নয়াদিল্লি : মঙ্গলযান অর্থাৎ মার্স অরবিটাল মিশন (মম)-এর ১০০০ দিন পূর্ণ হল সোমবার। পৃথিবীর দিন গণনা হিসেবে ১০০০ দিন আর মঙ্গলের দিন হিসেবে ৯৭২ দিন। ইসরোর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, নির্ধারিত সময়ের থেকে ৫ গুণ সময় বেশি টিকল এই ‘মম’। মাত্র ছ’ মাসের আয়ুষ্কাল নির্দিষ্ট করা হয়েছিল এর। তার পরও এর গতি শ্লথ তো হয়ইনি বরং যথেষ্ট ভালো আছে। এর কাজের পরিমাণ আরও না বাড়লেও যথেষ্ট কার্যক্ষম রয়েছে।

এই মহাকাশযান উৎক্ষেপণ করা হয়েছিল ২০১৩ সালের ৫ নভেম্বর। ২০১৪ সালের ২৪ সেপ্টেম্বর এটি মঙ্গলের কক্ষপথে স্থাপিত হয়। তার পর পৌনে তিন বছর ধরে এটি ঘুরে চলেছে মঙ্গলের চারপাশে।

মঙ্গলের কক্ষপথে এই যানটি পাঠানোর প্রথম প্রচেষ্টাই সফল হয়েছিল। তা ছাড়া মঙ্গলযানের খরচ ছিল অন্যান্য বিদেশি সংস্থার মঙ্গলে উপগ্রহ পাঠানোয় যা খরচ তার থেকে অনেক কম।

 

চলতি বছরে জানুয়ারির ১৭ তারিখে ‘মম’কে তার মূল কক্ষপথ থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছিল। কারণ সরিয়ে নেওয়া না হলে এই উপগ্রহ আর সূর্যের মাঝে চলে আসত পৃথিবী। এর ফলে উপগ্রহটিতে সৃষ্টি হত গ্রহণ। আর তার ফলে ক্ষতি হত এতে রাখা অতিরিক্ত ব্যাটারিটির। তাতে বিজ্ঞানীদের সঙ্গে উপগ্রহের সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যেত।

ইতিমধ্যেই মঙ্গলকে ৩৮৮ বার প্রদক্ষিণ করে ফেলেছে ‘মম’। মঙ্গলের ৭১৫টি ছবি পাঠিয়েছে। এই উপগ্রহটির মধ্যে ৫টা পেলোড রয়েছে। তার মধ্যে ক্যামেরা একটা। এ ছাড়াও আছে মিথেন সেন্সার। এই সেন্সার মঙ্গলের জলবায়ুর ওপর সূর্যের প্রভাব বুঝতে সাহায্য করে। ডিউটারিয়াম আর হাইড্রোজেনের অনুপাত এবং ইনফ্রারেডের তাপ বিকিরণের মাত্রা বুঝতে সাহায্য করে।

প্রসঙ্গত, মঙ্গলায়ন ২.০ নামের আরও একটি মঙ্গল অভিযানের পরিকল্পনা করা হচ্ছে। তা ছাড়া ২০২০ সালের পর শুক্র অভিযানেরও পরিকল্পনা করা হচ্ছে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here