চন্দ্রযান ২: ‘বিক্রম’কে নিয়ে নিরাশার মাঝেই সুখবর শোনাল ইসরো

0
chandrayaan 2 orbiter
ফাইল ছবি

ওয়েবডেস্ক: শনিবার থেকেই চাঁদের মাটিতে নেমে এসেছে গভীর রাত। সেখানে উষ্ণতা প্রায় -১৮০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নীচে। স্বাভাবিক ভাবেই চন্দ্রযান ২-এর ল্যান্ডার বিক্রমের সঙ্গে যোগাযোগের পথ রুদ্ধ হয়ে গেল। এরই মাঝে সুখবর শোনালেন ইসরো চেয়ারম্যান কে সিবন।

গত ৭ সেপ্টেম্বরের মধ্যরাতে ভারতের দ্বিতীয় চন্দ্র মিশনের ল্যান্ডার বিক্রমের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। প্রায় শেষ মুহূর্তে চন্দ্রপৃষ্ঠ থেকে মাত্র ২.১ কিমি দূরে বিক্রমের সঙ্গে যোগাযোগ বিছিন্ন হয়ে যায় ইসরোর। যদিও চন্দ্রযান ২-র অরবিটারের কোনো রকমের ক্ষেত্রে কোনো রকমের ত্রুটি দেখা দেয়নি। সেটি সম্পূর্ণ কর্মক্ষম অবস্থায় রয়েছে বলে আগেই জানিয়েছে ইসরো।

আরও পড়ুন: ২০২১-এর ডিসেম্বরের মধ্যেই মহাকাশে দৃষ্টান্ত গড়তে চলেছে ইসরো

ইসরোর হিসাব অনুযায়ী, মাত্র ১৪ দিনের আয়ু ছিল বিক্রমের। এর পরই চাঁদে নেমে আসা শীতল পরিবেশে তাঁর পক্ষে সক্রিয় থাকা প্রায় অসাধ্য বলেই মনে করে ভারতীয় মহাকাশ গবেষণাকারী সংস্থা।

বিক্রমের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপনের একাধিক প্রচেষ্টা জারি রেখেছিল আমেরিকার মহাকাশ গবেষণাকারী সংস্থা নাসা। তাঁরা নিজেদের জেট প্রোপালসন ল্যাবরেটরি (জেপিএল) রেডিয়ো ফ্রিকুয়েন্সির মাধ্যমে বিক্রমের সঙ্গে যোগাযোগে চেষ্টা চালানো হয়। নাসা জানিয়েছিল, ডিপ স্পেস নেটওয়ার্কের মাধ্যমে ল্যান্ডার বিক্রমকে ‘হ্যালো’ মেসেজ পাঠানো হয়। কিন্তু তার কোনো প্রত্যুত্তর মেলেনি।

নাসার গ্রহ বিজ্ঞান বিভাগের পাবলিক অ্যাফেয়ার্স অফিসার জোশুয়া ই-মেল মারফত গত বুধবার জানান, বিক্রমের অবতরণের জায়গার পাশ দিয়ে গত মঙ্গলবার গিয়েছে লুনার রিকনোসান্স অরবিটার ক্যামেরা (এলআরওসি)।

লক্ষ্যবস্তু হিসাবে নির্ধারিত বিক্রমের অবতরণের জায়গার আশেপাশের ছবিগুলি সংগ্রহ করেছে এলআরওসি, তবে ল্যান্ডারের কোনো ছবি সেখানে ধরা পড়েনি। হয়তো বা সঠিক অবস্থানটি জানা যায়নি বলেই বিক্রমের ছবি ক্যামেরার দৃষ্টিতে ধরা পড়েনি।

এর মধ্যে সিবন জানান, “বিক্রমের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করা সম্ভব না হলেও একটি সুখবর রয়েছে। চন্দ্রযান ২-এর অরবিটার খুব ভাল কাজ করছে। অরবিটারে রয়েছে ৮টি ইনস্ট্রুমেন্ট, যেগুলির প্রত্যেকটাই সঠিক ভাবে কাজ করছে”।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here