facebook

ওয়েবডেস্ক: এক দিকে হু-হু করে অভিযোগ বাড়ছে ফেসবুকের বিরুদ্ধে। অন্য দিকে তা সামাল দিতে ইউজারের মনোরঞ্জনের চেষ্টায় ব্যস্ত সংস্থা। তারই ফলাফল হিসাবে এবার ফেসবুকের তরফে এল দুই নয়া ফিচার। নামে আলাদা হলেও দুই ফিচারই আদতে বাঁধ বসাচ্ছে জনপ্রিয় এই সোশ্যাল মিডিয়ায় অবাধ বিচরণে।

আগে আসা যাক প্রথমটার কথায়। ফেসবুক তাদের এই ফিচারের নাম দিয়েছে ‘স্নুজ’। নামটা শুনেই অ্যালার্ম ঘড়ির কথা মনে পড়ছে কি? ব্যাপারটা কিন্তু অনেকটা সেরকমই!

facebook

আসলে সারা বিশ্ব জুড়ে চলা এক সমীক্ষায় মারাত্মক এক অভিযোগ এসেছে ফেসবুকের নামে। তা যেন অনেকটা পরোক্ষ ধূমপানের মতো! মানে, অন্যের সুখটানের ধোঁয়া যেমন নাকে-মুখে ঢুকে শরীরের বারোটা বাজায়, তেমনই অন্যের অবাঞ্ছিত পোস্টও ক্ষতি করে ইউজারের মনের। সমীক্ষা বলছে, ফেসবুক খুলেই এই যে অনেক অবাঞ্ছিত পোস্ট দেখতে হয়, তা ভয়ানক চাপ ফেলে মনের উপরে। কখনও ঈর্ষা, কখনও হীনম্মন্যতা- সব মিলিয়ে যার জের কখনও কখনও আত্মহত্যা পর্যন্ত যায়।

facebookএই অভিযোগ একেবারে অমূলক বলে উড়িয়ে দেয়নি সংস্থা। তা শিরোধার্য করেই বরং নিয়ে এল এই নয়া ‘স্নুজ’ ফিচার। এর ব্যবহারে কোনো বন্ধুকে, পেজকে বা গ্রুপকে আটকে রাখা যাবে। মানে, যা বা যাঁকে ‘স্নুজ’ করতে চাইছেন, তার প্রোফাইলে যেতে হবে। চোখে পড়বে ‘স্নুজ’ বোতামটা। ঠিক যেমন দেখতে পাচ্ছেন ছবিতে। এর পর সেই বোতামে ক্লিক করলেই সেই পেজ বা গ্রুপ বা ব্যক্তিটির ফিড আর আপনার পেজে আসবে না। যদিও এই সুবিধা বরাবরের জন্য নয়। মাত্র ৩০ দিনের জন্যই এই সুবিধা পাওয়া যাবে। প্রয়োজন হলে আবার ‘স্নুজ’ করার সুবিধা থাকছে অবশ্য।

facebook

আর এই অন্যকে আটকানোর জায়গা থেকেই ফেসবুকে এসেছে ‘টেক আ ব্রেক’ ফিচার। হৃদয় ভেঙেছে যাঁদের, তাঁদের জন্যই এই বিশেষ ফিচারের বন্দোবস্ত। আসলে সম্পর্ক ভাঙলেও প্রাক্তনের খবর তো কানাঘুষোয় পৌঁছতেই থাকে কানে। যা মন খারাপ করে দেওয়ার পক্ষে যথেষ্ট! এর উপর আবার রয়েছে ফেসবুক পোস্ট। ফেসবুকে ব্লক করে না দিলে প্রাক্তনের নানা পোস্ট আসতেই থাকে ওয়ালে। যা বিচ্ছেদ পরবর্তী মুহূর্তকে করতে তোলে জটিল থেকে জটিলতর!

facebook

ইউজারকে সেই যন্ত্রণা থেকে মুক্তি দিতেই এবার এল ‘টেক আ ব্রেক’। এর জন্য ‘এডিট’ অপশনে গিয়ে প্রথমে বেছে নিতে হবে প্রাক্তনকে। তার পর ‘টেক আ ব্রেক’ ক্লিক করলেই হল। এই ফিচার আবার বেশ বাছাবাছির সুবিধাও দিচ্ছে ইউজারকে। মানে, প্রাক্তনের পোস্টের কতটুকু ইউজারের ওয়ালে আসবে, ইউজারের কতটুকুই বা প্রাক্তন দেখতে পাবেন- বেছে নেওয়া যাবে হিসেব করে। বলা তো যায় না, ভাঙা সম্পর্ক পরে আবার জোড়া লাগতেও পারে! সেই জন্যই একেবারে মুছে না দিয়ে এহেন ব্যবস্থা!

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here