facebook

ওয়েবডেস্ক: কেমব্রিজ অ্যানালিটিকা কাণ্ড ফেসবুক ব্যবহারকারীদের মনে তুলে দিয়েছে একাধিক প্রশ্ন। কারও কারও মনে বাসা বেঁধেছে আতঙ্ক। অনেকে তো তথ্য চুরি হয়ে যাওয়ার ভয়ে অতশত না ভেবে নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট মুছেও ফেলেছেন। যদিও ফেসবুক কর্তৃপক্ষের তরফে বারবার আবেদন করা হয়েছে, এমন কিছু ঘটেনি বা ঘটবে না যার ফলে আপনি সমূহ বিপদে পড়তে পারেন।

তবে বিশেষজ্ঞ মহল মনে করছে, কিছু ঘটে গেলে তো হাত কামড়ানো ছাড়া কোনো উপায় থাকবে না। তার আগে নেওয়া যেতে পারে কিছু ইতিবাচক ব্যবস্থা। এ ব্যাপারে তাঁরা পরামর্শ দিয়েছেন নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে নয়টি বিষয় মুছে ফেলতে। এর ফলে যেমন আপনার ব্যক্তিগত গোপনীয়তা বজায় থাকবে তেমনই অনাহূত কোনো বিপদে পড়ারও সম্ভাবনা থাকবে না।

১. জন্মদিন

আপনার জন্মদিন একটি গুরুত্বপূর্ণ এক অংশ, যা আপনার নাম এবং ঠিকানার সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে। কারও দূরভিসন্ধি থাকলে সে সহজেই আপনার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট এবং ব্যক্তিগত বিবরণ অ্যাক্সেস করতে পারে জন্ম তারিখটি ব্যবহার করে।

২. ফোন নম্বর

ফেসবুকে ফোন নম্বর ভিজিবল থাকলে যে কেউ আপনার নম্বরটি ব্যবহার করতে পারে। সাইবার ক্রাইমের অভিজ্ঞ কেউ অন্যের ফোন নম্বর ব্যবহার করে ডিজিটাল লেনদেন-সহ একাধিক কু-কর্ম সংগঠিত করতেই পারে।

৩. বন্ধু ও বন্ধুর সংখ্যা

ফেসবুকে যদি বন্ধুত্ব করতেই হয়, তেমন বন্ধুদেরই রাখুন যাঁদের আপনি কোনো না কোনো ভাবে চেনেন। ১৫০-এর মতো বন্ধু রাখাতেই সায় জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা।

৪. নিজের পরিবারের ছবি

ফেসবুকে নিজের পরিবারের সদস্যদের ছবি বিশেষ করে নিজের শিশু সন্তানের ছবি না রাখাই ভালো।

৫. কে কোথায় আছে?

আপনি রয়েছেন নিজের কর্মস্থলে, এক দিন পোস্ট করলেন সেই ছবি। পর দিন কোনো সময় সন্তান যাচ্ছে স্কুলে, সেই ছবিও পোস্ট করলেন। কে কোথায় কখন রয়েছে, তেমন ছবি পোস্ট না করাই ভালো।

৬. লোকেশন সার্ভিস

ফেসবুকে ঠিকানা নির্দেশক এমন কোনো পরিষেবা ব্যবহার না করাই ভালো।

৭. কোথায় ছুটি কাটাচ্ছেন?

কোনো জায়গায় ছুটি কাটাতে/ঘুরতে গিয়েছেন। সেখান থেকে হরদম ছবি পোস্ট করা বন্ধ করুন। বাড়িতে য়ে আপনি নেই, সে কথা ধান্ধাবাজদের না-ই বা জানালেন।

৮. ক্রেডিট কার্ডের বিবরণ

নিজের নতুন ক্রেডিট কার্ড পাওয়ার আনন্দে সেটাকেও অনেকে পোস্ট করে দেন। পোস্ট করা দূরে থাক, সে সম্বন্ধে কোনো মেসেজও ফেসবুকে বহন করা যাবে না।

৯. বোর্ডিং পাসের ছবি

বোর্ডিং পাসের ছবি পোস্ট করা মানেই তার মধ্যে থাকা বার কোডটি অন্যের কাছে পৌঁছে যাওয়া। যেটাকে বার কোড স্ক্যানারে ফেললেই আপনার ব্যক্তিগত তথ্য অন্যের হাতে পৌঁছে যাবে।

অতএব, কিছু বিষয় এড়িয়ে চললেই নিরাপদ। ফেসবুক অ্যাকাউন্ট মুছে ফেলার প্রয়োজন আছে বলে মনে হয় না!

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here