ওয়েবডেস্ক: আবার চাঁদে মানুষ পাঠাবে নাসা। তবে এ বারে আর পতাকা উড়িয়ে বা হেঁটেই চলে আসবেন না তাঁরা। রীতিমতো চাঁদের মাটিতে থাকবেন তাঁরা। এই পরিকল্পনা ২০২৮ সালের মধ্যে কার্যকর করার লক্ষ্য নিয়েছে নাসা।

ওয়াশিংটনে নাসার সদর দফতরে একটি সাংবাদিক বৈঠকে সংস্থার অন্যতম প্রধান জিম ব্রিডেনস্টাইন এ কথা বলেন। বলেন, যতটা তাড়াতাড়ি সম্ভব এই কাজ শুরু করে দিতে হবে। এই বারের শুরুটা অন্য রকম।

এ বার চাঁদে মানুষ পাঠানোর পরিকল্পনাটি আদতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের। এই প্রকল্প বাস্তবায়িত করার লক্ষ্যে বেসরকারি কোম্পানিগুলিকে কাজে লাগানো হবে।

আরও পড়ুন – প্রথম মহিলা ‘ফ্লাইট লেফটেন্যান্ট ফ্লাইট ইঞ্জিনিয়ার’ হলেন হিনা জয়সওয়াল

অবশ্য চাঁদে নতুন করে মানুষ পাঠানোর আগে ২০২৪ সালের মধ্যে মানুষবিহীন মহাকাশযান পাঠাতে চায় নাসা। তারও আগে ২০১৯ সালের শেষেই বা ২০২০ সালের মধ্যে সেখানে যন্ত্রপাতি আর সরঞ্জাম পাঠাতে চায় নাসা।

প্রসঙ্গত, চাঁদে শেষ হেঁটে ছিলেন ইউজিন সেরনান ১৯৭২ সালে, অ্যাপোলো ১৭ অভিযানের সময়।

নাসা চাঁদে একটি ছোটো স্পেস স্টেশন গড়ে তোলার পরিকল্পনা করছে। এটি করতে চাইছে ২০২৬ সাল নাগাদ। স্পেস স্টেশন ‘গেটওয়ে’ গড়ে তোলা হবে চাঁদের কক্ষপথে। চাঁদের পৃষ্ঠে যাতায়াতের ক্ষেত্রে এটি ‘ওয়ে-স্টেশন’ হিসাবে কাজ করবে। চাঁদে ফের মানুষ পাঠানোর অভিযানে আইএসএস-এর (ইন্টারন্যাশনাল স্পেস স্টেশন) পাশাপাশি অন্যান্য দেশেরও সহযোগিতা চায় নাসা।

আরও পড়ুন – আগামী ২৪ ঘণ্টায় ঝড়বৃষ্টি রাজ্যে, পাহাড়ে তুষারপাত

নাসার চন্দ্র অভিযানে যোগ দেওয়ার জন্য বেসরকারি কোম্পানিগুলির কাছে দরপত্র আহ্বান করা হচ্ছে। দরপত্র জমা নেওয়ার শেষ তারিখ ২৫ মার্চ। প্রথম দফার বাছাই পর্ব চলবে মে মাস পর্যন্ত। যন্ত্রপাতি আর অন্যান্য ক্ষেত্রে সহযোগিতার জন্য নিলামে ডাকা হচ্ছে বিভিন্ন সংস্থাকে, যাতে কাজটি দ্রুত করা হয়।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here