অবশেষে চন্দ্রযান ২-এর ল্যান্ডার বিক্রমের হদিশ দিল নাসা

0

ওয়েবডেস্ক চন্দ্রযান ২-এর ল্যান্ডার বিক্রমের হদিশ দিল আমেরিকার মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা। চাঁদের মাটিতে ইসরোর এই অভিযানের প্রায় আড়াই মাস পর অবশেষে হদিশ মিলল বিক্রমের। গত ৭ সেপ্টেম্বর চাঁদের মাটিতে ‘হার্ড ল্যান্ডিং’ করে বিক্রম ল্যান্ডার। কিন্তু চন্দ্রপৃষ্ঠ থেকে মাত্র কয়েক কিমি দূরেই তার সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা (ইসরো)-র। 

নাসা জানিয়েছে, তাদের চাঁদ প্রদক্ষিণকারী উপগ্রহ চন্দ্রায়ন ২-এর ল্যান্ডার, বিক্রমের ধ্বংসাবশেষের সন্ধান পেয়েছে। গত সেপ্টেম্বর মাসে চাঁদে সফট ল্যান্ড করার প্রচেষ্টার অল্প আগেই ল্যান্ডারটির সঙ্গে যোগাযোগ হারিয়েছিল। নাসা নিজের লুনার রিকনন্যাইসেন্স অরবিটার (এলআরও)-এর মাধ্যমে ক্লিক করা ছবিগুলি পোস্ট করেছে। ওই ছবিতে বিক্রমের আছড়ে পড়ার স্থান এবং সম্পর্কিত ধ্বংসাবশেষ পাওয়া গিয়েছে বলে দাবি করা হয়েছে।

একটি বিবৃতিতে নাসা জানিয়েছে, “মূল দুর্ঘটনা স্থলের প্রায় ৭৫০ মিটার উত্তর-পশ্চিমে অবস্থিত ধ্বংসাবশেষটি প্রথম শনাক্তকরণ করেন শন্মুগা সুব্রহ্মণ্যম”।

ওই বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “নাসার এলআরও ক্যামেরায় তোলা ছবিটি থেকে একটি অংশকে বিক্রমের ধ্বংসাবশেষ বলে দাবি করেন ভারতীয় কম্পিউটার প্রোগ্রামার ও পেশায় মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার শম্মুগা সুব্রহ্মণ্যম। এর পর এলআরসি টিম ছবিগুলির আগে এবং পরে তুলনা করে শনাক্তকরণটি নিশ্চিত করে। প্রভাবিত স্থানটিতে আলোর পরিমাণ এতটাই কম ছিল যে সহজে সেটিগুলি শনাক্তযোগ্য ছিল না। নাসার সর্বশেষ প্রকাশিত ছবিতে সেই জায়গাটিকে ‘এস’ বলে চিহ্নিত করা হয়েছে”।

মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা ওই ছবির আগে এবং পরের ছবিও পোস্ট করেছে, যাতে চন্দ্রপৃষ্ঠের পরিবর্তনগুলি এবং প্রভাব বিন্দুকে হাইলাইট করা যায়।

চন্দ্র পৃষ্ঠে অবতরণের চেষ্টা করার কয়েক দিন পরে ইসরো নিশ্চিত করেছিল, তারা বিক্রমের সঙ্গে সমস্ত যোগাযোগ হারিয়ে ফেলেছে। পরে নাসা জানিয়েছিল, চন্দ্রযান ২-এর ল্যান্ডারের একটি “হার্ড ল্যান্ডিং” ঘটেছিল এবং একই সঙ্গে তারা সম্ভাব্য অবতরণের জায়গাটির ছবিও প্রকাশ করেছিল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.