মাত্র ৫ মিনিটেই হাতে মিলবে করোনাভাইরাস পরীক্ষার ফলাফল!

চিকাগো: মাত্র পাঁচ মিনিটের পয়েন্ট অব কেয়ার করোনাভাইরাস টেস্ট কিট আগামী সপ্তাহেই আমেরিকার ক্লিনিকগুলিতে আসতে চলেছে বলে দাবি করল অ্য়াবট ল্যাবস। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, করোনাভাইরাস মহামারী রুখতে এটা একটা “গেম-চেঞ্জিং” ঘটনা হয়ে উঠতে পারে।

মার্কিন ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (FDA) শুক্রবার অ্যাবটের তৈরি ওই টেস্ট কিট ব্যবহারের জরুরি অনুমোদন করে বলে জানা যায়। ইলিনয়-ভিত্তিক মেডিক‌্যাল ডিভাইস নির্মাতা অ্যাবট ল্যাবরেটরিজের ওই টেস্ট কিটের মাধ্যমে নমুনা পরীক্ষায় মাত্র পাঁচ মিনিটের মধ্যে পজিটিভ এবং ১৩ মিনিটের মধ্যে নেগেটিভ ফলাফল জানা যাবে বলে দাবি করেছে সংস্থাটি।

একই সঙ্গে অ্যাবট দাবি করেছে, আগামী সপ্তাহে এই টেস্ট কিট বাজারে পাওয়া যাবে বলে তারা আশা করছে। প্রতিদিন গড়ে ৫০,০০০ টেস্ট কিট তৈরি করার কথা জানিয়েছে সংস্থা। এমনিতে আমেরিকায় কোভিড-১৯ আক্রান্তের সংখ্যা লক্ষ ছাড়িয়ে গিয়েছে। ফলে দেশের যে সমস্ত জায়গায় আক্রান্তের সংখ্যা বেশি, প্রথমে সেখানেই বেশি করে নতুন ওই টেস্ট কিটের জোগান দেওয়া হবে।

প্রতীকী ছবি

সংস্থা ব্যাখ্যা দিয়েছে, করোনাভাইরাস সংক্রামিতের দেহে ওই মারণ ভাইরাসটির জিনোমের খণ্ডাংশের মাত্রা অতিরিক্ত বেশি পরিমাণে থাকলেই মাত্র পাঁচ মিনিটের মধ্যে তার উপস্থিতি ধরতে পারবে টেস্ট কিট।

অন্য দিকে সংক্রমণ যদি না হয়. তা হলে সময় একটু বেশি লাগবে। সে ক্ষেত্রে বিষয়টি নিশ্চিত করতে ১৩ মিনিট সময় লাগবে। তবে এই কিটের মাধ্যমে নমুনা পরীক্ষা যে তুলনামূলক ভাবে অনেক কম সময়েই সম্ভব, সেটাই দাবি করেছে সংস্থা। এমনটাও বলা হয়েছে, রোগী ক্লিনিকে বসে থাকা অবস্থাতেই ফলাফল হাতে তুলে দেওয়া সম্ভব হবে।

এফডিএ কমিশনার স্টিভ হান একটি বিবৃতিতে বলেছেন, “গতকাল এফডিএ অ্যাবটের পয়েন্ট অব কেয়ার টেস্ট কিটের অনুমতি দিয়েছে বলে আমি সন্তুষ্ট। এটা একটা বড়ো খবর। করোনাভাইরাস (Coronavirus) সংক্রমণের পরীক্ষাগুলির আরও দ্রুত ফলাফল জানিয়ে দিতে সহায়তা করবে”। একই সঙ্গে তিনি বলেন, “আমরা জানি বর্তমান পরিস্থিতিতে এই পয়েন্ট অব কেয়ার টেস্ট কিট কতটা গুরুত্বপূর্ণ। নমুনা পরীক্ষার ফলাফল দ্রুত প্রকাশ করতে পারলে কোভিড -১৯ ((Covid-19) নির্ধারণের ক্ষেত্রে এই প্রযুক্তিগত উদ্ভাবন গেম চেঞ্জার হতে পারে”।

আরও পড়ুন: করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবে আমেরিকা-ইউরোপের ‘বড়ো ভুল’ ধরলেন চিনা বিজ্ঞানী জর্জ গাও

এ ব্যাপারে অ্যাবটের গবেষণা এবং উন্নয়ন বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত আধিকারিক জন ফ্রেলস জানিয়েছেন, “আগামী সপ্তাহ থেকেই টেস্ট কিট পৌঁছানোর কাজ শুরু হয়ে যাবে। এই পরীক্ষা পদ্ধতিতে ক্লিনিকে অপেক্ষা করা অবস্থাতেই ফলাফল হাতে চলে আসবে। এটা আসলে আরও একধাপ এগিয়ে যাওয়া”।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.