Connect with us

বিজ্ঞান

ফিরে দেখা ২০১৯ : মহাকাশ

Published

on

স্টার

ওযেবডেস্ক: ২০১৯ ঘিরে অনেক ঘটনাই তো ঘটে গিয়েছে। তা স্মৃতি হয়ে রয়ে যাবে ২০২০-র দিনগুলিতে। তেমনই মহাকাশেও বহু কিছু আবিষ্কার হয়েছে ২০১৯ সালে, যা আগামী দিনে শুধু স্মৃতি নয়, আরও নতুন নতুন আবিষ্কারের পথকে প্রশস্ত করবে। তেমনই কয়েকটি আবিষ্কারে চোখ বুলিয়ে নেওয়া যাক।  

সোনা, প্ল্যাটিনামের উৎস সন্ধান –

Loading videos...

এই যে বহু মানুষ সোনা বা প্ল্যাটিনামের মতো বহু মূল্যবান ধাতু অঙ্গে ধারণ করে থাকেন, তার অর্থ হল একটি বিশাল মহাজাগতিক ঘটনার প্রমাণ বা স্মৃতি বহন করে বেড়াচ্ছেন তাঁরা। ২০১৯ সালেই দুই বিজ্ঞানী আবিষ্কার করলেন পৃথিবীর এই সোনা প্ল্যাটিনামের উৎসের মূলে রয়েছে দুই প্রাচীন নিউট্রন স্টারের সংঘর্ষ। গবেষকরা দেখেছেন যে, এই সংঘর্ষ হয়েছিল সৌরজগৎ গঠনের প্রায় ১০০০০ লক্ষ বছর আগে। এক হাজার আলোকবর্ষ দূরে অবস্থিত একটি একক নিউট্রনের সঙ্গে এই সংঘর্ষের ফলেই সম্ভবত মহাজাগতিক পরিবেশে লোহার চেয়েও ভারী উপাদান সরবরাহ হয়েছিল। তার মধ্যে ২৬টি প্রোটন রয়েছে। তার মধ্যে রয়েছে সৌরজগতের কুরিয়াম পরমাণুর প্রায় ৭০% এবং প্লুটোনিয়াম পরমাণুর ৪০%, আরও অনেক মিলিয়ন পাউন্ড সোনার এবং প্ল্যাটিনামের মতো মূল্যবান ধাতু। বিজ্ঞানীরা বলেছেন সামগ্রিকভাবে, এই একক প্রাচীন তারকা দুর্ঘটনাটি আমাদের সৌরজগতকে এর সমস্ত ভারী উপাদানগুলির প্রায় ০.৩% দিয়েছে।

বহির্বিশ্বের জীবের সন্ধান –

২০১৯ সালের সেপ্টেম্বর মাসে বিজ্ঞানীরা ঘোষণা করেন, সৌর জগতের বাইরে তাঁরা একটি বাসযোগ্য গ্রহের সন্ধান পেয়েছেন। সেই গ্রহে জলের সন্ধানও পেয়েছেন তাঁরা। এই গ্রহের নাম দিয়েছেন কে২ -১৮বি। তাঁদের কথায় এটি সুপার আর্থ। এটি লাল রঙের একটি নক্ষত্রকে প্রদক্ষিণ করে। পৃথিবী থেকে ১১০ আলোক বর্ষ দূরে অবস্থান করছে এটি। বিজ্ঞানীদের কথায় এটির আবহাওয়া, পরিবেশ, তাপমাত্রা ইত্যাদি সব কিছুই জলের অস্তিত্বকে সমর্থন করে। তাই এর ভূ-পৃষ্ঠে জল থাকলেও থাকতে পারে বলে মনে করছেন বিজ্ঞানীরা। তাই এটি মানুষের বসবাসের উপযোগী হতে পারে বলে মনে করছেন তাঁরা।

কৃষ্ণগহ্বর/ ব্ল্যাকহোল –

প্রথমবার মেসিয়ার ৮৭ গ্যালাক্সির মাঝে কৃষ্ণগহ্বর বা ব্ল্যাকহোলের ছবি প্রকাশ হয়েছে। ছবিটি ধরা পড়েছে ইভেন্ট হরাইজন টেলিস্কোপে। এটি একটি বিশাল গহ্বর। এটি পৃথিবী থেকে ৫ কোটি ৪০ লক্ষ আলোক বর্ষ দূরে অবস্থিত। এর আয়তন ৬.৫ বিলিয়ন সূর্যের আয়তনের সমান। এটি একটি ঘন কালো গর্ত, তার চারপাশে অত্যন্ত উজ্জ্বল আলোকবলয় রয়েছে।    

পৃথিবীর মতো দুই গ্রহ আবিষ্কার –

২০১৯ সালে জুন মাসে মহাকাশ বিজ্ঞানীরা সৌর জগতের বাইরে এক জোড়া গ্রহ আবিষ্কার করেন। তারা টিগার্ডেন’স স্টার নামের একটি নক্ষত্রকে খুব কাছ থেকে প্রদক্ষিণ করছে। এই নক্ষত্রটি পৃথিবী থেকে মাত্র ১২.৫ আলোকবর্ষ দূরে অবস্থিত। এই দুই গ্রহের নক্ষত্রটিকে প্রদক্ষিণ করতে সময় লাগে যথাক্রমে সাড়ে চার দিন ও ১১ দিন। কিন্তু তা সত্বেও সামগ্রিক পরিস্থিতি বিচার করে বিজ্ঞানীরা মনে করছেন, এই দুই গ্রহে ‘হ্যাবিটেবল জোন’ রয়েছে, সেখানে রয়েছে জলের অস্তিত্বও। কারণ নক্ষত্রটি খুবই নিঃষ্প্রভ।

তিন সূর্য –

নাসার এক্সোপ্ল্যানেট সার্ভে স্যাটেলাইট-এর সাহায্যে এই সৌর জগৎ-এর বাইরে একটি অদ্ভুত দৃশ্য ধরা পড়েছে। তাতে ধরা পড়েছে একটি ‘থ্রি স্টার সিস্টেম’। অর্থাৎ একই সৌর জগতে তিন সূর্যের রাজত্ব। এর ভূপৃষ্ঠের তাপমাত্রা ৩২০ ডিগ্রি ফারেনহাইট। এই জগৎটির নাম এলটিটি ১৪৪৫এবি। এটি পৃথিবী থেকে ২২.৫ আলোক বর্ষ দূরে অবস্থিত। বিজ্ঞানীরা মনে করছেন, এটি ভবিষ্যতের জন্য বাসযোগ্য হয়ে উঠতে পারে। তার অন্যতম কারণ এর অবস্থান ও প্রকৃতি।  

ফিরে দেখা ২০১৯: বলিউডি হিসেবনিকেশ

ছবি ও সূত্র – ইন্টারনেট

বিজ্ঞান

অবাক কাণ্ড! বিশ্বের এই জায়গাগুলিতে সূর্য কখনো অস্ত যায় না!

পৃথিবীতে এমন কিছু দেশ রয়েছে, যেখানে নির্দিষ্ট সময়কালে সূর্য কখনোই অস্ত যায় না!

Published

on

যেখানে সূর্য অস্ত যায় না। ছবি: ফোর্বস-এর সৌজন্যে

খবর অনলাইন ডেস্ক: বিজ্ঞান বলে, সূর্যের চার দিকে ঘুরছে পৃথিবী। যে কারণে ২৪ ঘণ্টার একটা পূর্ণাঙ্গ দিনের ১২ ঘণ্টা দিন আর ১২ ঘণ্টা রাত। এ রকম মহাজাগতিক কর্মকাণ্ডে আমরা অনেকটাই স্বস্তি পাই। তবে এমন কয়েকটি জায়গা রয়েছে, যেখানে কোনো রকমের বিরতি ছাড়াই ২৪ ঘণ্টা সূর্যের আলো অনুভব করা যায়।

সূর্য যদি কখনোই অস্ত না যায়, তা হলে সে বিষয়টিকে অভিহিত করা হয় ‘দ্য মিডনাইট সান’ নামে। এই প্রাকৃতিক ঘটনাটি উত্তর মেরু এবং অ্যান্টার্কটিক বৃত্তের দক্ষিণে স্থানীয় গ্রীষ্মের মাসগুলিতে ঘটে। পোলার নাইট নামে বিপরীত ঘটনাটি ঘটে, যখন সূর্য শীতকালে দিগন্তের নীচে থেকে যায়।

Loading videos...

সূর্য যেখানে অস্ত যায় না

১. নরওয়ে

নরওয়ে মধ্যরাতের সূর্যের দেশ হিসাবে পরিচিত। নরওয়ের অধিক উচ্চতার কারণে, দিনের আলো থাকার সময়টি ঋতুভেদে বিস্তর ফারাক সৃষ্টি করে। এই দেশে মে মাসের শেষ থেকে জুলাইয়ের শেষের দিকে প্রায় ৭৬ দিনের জন্য, সূর্য প্রায় ২০ ঘণ্টার জন্য কখনোই অস্ত যায় না।

২. ফিনল্যান্ড

এই দেশের বেশিরভাগ অঞ্চলে গ্রীষ্মকালে টানা ৭৩ ঘণ্টা সরাসরি সূর্যকে জ্বলজ্বল করতে দেখা যায়। এ দেশের নাগরিকরা শীতের সময় সূর্যের আলো অনুভব করেন না। মধ্যরাতের সূর্যটি আর্কটিক বৃত্তের উপরে উজ্জ্বল হয় তবে এখানে সূর্য সংক্ষিপ্ত ভাবে দিগন্তের বাইরে চলে যায় এবং আবার উত্থিত হয়। যার ফলে শেষ রাত এবং ভোরের মধ্যে সীমারেখা ঝাপসা হয়ে যায়।

৩. সুইডেন

মে মাসের প্রথম থেকে আগস্টের শেষের দিকে সূর্য মধ্যরাতের আশেপাশে ডুবে যায় এবং ভোর ৪টে নাগাদ আবার ওঠে। এই দেশে স্থায়ী ভাবে সূর্যের আলোর সময়কাল এক বছরের মধ্যে ছ’মাস পর্যন্ত স্থায়ী হয়।

৪. আলাস্কা

মে মাসের শেষ থেকে জুলাইয়ের শেষের দিকে আলাস্কায় সূর্য অস্ত যায় না। ফেয়ারব্যাঙ্কস, আলাস্কা আর্কটিক সার্কেলের দক্ষিণে যেখানে গ্রীষ্মের সময় নিরক্ষরেখা থেকে সূর্যের দূরতম স্থানে অবস্থানকালে বেলা সাড়ে ১২টায় সূর্য অস্ত যায়। কারণ ফেয়ারব্যাঙ্কসটি আদর্শ সময় মানের অঞ্চল থেকে ৫১ মিনিট এগিয়ে।

৫. আইসল্যান্ড

সূর্য কখনোই পুরোপুরি ভাবে অস্ত যায় না। রাতের বেলাতেও দিগন্ত জুড়ে অনুভূত হয়। ইউরোপের দ্বিতীয় বৃহত্তম দ্বীপ মে মাসের প্রথম থেকে জুলাই পর্যন্ত অন্ধকার দেখতে পায় না। কারণ সূর্য সব সময় দিগন্তের উপরে থাকে। মেরু অঞ্চলে গ্রীষ্মের সময়, মধ্যরাতে সূর্য অস্ত যায় এবং ভোর ৩টের সময় ফের উঠে আসে।

৬. কানাডা

কানাডার ইনুভিক এবং উত্তর-পশ্চিম অঞ্চলগুলির মতো কিছু জায়গায় গ্রীষ্মে প্রায় ৫০ দিনের জন্য অবিরাম সূর্যের আলো দেখা যায়। দেশটি সারা বছরই তুষারে ঢাকা থাকে।

তথ্যসূত্র: ইন্ডিয়া টুডে

Continue Reading

বিজ্ঞান

দ্বিতীয় বার কোভিডে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে তরুণদের, দাবি ল্যানসেটের নয়া রিপোর্টে

তিন হাজার জন অংশগ্রহণকারীকে নিয়ে গবেষণা। কী তথ্য উঠে এল?

Published

on

খবর অনলাইন ডেস্ক: প্রথম বার করোনা সংক্রমিত হয়ে সুস্থ হয়ে ওঠার পরেও ফের আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে তরুণদের। দ্য ল্যানসেট রেসপিরেটরি মেডিসিন জার্নালে প্রকাশিত একটি পর্যবেক্ষণ গবেষণায় এমনটাই বলা হয়েছে।

রিপোর্টটিতে বলা হয়েছে, প্রথম বার কোভিডে আক্রান্ত হয়ে সুস্থ হয়ে উঠলেও তা তরুণদের পুনরায় সংক্রমণ থেকে সম্পূর্ণ ভাবে রক্ষা করে না। ফলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে এবং রোগের সংক্রমণ কমাতে তাদের টিকা দেওয়ার দরকার রয়েছে।

Loading videos...

এই গবেষণা চালানোর জন্য ইউএস মেরিন কর্পস-এর প্রায় তিন হাজারেরও বেশি স্বাস্থ্যবান সদস্যকে বেছে নেওয়া হয়। যাঁদের বেশির ভাগের বয়স ১৮-২০ বছরের মধ্যে। এর পরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে সিনাই পর্বতের আইকাহন স্কুল অব মেডিসিনের গবেষকরা জোরের সঙ্গে দাবি করেছেন, তরুণদের যত দ্রুত সম্ভব টিকা নেওয়া উচিত।

গবেষকরা লক্ষ্য করেছেন যে, আগেপ সংক্রমণ এবং অ্যান্টিবডিগুলির উপস্থিতি সত্ত্বেও, প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে এবং পুনরায় সংক্রমণ রোধ করতে বা কমাতে টিকা দেওয়ার প্রয়োজন রয়েছে। গবেষণার নেতৃত্বে থাকা আইসাহন স্কুল অব মেডিসিনের অধ্যাপক স্টুয়ার্ট সিলফন বলেছেন, “কম বয়সিরা দ্বিতীয় বার কোভিডে আক্রান্ত হতে পারেন। পাশাপাশি অন্যদের মধ্যেও তা ছড়িয়ে দিতে পারেন”।

তাঁর কথায়, “অতীতের সংক্রমণের মাধ্যমে অনাক্রম্যতা নিশ্চিত করা যায় না এবং যাঁদের কোভিড -১৯ হয়েছে, তাঁদের অতিরিক্ত সুরক্ষার জন্য টিকা নেওয়া প্রয়োজন”।

২০২০ সালের মে এবং নভেম্বর মাসের মধ্যে পরিচালিত এই গবেষণায় দেখা গিয়েছে, এক বার সংক্রমিত ১৮৯ জন অংশগ্রহণকারীর মধ্যে ১৯ জন পুনরায় কোভিডে আক্রান্ত হয়েছিলেন। যদিও গবেষণাটি অল্প বয়স্ক, স্বাস্থ্যবান এবং বেশির ভাগই পুরুষের মধ্যে সীমাবদ্ধ ছিল, গবেষকরা মনে করেন, তাঁদের গবেষণায় পাওয়া মূল্যায়ন বড়ো অংশের তরুণদের জন্য প্রযোজ্য।

ওই গবেষণায় বেশ কিছু সীমাবদ্ধতা অবশ্যই ছিল। তবুও বিভিন্ন বিভাগের মধ্যে সংক্রমণের হার, উপসর্গ ইত্যাদি বিষয়গুলির বিশ্লেষণ করে গবেষকরা উপসংহারে জানিয়েছেন, প্রথম বার আক্রান্তদের মধ্যে পুনরায় সংক্রমিত হওয়ার ঝুঁকি হ্রাসের মূল কারণ শরীরে অ্যান্টিবডি তৈরি হওয়া। কিন্তু ওই নির্দিষ্ট বয়সি অংশগ্রহণকারীদের এক বার আক্রান্ত হওয়ার পর তৈরি অ্যান্টিবডি দ্বিতীয় বার সংক্রমণ আটকানোর জন্য পর্যাপ্ত নয়।

আরও পড়তে পারেন: Corona Update: সংক্রমণ, সুস্থতা এবং মৃত্যুর সংখ্যায় ফের রেকর্ড, তবে কিছু রাজ্যে সংক্রমণে লাগাম পড়ার ইঙ্গিত

Continue Reading

প্রবন্ধ

First Man In Space: ইউরি গাগারিনের মহাকাশ বিজয়ের ৬০ বছর আজ, জেনে নিন কিছু আকর্ষণীয় তথ্য

আজ থেকে ঠিক ৬০ বছর আগে ১৯৬১-এর ১২ এপ্রিল মহাকাশে হিয়েছিলেন গাগারিন।

Published

on

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ‘মানুষ চূর্ণিল আজ নিজ মর্ত্যসীমা’ – ১৩ এপ্রিল, ১৯৬১। আনন্দবাজার পত্রিকার প্রথম পাতায় আট কলম জুড়ে ব্যানার হেডিং। মানুষ বিস্মিত, হতচকিত – মহাকাশে পৌঁছে গিয়েছে মানুষ?

তখনকার দিনে ঘরে ঘরে সংবাদ পৌঁছে দেওয়ার সব চেয়ে জনপ্রিয় মাধ্যম ছিল সংবাদপত্র। রেডিও ছিল, তবে তা ঘরে ঘরে ছিল না। আর টিভি তো ক’টা দেশে ছিল, তা হাতে গোনা যায়। তাই সংবাদপত্রই মূলত পৌঁছে দিল সেই খবর।

Loading videos...

বিশ্বের বিভিন্ন দেশের বিভিন্ন ভাষার প্রত্যেকটি কাগজে সে দিন প্রথম পাতার খবর – মানুষের মহাকাশ জয়। মানব-ইতিহাসে সব চেয়ে স্মরণীয় ঘটনা।

দিনটা ছিল ১২ এপ্রিল, ১৯৬১। সোভিয়েত নভশ্চর ইউরি গাগারিন মহাকাশযান ভস্তক ১-এ চেপে মর্ত্যের আকাশসীমা লঙ্ঘন করে পৌঁছে গেলেন মহাকাশে। মহাকাশজয়ী প্রথম মানব হিসাবে স্মরণীয় হয়ে থাকলেন গাগারিন।

যুদ্ধবিমানের বিমানের পাইলট গাগারিন মহাকাশে ছিলেন ১ ঘণ্টা ৪৮ মিনিট। তাঁর মহাকাশযান উৎক্ষেপণ করা হয়েছিল অধুনা কাজাখস্তানের বৈকনুর কসমোড্রোম থেকে। পশ্চিম রাশিয়ার সিটি অফ এঞ্জেলস-এর কাছে গাগারিনের মহাকাশযান পৃথিবীর কক্ষপথে প্রবেশ করে। মহাকাশযান থেকে প্যারাশ্যুটে লাফিয়ে পড়েন গাগারিন, নিরাপদে পৌঁছে যান ভূপৃষ্ঠে।

৬০ বছর আগে গাগারিনের সেই মহাকাশ-অভিযান মহাকাশবিজ্ঞান নিয়ে মানুষের গবেষণায় নতুন দিগন্ত খুলে দিল। এর পর থেকে মানুষ মহাকাশ নিয়ে কী করল, সে সব আজ আর কোনো অজানা তথ্য নয়।

ভস্তক ১ মিশন নিয়ে কিছু আকর্ষণীয় তথ্য

(১) বৈকানুর কসমোড্রোম থেকে যে মুহূর্তে ভস্তক ১ যাত্রা শুরু করেছিল, সেই মুহূর্তে গাগারিনের মুখ থেকে একটা শব্দ বেরিয়ে এসেছিল – “পোয়েখালি!” (যাওয়া যাক)।

(২) যে ভাবে পরিকল্পনা করা হয়েছিল, ঠিক সেই ভাবে চালিত হয়নি মিশন। যে উচ্চতায় কক্ষপথে ভস্তক ১-এর প্রবেশ করার কথা ছিল, তার চেয়ে বেশি উচ্চতায় প্রবেশ করেছিল। এর অর্থ মহাকাশযানটির ব্রেক ফেল করতে পারত। তা হলে আরও বেশি ক্ষণ গাগারিনকে মহাকাশে থাকতে হত। তবে তা হয়নি। ব্রেক ভালো ভাবেই কাজ করেছে এবং ফেরার সময় গাগারিন পরিকল্পনামাফিকই পৃথিবীর কক্ষপথে প্রবেশ করেছেন।

(৩) জানা যায়, ভূপৃষ্ঠ ছোঁয়ার সঙ্গে সঙ্গে গাগারিনকে প্রথম দেখেছিলেন এক কৃষক ও তাঁর কন্যা। সেই সময়টা ছিল ঠান্ডা যুদ্ধের। গাগারিনকে তাঁরা মার্কিন গুপ্তচর মনে করেছিলেন। তাঁদের বোঝাতে যথেষ্ট বেগ পেতে হয়েছিল গাগারিনকে।

(৪) গোটা মিশনটা নিয়ে সোভিয়েত ইউনিয়ন চরম গোপনীয়তা অবলম্বন করেছিল। গাগারিন পৃথিবীতে নিরাপদে পৌঁছে যাওয়ার পরে ইউরি গাগারিনের এই অবিস্মরণীয় কৃতিত্বের খবর প্রকাশ করা হয়। সারা বিশ্ব যেন একটা ধাক্কা খায়, বিশ্বাস করে উঠতে পারে না ঘটনাটা – মনে মনে ভাবে, এমনও হয়!

(৫) গাগারিনের মহাকাশ-বিজয় উপলক্ষ্যে উৎসব-সমারোহের আয়োজন করা হয় সেন্ট পিটার্সবার্গে। হাজার হাজার লোক তাতে যোগ দেন। অসংখ্য মডেল রকেট আকাশে ছোড়া হয়। সেই সঙ্গে চলে আতসবাজির নানা খেলা।

Continue Reading
Advertisement
Advertisement
দেশ17 mins ago

ভোট পরবর্তী হিংসার তদন্তে রাজ্যে আসছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের গড়া চার সদস্যের দল

দেশ2 hours ago

Coronavirus Second Wave: প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা আরএলডি নেতা অজিত সিংহ প্রয়াত

দেশ2 hours ago

Corona Update: দু’তিনটে রাজ্যে সংক্রমণবৃদ্ধির জের, ভারতের দৈনিক সংক্রমণ ভেঙে দিল অতীতের রেকর্ড

Coronavirus Delhi
দেশ3 hours ago

Coronavirus Second Wave: আশার আলো, দিল্লি-সহ একাধিক রাজ্যে সংক্রমণের হার কমছে

কোচবিহার4 hours ago

Sitalkuchi Incident: কোচবিহারের সেই পুলিশ সুপারকে সরিয়ে দিল রাজ্য

Covid situation kolkata
দেশ4 hours ago

Bengal Corona Update: ১.৩ শতাংশেরও কম, মৃত্যুহারের নিরিখে দশম স্থানে নামল পশ্চিমবঙ্গ

দেশ4 hours ago

Coronavirus Second Wave: তৃতীয় ঢেউ আসবেই, সাফ কথা কেন্দ্রের

পরিবেশ11 hours ago

২০ বছরে বাংলাদেশের সুন্দরবনে ২৫ বার আগুন, পুড়ে গেছে প্রায় ৮১ একর বনভূমি

ক্রিকেট3 days ago

Covid Crisis in IPL: বরুণ-সহ দুই ক্রিকেটার কোভিড পজিটিভ, সোমবারের ম্যাচ স্থগিত

শিক্ষা ও কেরিয়ার3 days ago

NEET 2021: কোভিডের কারণে চার মাস স্থগিত নিট পিজি ২০২১ পরীক্ষা

yogi adityanath
দেশ2 days ago

UP Panchayat Polls: বারাণসী, অযোধ্যা, মথুরায় ধরাশায়ী বিজেপি

রাজ্য1 day ago

Oath Ceremony: তৃতীয় বারের জন্য মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

