কোভিড ‘মরশুমি’ রোগের আকার নিতে পারে, বলছে রাষ্ট্রসঙ্ঘের গবেষণা

0

খবর অনলাইন ডেস্ক: একটি ‘মরশুমি’ রোগে পরিণত হতে পারে কোভিড-১৯ (Covid-19)। আবহাওয়াজনিত কারণের ভিত্তিতে মহামারি সংক্রান্ত ব্যবস্থা শিথিল করার বিরুদ্ধে সতর্ক করে বৃহস্পতিবার তেমনই সম্ভাবনার কথা বলেছে রাষ্ট্রসঙ্ঘ (United Nations)।

করোনাভাইরাস অতিমারি (Coronavirus pandemic) প্রথম চিনে ধরা পড়েছিল। ওই ঘটনার এক বছরেরও বেশি সময় পরে, এখনও এই ভাইরাসের সংক্রমণ ঘিরে অনেক রহস্য রয়েছে। বিশ্বব্যাপী প্রায় ২৭ লক্ষ মানুষের প্রাণ গিয়েছে কোভিডে আক্রান্ত হয়ে।

মরশুমি বিপদে পরিণত হতে পারে কোভিড

কোভিড -১৯-এর বিস্তার সম্পর্কে সম্ভাব্য আবহাওয়া এবং বায়ুর গুণগত মানের প্রভাবগুলি পরীক্ষা করে সেই রহস্যগুলির মধ্যে একটির উপর আলোকপাত করার দায়িত্ব পেয়েছিল একটি বিশেষজ্ঞ দল। তাদের প্রথম প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এমন কিছু লক্ষণ দেখা দিয়েছে যে, এই রোগটি বিশ্বের কাছে মরশুমি বিপদে পরিণত হতে পারে।

রাষ্ট্রসঙ্ঘের ওয়ার্ল্ড মেটিরিওলজিক্যাল অর্গানাইজেশন ১৬ সদস্যের ওই বিশেষজ্ঞ দলটি গঠন করেছিল। বিশেষজ্ঞরা প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছেন, শ্বাসজনিত ভাইরাল সংক্রমণ প্রায়শই মরশুমি হয়। বিশেষত শরৎকাল এবং শীতকালে ইনফ্লুয়েঞ্জার প্রকোপ বাড়ে। করোনাভাইরাসের ক্ষেত্রেও শীতকালীন আবহাওয়াকে বিশেষ ভূমিকা নিতে দেখা গিয়েছে।

কোভিডবিধি সমান ভাবে মেনে চলা উচিত

রিপোর্টে বলা হয়েছে, এ ভাবে দিনের পর দিন চললে কোভিড-১৯ এক দিন মরশুমি রোগের আকার নিতে পারে। একই সঙ্গে কোভিডের প্রকোপ কমার কারণ হিসাবে উল্লেখ করা হয়েছে মাস্কের ব্যবহার এবং চলাচলের উপর সরকারি বিধিনিষেধ জারির বিষয়গুলিকেও। যে কারণে বিশেষজ্ঞ দল বলেছে, শুধুমাত্র আবহাওয়া পরিবর্তনের জন্য করোনা সংক্রমণ কমতে পারে, এমন ধারণা পোষণ করা ঠিক নয়। কোভিডবিধিগুলিও সমান ভাবে মেনে চলা উচিত।

এই বিশেষজ্ঞ দলের নেতৃত্বে থাকা জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের আর্থ অ্যান্ড প্ল্যানেটারি সায়েন্সেস বিভাগের অধ্যাপক বেন চাইচিক বলেছেন, সরকারি বিধিনিষেধ শিথিল করে দিলে আবহাওয়া এবং বায়ুর মানের কারণে করোনা সংক্রমণ কমে যাবে, এই পর্যায়ের নমুনাগুলি তা মোটেই প্রমাণ করে না।

তিনি বলেন, প্রথম বছরের অতিমারির সময় কোথাও কোথাও শীতকালে তা খুব বেড়ে গিয়েছিল। এ বছরেও যে তেমনটা ঘটবে না, তার কোনো নিশ্চয়তা নেই।

বায়ু দূষণে কি সংক্রমণ প্রভাবিত হয়?

মূলত আবহাওয়া এবং বায়ুর মানের উপর ভিত্তি করেই করোনা ভাইরাস সংক্রমণে সম্ভাব্য দিকগুলির উপর আলোকপাত করেছে এই বিশেষজ্ঞ দলটি। গবেষণায় জানা গিয়েছে, ভাইরাসটি শীত, শুষ্ক আবহাওয়ায় লম্বা সময় বেঁচে থাকতে পারে। বিশেষত, যখন খুব অল্প অতিবেগুনি রশ্মি নির্গত হয়, সে সময়।

যদিও আবহাওয়া সংক্রান্ত প্রভাবগুলি ভাইরাসের সংক্রমণে প্রকৃতঅর্থে কতটা কার্যকরী, তা এখনও অস্পষ্ট। তবে বায়ুর গুণমান খারাপ থাকার কারণে (দূষণ বেশি) কোভিডরোগীর মৃত্য়ুর হার বেড়েছে বলে প্রাথমিক প্রমাণ মিলেছে। কিন্তু বায়ু দূষণের ফলে সারস-কোভ-২-এর সংক্রমণ সরাসরি প্রভাবিত হয়, সেটা বলা যাচ্ছে না।

আরও পড়তে পারেন: সংক্রমণ পেরোল ৩৫ হাজারের গণ্ডি, দৈনিক মৃত্যুর হার মাত্র ০.৪৭ শতাংশ

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন