরা।

গ্যাসীয় অবয়ব এই গ্রহের বৈশিষ্ট্য। তাই একে ‘গ্যাস জায়েন্ট’ বলা হয়। এই গ্যাসের মধ্যে রয়েছে হাইড্রোজেন ও চার ভাগের এক ভাগ হিলিয়াম। এই গ্যাসীয় পদার্থ দিয়েই এর ভরের বেশির ভাগটা তৈরি। বিজ্ঞানীদের কথায়, এর বাইরে রয়েছে তরল ধাতব হাইড্রোজেনের একটা স্তর। আর ভেতরে রয়েছে গলা পাথরের স্তর। বাইরের আচ্ছাদনটি হাইড্রোজেনের অনেকগুলো স্তর নিয়ে গড়ে উঠেছে। যেটা দেখলে মেঘের মত মনে হয়। এর প্রচণ্ড গতি এর গলিত অংশকে কখনই কঠিন হতে দেয় না। আর একটি স্তরের সঙ্গে আর একটি স্তরকে মিশে যেতে দেয় না।

বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, এটির আয়তন সূর্যের এক-সহস্রাংশ। আর গোটা সৌর জগতের সমস্ত গ্রহের ভরের আড়াই গুণ ভর বিশিষ্ট বৃহস্পতি। আর পৃথিবীর ভরের ৩১৮ গুণ। এর নিরক্ষীয় অঞ্চলে এর ব্যাসার্ধ ৮৮ হাজার ৮৪৬ মাইল। অর্থাৎ কিলোমিটারের হিসেবে ১ লক্ষ ৪২ হাজার ৯৮৪ কিলোমিটার।

গবেষক কুইজার জানান, এই গবেষণায় তাঁরা বৃহস্পতির নমুনা ব্যবহার করতে পারেননি। বৃহস্পতির সমসাময়িক কালের গ্রহাণু থেকে উদ্ভূত উল্কার অংশবিশেষ নিয়ে পরীক্ষাটি করেছেন। গবেষণায় দেখা গেছে বৃহস্পতির জন্ম ৫০০ কোটি বছর আগে। আনুমানিক সেই সময়কার আর বৃহস্পতি থেকে সৃষ্ট বা তার নিকটবর্তী জায়গা থেকে আগত এমন ১৯টি উল্কার আইসোটোপ নিয়ে এই গবেষণাটি করেছেন তাঁরা।

গবেষণাটি প্রকাশিত হয়েছে, প্রসেডিংস অব দ্যা ন্যাশনাল অ্যাকাডেমি অব সায়েন্স পত্রিকায়।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here