‘চন্দ্রযান ২’-এর সফল উৎক্ষেপণের পরে আরও একটি খুশির খবর শোনাতে চলেছে ইসরো

0
Aditya - L1
প্রতীকী ছবি

ওয়েবডেস্ক: ‘চন্দ্রযান ২’-এর সফল উৎক্ষেপণের পর আপাতত ইসরোর পরবর্তী লক্ষ্য সৌর মিশন। আগামী ২০২০ সালের প্রথমের দিকেই ‘আদিত্য এল১’ নামের পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে চায় ইসরো। সূর্যের ‘কোরোনা’ পর্যবেক্ষণের উদ্দেশেই ওই মিশন বলে জানা গিয়েছে গবেষণা সংস্থা সূত্রে।

সূর্যের বাইরের দিকে কয়েক হাজার কিমি পর্যন্ত বিস্তৃত কোরোনা স্তরের পর্যবেক্ষণের উদ্দেশে ইসরো হাতে নিয়ে ‘আদিত্য এল১’ মিশন। এই প্রকল্প সম্পর্কে ইসরোর তরফে জানানো হয়েছে, পদার্থ বিজ্ঞান এখনও পর্যন্ত কোরোনা নিয়ে বেশ কয়েকটি প্রশ্নের উত্তর খুঁজে চলেছে। যেমন কী ভাবে বা কী করে কোরোনা এতটা উচ্চ তাপমাত্রায় উত্তপ্ত হয়ে ওঠে।

এল১ বিন্দুর চিত্রণ। ছবি: উইকিমিডিয়া কমন্‌স

সোমবারই চাঁদের উদ্দেশে যাত্রা করেছে চন্দ্রযান ২। দৈত্যাকার রকেট জিএসএলভি মার্ক ৩-এর মাধ্যমে অন্ধ্রপ্রদেশের শ্রীহরিকোটা থেকে সোমবার দুপুর ২.৪৩টায় চাঁদের উদ্দেশে যাত্রা করে চন্দ্রযান ২। গত সপ্তাহেই উৎক্ষেপণের কথা ছিল এই যানটির। কিন্তু যান্ত্রিক ত্রুটিগত কারণে উৎক্ষেপণের ঠিক ৫৬ মিনিট আগে যাত্রা স্থগিত করে দেওয়া হয়। তবে এ দিনে উৎক্ষেপণ সফলভাবেই সম্ভব হয়েছে।

৬৪০ টনের জিএসএলভি মার্ক ৩ রকেট বা ‘বাহুবলী’ রকেট দ্রুত মহাকাশে পৌঁছবে। জিএসএলভি মার্ক ৩ ইসরোর সবচেয়ে বড় ও শক্তিশালী রকেট। ৪৪ মিটার লম্বা এই রকেটটি একটি ১৫ তলার বাড়ির সমান উঁচু। রবিবার ৬.৪৩ মিনিট থেকে ২০ ঘণ্টার কাউন্ট ডাউন শুরু হয়ে যায়। ১০০০ কোটি টাকার মিশন এই চন্দ্রযান-২

চন্দ্রযান ২: চাঁদের উদ্দেশে আকাশে পাড়ি।

উৎক্ষেপণের মিনিটখানেকের মধ্যেই রকেট চন্দ্রযান-২-কে পৃথিবীর কক্ষপথে পৌঁছে দেয়। ইসরোর চেয়ারম্যান কে সিভান বলেন, “আমি অত্যন্ত খুশি এটা ঘোষণা করতে পেরে যে, জিএসএলভি মার্ক-৩ কক্ষপথে চন্দ্রযান-২-কে পৌঁছে দিয়েছে। এরই সঙ্গে ভারতের এক ঐতিহাসিক যাত্রা শুরু হল। আমরা একটা বৃহৎ যান্ত্রিক ত্রুটি সারিয়ে ফেলার পর সাফল্যের সঙ্গে উৎক্ষেপণে সক্ষম হয়েছি”।

ইসরো জানায়, সৌর মিশনে কোরোনার পাশাপাশি সূর্যের ফোটোস্ফিয়ার, ক্রোমোস্ফিয়ার পর্যবেক্ষণ করবে আদিত্য এল১। সূর্যের চারপাশে ঘিরে থাকা কণা নিয়ে বিশদ গবেষণার সহায়ক হবে ওই মিশন। আগামী বছরের মধ্যে মিশন বাস্তবায়নে কাজও চলছে জোরকদমে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here