এক বিশাল গ্রহাণু পৃথিবীর খুব কাছে আসছে, কী ভাবে দেখবেন এই গ্রহাণুর পথপরিক্রমা

0

জানুয়ারি মাস পড়তেই একটার পর একটা গ্রহাণুর পৃথিবীর কাছ ঘেঁষে বেরিয়ে যাওয়ার খবর আসছে। এই প্রবণতা কিছুতেই কমছে না। এ বার আরও একটা গ্রহাণুর খবর দিয়েছে দ্য ন্যাশনাল অ্যারনটিক্স অ্যান্ড স্পেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন তথা নাসা।

নাসা জানিয়েছে, ১ কিমিরও বেশি ব্যাসের একটি গ্রহাণু ক্রমশই পৃথিবীর কাছে আসছে। ১ কিমিরও বেশি ব্যাস মানে এই বিশ্বের সব চেয়ে বড়ো যে ভবন সেই বুর্জ খলিফার চেয়েও বড়ো এই গ্রহাণু। আরও বড়ো কথা হল, আপনি এই গ্রহাণুকে চিহ্নিত করতে পারবেন এবং আপনার গ্যাজেটের মাধ্যমে দেখতে পাবেন।

এই গ্রহাণু ‘৭৪৮২’ অথবা ‘১৯৯৪ পিসি ১’ নামে পরিচিত। ইস্টার্ন স্ট্যান্ডার্ড টাইম ১৮ জানুয়ারি বিকেল ৪টে ৫১ মিনিটে (ভারতীয় সময় ১৯ জানুয়ারি রাত ৩টে ২১ মিনিটে এই গ্রহাণু আমাদের গ্রহের সব চেয়ে কাছে আসবে। তখন পৃথিবী থেকে এর দূরত্ব থাকবে ১২ লক্ষ মাইল। দূরত্বটা খুব বেশি মনে হলেও মহাজাগতিক বিশ্বে এই দূরত্ব খুব বেশি নয়। আর পৃথিবী থেকে দূরত্বের নিরিখে তো একেবারেই বেশি নয়।

এই গ্রহাণু সম্পর্কে আশ্বস্ত করেছে নাসা। তারা টুইট করে বলেছে, “পৃথিবীর নিকট- গ্রহাণু ‘১৯৯৪ পিসি ১’ (১ কিমি চওড়া) আমাদের খুবই পরিচিত এবং আমাদের গ্রহসংক্রান্ত প্রতিরক্ষা বিশেষজ্ঞরা কয়েক দশক ধরে একে নিয়ে সমীক্ষা করছে। আশ্বস্ত করে বলছি, ‘১৯৯৪ পিসি ১’ গ্রহাণু ১৮ জানুয়ারি, মঙ্গলবার আমাদের গ্রহের ১২ লক্ষ মাইল দূর দিয়ে নিরাপদে উড়ে যাবে।”

১৯৯৪ সালে এই গ্রহাণুটি আবিষ্কার করেন অস্ট্রেলিয়ার সাইডিং স্প্রিং অবজারভেটরির বিজ্ঞানী রবার্ট ম্যাকনট। এই গ্রহাণু তার কক্ষপথে সূর্যকে পরিক্রমা করে পৃথিবীর ১.৫৭ বছর অর্থাৎ প্রতি ৩০ বছর অন্তর এটি পৃথিবীর কক্ষপথকে অতিক্রম করে।

এই গ্রহাণু কি দেখা যাবে?

অবশ্যই দেখা যাবে, যদি আপনার একটা ভালো টেলিস্কোপ থাকে অথবা অন্য কোথাও টেলিস্কোপের মাধ্যমে দেখার সুযোগ থাকে। যদি আপনার টেলিস্কোপে দেখার সুযোগ না থাকে তা হলেও ভার্চুয়ালি দেখতে পাবেন। ভার্চুয়াল টেলিস্কোপ প্রজেক্টস ওয়েবসাইটে লাইভ দেখুন অথবা নাসার ‘আইজ অন অ্যাস্টোরয়েডস’ (Eyes on Asteroids) পোর্টালে চোখ রাখুন।

যদি এই গ্রহাণু পৃথিবীকে আঘাত করে?

কোনো গ্রহাণু পৃথিবীর কাছাকাছি এলেই এই প্রশ্নটা আমাদের খুব পীড়িত করে। বুর্জ খলিফার চেয়েও বড়ো আকারের গ্রহাণু আমাদের গ্রহের কাছাকাছি এসে এর কোনো ক্ষতি করবে না তো? আমরা পৃথিবীর ইতিহাসে বেশ কিছু গ্রহাণু পৃথিবীকে আঘাত করেছে। এবং এটা যে ভবিষ্যতে আবার ঘটতে পারে, তার আশঙ্কাও উড়িয়ে দেওয়া যায় না। যেগুলোকে গ্রহাণুর ক্ষুদ্রতম সংস্করণ বলা যেতে পারে সেই উল্কাপাত তো পৃথিবীতে সব সময় ঘটছে।

নাসা স্পষ্ট করে জানিয়ে দিয়েছে, ঘণ্টায় ৪৭,৩৪৪ মাইল বেগে ‘১৯৯৪ পিসি ১’ গ্রহাণু ১২ লক্ষ মাইল দূর দিয়ে পৃথিবীকে অতিক্রম করে যাবে। আগামী দু’ শতকের মধ্যে এই গ্রহাণুটিই পৃথিবীর সব চেয়ে কাছ দিয়ে যাবে। কিন্তু এত কাছ দিয়ে যাওয়া সত্ত্বেও এটি পৃথিবীর এত কাছে আসবে না যে আতংকের ঘণ্টা বাজাতে হবে। নাস বলে দিয়েছে, এই বিশাল গ্রহাণুর হাত থেকে আমাদের গ্রহ নিরাপদই থাকবে।               

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন