গাছে জল দেওয়ার স্বয়ংক্রিয় যন্ত্র আবিষ্কার করে তাক লাগিয়ে দিল অষ্টম শ্রেণির দুই পড়ুয়া

0
watering
প্রতীকী ছবি

সিঙ্গাপুর: এমন অনেকেই আছেন যাঁদের গাছ লাগানোর শখ, কিন্তু সময়ের অভাবে গাছে ঠিক মতো জল দেওয়া সম্ভব হয় না। সেই সব বৃক্ষপ্রিয় মানুষের জন্য সুখবর। তৈরি হয়েছে গাছে জল দেওয়ার স্বয়ংক্রিয় যন্ত্র। এই যন্ত্রের আবিষ্কার করেছে ভারতীয় বংশোদ্ভূত দুই পড়ুয়া।

সিঙ্গাপুরের প্রত্যুষ বনসল আর আকাশ সিংহগুলাটি। এরা গ্লোবাল ইন্ডিয়ান ইন্টার ন্যাশনাল স্কুলের অষ্টম শ্রেণির ছাত্র। এরাই আবিষ্কার করেছে এই কাজের যন্ত্রটি।

এরা দেখত, ছুটিতে কোথাও বেড়াতে গেলে গাছ জল পায় না। ফিরে আসার পর দেখা গিয়েছে হয় গাছ মরে গিয়েছে, না হয় নিস্তেজ হয়ে পড়েছে। তখন তাদের খুবই খারাপ লাগত। তাই কী ভাবে এই সমস্যার সমাধান করা যাবে সেই পথ খুঁজতে থাকে।

তার পরই একটি ভাবনা মাথায় আসে। তারা ভারতে তাদের দাদু-ঠাকুমার বাড়িতে সেই ভাবনাকে কাজে লাগায়। ভৌগলিক অবস্থানের পরিবর্তন হলেও তাদের যন্ত্রের কার্যকারিতায় বিশেষ কোনো পার্থক্য হয়নি।

বিজ্ঞানের আরও খবর পড়ুন  

প্রত্যুষ বলে, এতে একটি আর্দ্রতাবোধক সেন্সর, হাইগ্রোমিটার ডিটেক্টর ব্যবহার করা হয়েছে। এগুলিকে একটি দুই লিটার জলের ট্যাঙ্কের সঙ্গে যুক্ত করা হয়েছে। রয়েছে একটি জলের পাম্পমোটরও। তা ছাড়া এতে আছে একটি ব্যাটারি আর লিকুইড ক্রিস্টাল ডিসপ্লে।

ট্যাঙ্কটি ভরা থাকলে আর্দ্রতা নির্ণয়ক যন্ত্রটি ঠিক করে কখন জল প্রয়োজন। সেই সময় পাম্পটি ট্যাঙ্ক থেকে জল পাম্প করে টবে দেয়। প্রয়োজনে একাধিক নলের ব্যবস্থা থাকা প্রয়োজন একাধিক গাছের জন্য।

আরও পড়ুন – বিক্ষোভে উত্তাল যাদবপুর, রাতভর ঘেরাও সহ-উপাচার্য

গুলাটি বলেছে, এই যন্ত্রের সঙ্গে এ বার ওয়াইফাই যোগ করার চেষ্টা করছে তারা। এতে করে মোবাইলের সঙ্গে যুক্ত থাকবে যন্ত্র। প্রয়োজন মতো যন্ত্রটিকে চালনা করা যাবে। এর জন্য একটি অ্যাপেরও ব্যবস্থা থাকবে।

প্রসঙ্গত, আইআইটি খড়গপুরের ‘ইয়ং ইনভেন্টার প্রোগ্রাম’-এ এরা দু’জন তাদের আবিষ্কৃত যন্ত্র দেখানোর জন্য আমন্ত্রিত হয়েছে।

বাণিজ্যিক ভাবে এই যন্ত্রের দাম ধরা হয়েছে ৪৭০ টাকা।

উত্তর দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here