ডায়নোসার প্রসঙ্গে এ কী বলছেন বিজ্ঞানীরা?

0
Dinosaurs
ডায়নোসার

ওয়েবডেস্ক : মিল্কিওয়ে অর্থাৎ আকাশগঙ্গার মধ্যে দিয়ে সৌরজগতের গতিবিধি অনুসরণ করেছেন নাসার বিজ্ঞানী জেসি ক্রিশ্চিয়ানসেন। তার থেকে তিনি আবিষ্কার করেছেন, ডাইনোসর যখন পৃথিবীতে জীবিত ছিল, তখন আমাদের পৃথিবী গ্রহটি আকাশগঙ্গা অর্থাৎ ছায়াপথের সম্পূর্ণ ভিন্ন দিকে অবস্থান করছিল। বিষয়টি প্রকাশিত হয়েছে, বিজনেস ইনসাইডার-এ।

তিনি বিষয়টি ভালো করে ব্যখ্যা করার জন্য একটি অ্যানিমেশন ভিডিও তৈরি করেছেন। তাতে তুলে ধরেছেন, ডায়নোসারের যুগ কত দিন ছিল। পাশাপাশি তখন পৃথিবীর অবস্থান এবং ডায়নোসারের পৃথিবীতে স্থায়িত্ব ও এখনও পর্যন্ত পৃথিবীতে মানুষের স্থায়িত্ব, তা নিয়ে তুলনামূলক আলোচনাও করেছেন।

ক্রিশ্চিয়ানসেন আরও ব্যাখ্যা করেছেন। তিনি বলেছেন,  ডায়নোসরের যখন শেষের দিকের বিবর্তন চলছে তখন ট্রায়াসিক যুগের সবে মাত্র শুরু হয়েছিল। সেই সময়ে আমাদের সৌরজগৎ ছায়াপথের বর্তমান পর্যায়ে ছিল। তিনি আরও বলেছেন, যখন পৃথিবী আকাশগঙ্গার সম্পূর্ণ অন্য অংশে ছিল তখন বেশিরভাগ ডায়নোসার সারা গ্রহে ঘুরে বেড়াত।

তিনি ওই ওয়েবসাইটকে জানিয়েছেন, তিনি প্রথমবার উপলব্ধি করলেন যে, ‘টাইম স্কেল’ ‘আর্কিওলজিক্যাল টাইম স্কেল’ ও ‘অ্যাস্ট্রোনমিক্যাল টাইম স্কেল’ একে অপরের সঙ্গে অঙ্গাঙ্গী ভাবে জড়িয়ে।  তার পরই তাঁর মাথায় এই চিন্তা ভাবনা আসে যে, তা হলে আকাশগঙ্গায় পৃথিবীর অবস্থানের সঙ্গে পৃথিবীতে ডায়নোসারের পটপরিবর্তন চিহ্নিত করতে পারা যাবে। 

এই ভিডিওটি তৈরি করতে তাঁর সময় লেগেছে মাত্র চার ঘণ্টা।

তিনি বলেন, দেখলে মনে হবে আবার পুরনো জায়গায় ফিরে এল পৃথিবী। কিন্তু আসলে তা নয়। গোটা ছায়াপথটি একটি স্পাইরাল আকারে মহাকাশে ঘুরে বেড়াচ্ছে।  

আরও পড়ুন : পেটের ক্যানসারের জন্য দায়ী এই বিশেষ ধরনের ব্যাকটেরিয়া: গবেষণা

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here