ওয়েবডেস্ক : একটা লম্বা সময় পর নাসা এলোন মাস্কের মালিকানাধীন সংস্থা স্পেসেক্সের ক্রু ড্রাগনকে সবুজ সংকেত দেখিয়েছে। সংস্থার একটি মানববিহীন মহাকাশযান পাঠানো হবে আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনে। মহাকাশযানটি পাঠানো হবে আগামী ২ মার্চ। এই মহাকাশযানটির নাম ডেমনস্ট্রেশন মিশন-১ বা ডিএম-১। এটি মহাকাশে উৎক্ষেপণ করা হবে নাসার ফ্লোরিডার কেনেডি স্পেস সেন্টার থেকে ২ মার্চ রাত ২টো ৪৮ মিনিটে।

উল্লেখ্য, ২০১১ সালে স্পেসশাটেলের অবসর নেওয়ার পর এটিই হল বাণিজ্যিক ভাবে মানুষের জন্য বানানো আর পরিচালিত প্রথম আমেরিকান মহাকাশযান যা মহাকাশ স্টেশনে পাঠানো হবে।

মহাকাশ সংস্থাটি জানিয়েছে, এই মহাকাশযানটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ সব তথ্য সরবরাহ করতে থাকবে। সেগুলি যাচাই করে দেখবে নাসা। এই তথ্য মহাকাশ স্টেশনে মানুষ পাঠানো আর ফেরত আনার ক্ষেত্রে খুবই কাজে লাগবে।

মহাকাশ যান সংক্রান্ত আরও খবর পড়ুন 

নাসার কর্মাশিয়াল ক্রু প্রোগ্রাম ম্যানেজার ক্যাথি লু্যেডারস বলেন, এই পরীক্ষামূলক উৎক্ষেপণ খুবই কাজের হবে। তা শুধু হার্ডওয়্যারগুলিকে প্রস্তুত হতে সাহায্য করবে তা-ই নয়, যে দলটি এই বিষয়ের সঙ্গে জড়িয়ে তাদেরও প্রস্তুত হতে সাহায্যে করবে। তিনি বলেন, নাসা স্পেসএক্স’স বোয়িং-এর সঙ্গে এক যোগে কাজ করছে। এর থেকে প্রাপ্ত তথ্যের সাহায্যে পথের যাবতীয় ভালোমন্দ জানা, তা পর্যবেক্ষণ করা সম্ভব হবে। এর পর সেখানে নির্বিঘ্নে মহাকাশচারী পাঠানো সহজ হবে।

আরও পড়ুন – রাজনৈতিক বাধ্যবাধকতায় ইয়েচুরি ও রাহুল, জল মাপছেন মমতা

প্রসঙ্গত, এই কার্যক্রমটি ২০১৮ সালেই হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু নাসার পক্ষ থেকে সবুজ সংকেতের অভাবে তা সম্ভব হয়ে ওঠেনি।

এর পর স্পেসেক্সের মানববাহী অভিযান হবে জুলাই ২০১৯ সালে। আর বোয়িং-এর স্টারলাইনার মিশন হবে আগস্ট ২০১৯ সালে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here