ক্রিকেট1 day ago

Corona Crisis In IPL: জৈব বলয় ভেদ করে কী ভাবে ঢুকল করোনা, উঠে এল একাধিক কারণ

শিক্ষা ও কেরিয়ার2 days ago

JEE Main 2021: মে মাসের জয়েন্ট এন্ট্রাস (মেইন‌) ২০২১ পরীক্ষা স্থগিত, জানালেন শিক্ষামন্ত্রী

election commission of india
রাজ্য2 days ago

নন্দীগ্রামের সেই রিটার্নিং অফিসারের বাড়তি নিরাপত্তা

রাজ্য2 days ago

Bengal Corona Update: ঊর্ধ্বমুখী দৈনিক সংক্রমণ, তাল মিলিয়ে বাড়ছে সুস্থতাও

ভিডিও

কেনাকাটা

কেনাকাটা2 months ago

বাজেট কম? তা হলে ৮ হাজার টাকার নীচে এই ৫টি স্মার্টফোন দেখতে পারেন

আট হাজার টাকার মধ্যেই দেখে নিতে পারেন দুর্দান্ত কিছু ফিচারের স্মার্টফোনগুলি।

কেনাকাটা3 months ago

সরস্বতী পুজোর পোশাক, ছোটোদের জন্য কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সরস্বতী পুজোয় প্রায় সব ছোটো ছেলেমেয়েই হলুদ লাল ও অন্যান্য রঙের শাড়ি, পাঞ্জাবিতে সেজে ওঠে। তাই ছোটোদের জন্য...

কেনাকাটা3 months ago

সরস্বতী পুজো স্পেশাল হলুদ শাড়ির নতুন কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সামনেই সরস্বতী পুজো। এই দিন বয়স নির্বিশেষে সবাই হলুদ রঙের পোশাকের প্রতি বেশি আকর্ষিত হয়। তাই হলুদ রঙের...

কেনাকাটা3 months ago

বাসন্তী রঙের পোশাক খুঁজছেন?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সামনেই আসছে সরস্বতী পুজো। সেই দিন হলুদ বা বাসন্তী রঙের পোশাক পরার একটা চল রয়েছে অনেকের মধ্যেই। ওই...

কেনাকাটা3 months ago

ঘরদোরের মেকওভার করতে চান? এগুলি খুবই উপযুক্ত

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ঘরদোর সব একঘেয়ে লাগছে? মেকওভার করুন সাধ্যের মধ্যে। নাগালের মধ্যে থাকা কয়েকটি আইটেম রইল অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদন লেখার...

কেনাকাটা3 months ago

সিলিকন প্রোডাক্ট রোজের ব্যবহারের জন্য খুবই সুবিধেজনক

খবরঅনলাইন ডেস্ক: নিত্যপ্রয়োজনীয় বিভিন্ন সামগ্রী এখন সিলিকনের। এগুলির ব্যবহার যেমন সুবিধের তেমনই পরিষ্কার করাও সহজ। তেমনই কয়েকটি কাজের সামগ্রীর খোঁজ...

কেনাকাটা3 months ago

আরও কয়েকটি ব্র্যান্ডেড মেকআপ সামগ্রী ৯৯ টাকার মধ্যে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: আজ রইল আরও কয়েকটি ব্র্যান্ডেড মেকআপ সামগ্রী ৯৯ টাকার মধ্যে অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদন লেখার সময় যে দাম ছিল...

কেনাকাটা3 months ago

রান্নাঘরের এই সামগ্রীগুলি কি আপনার সংগ্রহে আছে?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রান্নাঘরে বাসনপত্রের এমন অনেক সুবিধেজনক কালেকশন আছে যেগুলি থাকলে কাজ অনেক সহজ হয়ে যেতে পারে। এমনকি দেখতেও সুন্দর।...

কেনাকাটা4 months ago

৫০% পর্যন্ত ছাড় রয়েছে এই প্যান্ট্রি আইটেমগুলিতে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: দৈনন্দিন জীবনের নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসগুলির মধ্যে বেশ কিছু এখন পাওয়া যাচ্ছে প্রায় ৫০% বা তার বেশি ছাড়ে। তার মধ্যে...

কেনাকাটা4 months ago

ঘরের জন্য কয়েকটি খুবই প্রয়োজনীয় সামগ্রী

খবরঅনলাইন ডেস্ক: নিত্যদিনের প্রয়োজনীয় ও সুবিধাজনক বেশ কয়েকটি সামগ্রীর খোঁজ রইল অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদনটি লেখার সময় যে দাম ছিল তা-ই...

নজরে