ক্যালিফোর্নিয়া: ২০০৮ সালে বিশ্বের চতুর্থ দেশ হিসেবে চাঁদে নিজেদের মহাকাশযান পাঠিয়ে ইতিহাস গড়েছিল ভারত। যদিও কোনও মহাকাশচারী ছিলেন না তাতে। সব কিছু ভালোই চলছিল, নিয়মিত চাঁদ থেকে ছবি আর নানা তথ্য ভারতে পাঠাচ্ছিল চন্দ্রযান ১। হঠাৎই ২০০৯-এর আগস্টে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় চন্দ্রযান ১-এর সঙ্গে। দীর্ঘ আট বছর নিখোঁজ থাকার পর অবশেষে খোঁজ মিলল তার। এমনই দাবি করেছে মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা। 

গ্রাউন্ড রাডারের সাহায্যে নাসার বিজ্ঞানীরা খোঁজ পেলেন হারিয়ে যাওয়া চন্দ্রযান ১-এর। আয়তনে খুব ছোটো হওয়ায় চন্দ্রযান ১-এর খোঁজ পাওয়া বেশ কঠিন ছিল, জানিয়েছেন নাসার গবেষকরা। রাডার প্রযুক্তির সাহায্যে সাধারণত গ্রহাণুদের সন্ধান করা হয়। তবে চন্দ্রযানের অবস্থান পৃথিবী থেকে অনেকটাই দূরে, প্রায় চাঁদেরই কাছাকাছি। চাঁদের কিছু স্থানে মহাকর্ষের তারতম্যের ফলে চন্দ্রযানের কক্ষপথেও বেশ কিছু বিচ্যুতি ঘটেছে।

 

ভারতের মাটি থেকে চন্দ্রযান ১ যাত্রা শুরু করেছিল ২২ অক্টোবর, ২০০৮। সপ্তাহ দুয়েকের মধ্যেই পৌঁছে গিয়েছিল চাঁদের কক্ষপথে। অত্যাধুনিক যন্ত্রের সাহায্যে চাঁদের মাটির যে নমুনা সংগ্রহ করেছিল চন্দ্রযান, তাতে জলের চিহ্ন পাওয়া গিয়েছে। টানা ২ বছর চাঁদের কক্ষপথে ঘোরার কথা থাকলেও ৩১২ দিন পরই ভারতীয় বিজ্ঞানীদের সঙ্গে সব রকম যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় চন্দ্রযান ১-এর। 

চন্দ্রযান ২ (ভারতের দ্বিতীয় চন্দ্র অভিযান)-এর যাত্রা শুরুর পরিকল্পনা রয়েছে ২০১৮-র শেষদিকে। 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here