দেহরাদুন : প্রাগৈতিহাসিক যুগের প্রাণী ডায়নোসর। আজ থেকে ৬৫০ লক্ষ বছর আগে পৃথিবী থেকে লুপ্ত হয়ে গিয়েছে এই ডায়নোসরের বংশ। তাই অ্যানিমেটেড ফিল্ম বা কৃত্রিম উপায়ে বানানো অবয়ব ছাড়া ডায়নোসরের দেখা মেলা ভার।

উত্তরাখণ্ডের জসপুর এলাকা থেকে একটা অদ্ভুত রকমের প্রাণীর দেহাবশেষ মিলল। এই দেহাবশেষটিতে হাড়ের সঙ্গে লেগে রয়েছে মাংসও। আশ্চর্যের ব্যাপার হল এই দেহাবশেষটা দেখতে একটা ডায়নোসরের মতো। কিন্তু এক মাত্র জীবাশ্ম হয়ে যাওয়া ছাড়া এই ভাবে মাংসসমেত দেহাবশেষ দীর্ঘদিন রয়ে যাওয়া সম্ভব নয়। কিংবা খুব ভালো ভাবে রাসায়নিক দ্রব্য দিয়ে মিউজিয়ামে সংরক্ষণ করলে তবেই তা রাখা যেতে পারে।

কিন্তু এই দেহাবশেষ মিলেছে একটা সাবস্টেশন থেকে। এক জন ইলেক্ট্রিশিয়ান সাবস্টেশন পরিষ্কার করতে গিয়ে এটা খুঁজে পেয়েছেন। জানা গেছে, ৩৫ বছর ধরে এই সাবস্টেশনটা পরিত্যক্ত অবস্থা ছিল।

ইন্ডিয়ান ফরেস্ট সার্ভিসের এক জন সংরক্ষক ডক্টর পরাগ মধুলার ঢাকাতে বলেন, যদিও এই প্রাণীর দেহাবশেষ দেখতে ডায়নোসরের মতোই। কিন্তু সম্পূর্ণ পর্যবেক্ষণ না হওয়া পর্যন্ত তা একটা রহস্যের ব্যাপার। এই বিষয়ে এখনই কিছু বলা সম্ভব নয়।

দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্যালেন্টোলজির পিএইচডি-র পড়ুয়া আরিয়ন কুমার বলেন, একটা ডায়নোসরের দেহ এত ভালো ভাবে এত বছর ধরে সংরক্ষণ করা অসম্ভব। ৬৫০ লক্ষ বছর আগে ডায়নোসরের সরীসৃপ প্রজাতি লুপ্ত হয়ে গিয়েছিল। দেহাবশেষটির থেরোপড প্রজাতির ডায়নোসরের সঙ্গে এর বেশি মিল রয়েছে। এই থেরোপড দ্বিপদী মাংসাশী প্রাণীর অন্তর্গত।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here