Bennu

ওয়েবডেস্ক: গন্তব্যে পৌঁছানোর প্রায় এক মাস পর গ্রহাণু বেনুর সঙ্গ পৃথিবীর একটি দারুণ ছবি তুলেছে ওএসইআরইএস আরইএক্স। নাসার প্রথম গ্রহাণুর নমুনা সংগ্রহ অভিযানের অরিজিনস স্প্যাকট্রাল ইন্টারপ্রিটেশন রিসোর্স আইডেনটিফিকেশন সিকিউরিটি রিগোলিথ এক্সপ্লোরার। এক কথায় ওসিরিস রেক্স অর্থাৎ ওএসইআরইএস আরইএক্স। এই ছবিটি উঠেছে ২০১৮ সালের ১৯ ডিসেম্বর। ওসিরিস রেক্স এই জাতীয় অভিযানের ক্ষেত্রে প্রথম মহাকাশ যান। ওসিরিস রেক্স মহাজাগতিক ছোট্ট ছোট্ট বস্তুগুলির খুবই কাছ থেকে ছবি তুলবে আর মাটি পাথরের নমুনা সংগ্রহ করবে। ২০২৩ সালে পৃথিবীতে ফিরবে ওসিরিস রেক্স।

বেনু নামের এই গ্রহাণুকে কেন্দ্রে রেখে তার কক্ষপথ। সেই কক্ষপথে নিক্ষেপ করার মাত্র কয়েক দিন আগে নতুন বছরের প্রাক্কালে এই ছবিটি তুলেছে ওএসইআরইএস আরইএক্স। খুবই ছোটো এই গ্রহাণু। এক মাইলের একের তিন অংশ মাত্র। ছবিতে একটি লম্বাটে বড়ো বিন্দুর আকারে ধরা পড়েছে।

Bennu

প্রায় সাত কোটি মাইল দূরে পৃথিবীকে একটি ছোট্ট বিন্দুর মতো দেখাচ্ছে ওই ছবিতে। সঙ্গে চাঁদ আরও ছোট্টো একটি বিন্দু। তবে ছোট্ট হলেও দু’টিই খুবই স্পষ্ট ভাবে দেখা এবং বোঝা যাচ্ছে।

প্রসঙ্গত ২০১৬ সালে এটিকে মহাকাশে নিক্ষেপ করা হয়েছিল। মহাকাশে প্রায় এক লক্ষ কোটি মাইল পথ অতিক্রম করেছে ওসিরিস রেক্স। মহাকাশে কী ধরনের মাটি পাথর রয়েছে তা গবেষণা করবে এই মহাকাশ যান। তা ছাড়া গ্রহাণুর মাটিতে জল রয়েছে সেটিও আবিষ্কার করেছে এই যান। জানা গিয়েছে, এতে হাইড্রোক্সিলের উপস্থিতি রয়েছে। অর্থাৎ কিনা সেখানে অক্সিজেন আর হাইড্রোজেনের উপস্থিতি রয়েছে।

আরও পড়ুন – গোরু নয়, ছাগল চোর সন্দেহে ল্যাম্পপোস্টে বেঁধে গণপিটুনি এ বার!

নাসা একটি বিবৃতিতে আরও বলেছে, বেনুর তরল জল ধারণ করার জন্য খুবই ছোটো হলেও, এর উৎপত্তি যে মূল গ্রহ থেকে তাতে রয়েছে জলের উপস্থিতি।

মহাকাশ সংস্থার পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, গ্রহাণুদের থেকেই সৌর জগৎ সৃষ্টির উত্তর পাওয়া যাবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here