তৈরি হল এমন এক ব্যাকটেরিয়া, যা ‘কার্বন ডাই অক্সাইড খেতে পারে’

0

ওয়েবডেস্ক: তৈরি হয়েছে এমন একটি ব্যাকটেরিয়া, যা শুধুমাত্র কার্বন ডাই অক্সাইড ব্যবহার করেই শরীর গঠন করতে পারে। মধ্য ইজরায়েলের ওয়েজম্যান ইনস্টিটিউট অব সায়েন্স (ডব্লিউআইএস)-এর গবেষকরা তেমনটাই দাবি করেছেন।

সংবাদ সংস্থা সিনহুয়া জানিয়েছে, এই ব্যাকটেরিয়াগুলি বাতাসের কার্বন থেকে তাদের দেহের পুরো জৈববস্তু তৈরি করে, বায়ুমণ্ডলে গ্রিনহাউস গ্যাসের পরিমাণ হ্রাস করতে এবং গ্লোবাল ওয়ার্মিংয়ের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ভবিষ্যতের প্রযুক্তি বিকাশে সহায়তা করতে পারে এই ধরনের ব্যাকটেরিয়া।

‘সেল’ জার্নালে প্রকাশিত গবেষণাপত্রটিতে বলা হয়েছে, প্রায় এক দশকের দীর্ঘ প্রক্রিয়া শেষে এই ব্যাকটেরিয়াগুলিকে চিনির উপর ছাড়ানো হয়েছিল।

দাবি করা হয়েছে, ইজরায়েলের ওই বিজ্ঞানীরা ই.কোলাই ব্যাকটেরিয়ার “রি-প্রোগ্রাম” করতে সক্ষম হয়েছেন, যা শর্করা গ্রহণ করে এবং কার্বন ডাই অক্সাইড নির্গত করে। তাই খোলা পরিবেশে রাখলে তারা পরিবেশ থেকে কার্বন ডাই অক্সাইড ব্যবহার করে এবং তাদের দেহ গঠনের জন্য প্রয়োজনীয় শর্করা উৎপাদন করে।

Bacteria

গবেষকরা এই প্রক্রিয়াটির জন্য প্রয়োজনীয় জিনগুলির মানচিত্র গঠন করেছেন এবং পরীক্ষাগারে তাদের মধ্যে থেকে কয়েটিতে জিনোম ব্যাকটিরিয়ায় যুক্ত করেছেন।

এ ছাড়াও, তাঁরা ব্যাকটেরিয়াগুলিতে এমন একটি জিন প্রবেশ করিয়েছেন, যা তাদের ফর্মেট নামক পদার্থ থেকে শক্তি গ্রহণ করতে সাহায্য করে।

তবে এ ভাবে ব্যাকটেরিয়াগুলির খাদ্যতালিকা পরিবর্তন করা মোটেই সহজ কাজ ছিল না। ধীরে ধীরে চিনি থেকে তাদের দুগ্ধ ছাড়ানোর জন্য “পরীক্ষাগার বিবর্তন” প্রক্রিয়াগুলির প্রয়োজন হয়েছিল।

প্রক্রিয়াটির প্রতিটি পর্যায়ে, ব্যাকটিরিয়াগুলিকে দেওয়া চিনির পরিমাণ ক্রমশ হ্রাস করা হয়। যে কারণে সেগুলি প্রচুর পরিমাণে কার্বন ডাই অক্সাইড এবং ফর্মেট সংগ্রহ করে। এ ভাবেই নতুন খাদ্যাভ্যাস গড়ে তুলতে প্রায় ছ’মাস সময় কেটে যায়।

[ আরও পড়ুন: পৃথিবীর মধ্যে প্রাণের অস্তিত্বহীন জায়গা খুঁজে পেলেন বিজ্ঞানীরা ]

গবেষকরা ধারণা করছেন, এই ব্যাকটেরিয়াগুলির “স্বাস্থ্যকর” অভ্যাসগুলি বেশির ভাগ ক্ষেত্রে পৃথিবীর পক্ষে স্বাস্থ্যকর প্রমাণিত হতে পারে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.