মহাকাশচারীদের শরীরে অদ্ভুত ভাবে উলটো রক্তপ্রবাহ দেখা গেল: নাসা

0
iss
প্রতীকী ছবি

ওয়েবডেস্ক: নাসার একটি গবেষণা বিজ্ঞানীদের কপালেই ভাঁজ ফেলেছে। সম্প্রতি তাঁরা দেখেছেন, স্পেস স্টেশনে থাকাকালীন মহাকাশচারীদের শরীরের ভেতরে বিভিন্ন স্থানে শিরায় শিরায় রক্ত জমাট বেঁধে যাচ্ছে। অথবা রক্ত উলটোপথে চলতে শুরু করছে।

এমন ফলাফলে যথেষ্টই আতঙ্কিত বিজ্ঞানীরা। মনে করা হচ্ছে, এই ফলাফল হয়ত দীর্ঘ সময়ের মহাকাশযাত্রার ক্ষেত্রে একটি অশনি সংকেত।

এই গবেষণাটিতে আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনে থাকা ১১ জন মহাকাশচারীর ওপর পর্যায়ক্রমে আল্ট্রাসাউন্ড টেস্ট করা হয়েছে। সেই পরীক্ষারই ফলাফলে যা মিলেছে তা খুবই উদ্বেগজনক।

ফলাফলে দেখা গিয়েছে, মহাকাশচারীদের মধ্যে সাত জনের রক্ত হয় কোথাও জমাট বেঁধেছে অথবা ঘাড়ের বাঁ দিকে শিরার মধ্যে রক্ত উলটো দিকে চলতে শুরু করেছে। আবার দুই জন মহাকাশচারীর ক্ষেত্রে দেখা গিয়েছে পৃথিবীতে ফিরে আসার পরও তাঁদের রক্তে জমাট বা আংশিক জমাট বাঁধা রয়েছে।

এই গবেষণাপত্রটি প্রকাশিত হয়েছে জামা নেটওয়ার্ক ওপেন পত্রিকায়।

নাসার জনসন স্পেস সেন্টারের প্রবীণ লেখক ও ম্যানেজার মাইকেল স্টেইনজার এনবিসি নিউজকে বলেছেন, এটি অনাকাঙ্খিত একটি ফলাফল। গবেষণা করার সময় তাঁরা এমন উলটো দিকে রক্ত চলা বা থেমে থাকার মতো কোনো ফলাফলই আশা করেননি। তিনি বলেন, এটি খুবই অস্বাভাবিক একটি ব্যাপার। পৃথিবীতে এই বিষয়টি একটি ব্লকেজ অথবা একটি টিউমার হিসাবেই পরিগণিত হয়। এই বিষয়টি মহাকাশচারীদের স্বাস্থ্যের ওপর খুব খারাপ প্রভাবও ফেলতে পারে।

জনস হপকিনস ইউনিভার্সিটির মেডিসিনের অধ্যাপক অ্যানড্রিউ ফিংবার্গ এনবিসি নিউজকে বলেন, যদি এই ইন্টারনাল জাগুলারি ভেইনে কোনো স্থানে রক্ত জমাট বেঁধে যায় , তা হলে সেই জমাট অংশ ফুসফুস পর্যন্ত চলে আসতে পারে। এর ফলে পালমোনারি এমবলিজম হতে পারে। এই পালমোনারি এমবলিজম খুবই ভয়ংকর একটি বিষয়।   

মানবহৃদয়ের পেশিকোষগুলি মহাকাশে অন্য রকম আচরণ করে: গবেষণা

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.