Connect with us

বিজ্ঞান

রবিবারের পড়া : কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ও ভবিষ্যৎ বিশ্ব

সন্তোষ সেন

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা শব্দটি এই একবিংশ শতাব্দীতে বহু আলোচিত ও বিতর্কিত। ১৯৬০-এর দশকে শুরু হয়ে গুগল, মাইক্রোসফট, অ্যাপল, টেসলার মতো বহুজাতিক কোম্পানি ও বিশেষ করে আমেরিকা, ইউরোপ, চিন, জাপানের মতো তথাকথিত উন্নত দেশগুলোর হাত ধরে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা (artificial intelligence বা AI) প্রযুক্তিতে বিনিয়োগ আশির দশকের মধ্যেই বিলিয়ন ডলার ছাড়িয়ে যায়। ভারত সরকারও ২০১৮-এর বাজেট এআই, মেশিন লার্নিং, রোবটের গবেষণা ও এর সার্বিক ব্যবহারের জন্য নীতি আয়োগকে একটি সুনির্দিষ্ট নীতি ঘোষণা করার পরামর্শ দিয়েছেন। সরকারের মুখপাত্র বলেছেন জানাচ্ছেন, “এ আই প্রযুক্তির ব্যাপক ব্যবহার আমরা অনেক পিছিয়ে শুরু করছি, কিন্তু সামরিক বাহিনীতে এর ব্যবহারের বিস্তর সুযোগ আছে।”

আরও পড়ুন রবিবারের পড়া: লেজারের ফ্রেমে বন্দি ব্যাক্টেরিয়া

বিজ্ঞানের চরম উন্নতি ও কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার প্রযুক্তি ব্যবহার করে বর্তমানে স্বাস্থ্য পরিষেবার জগতে সত্যিই বিপ্লব ঘটানো সম্ভব, বিশেষ করে ক্যানসার চিকিৎসায়। সম্ভব শিক্ষার জগতে আমূল পরিবর্তন ঘটানো। সত্যিই শিক্ষা, স্বাস্থ্য-সহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে কৃত্রিম মেধার অবদান তো প্রমাণিত। ডিজিটাল মানি, ইবুক, ফোনে অ্যাপ বুক করা, গুগল সার্চ ইঞ্জিনের ব্যবহার তো আজ সর্বজনবিদিত। স্থায়ী সম্পদে কোনো রকম বিনিয়োগ না করেই কেবলমাত্র এআই প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে উবের, ওলার মতো কোম্পানিগুলোর লক্ষ কোটি টাকার মুনাফা তো আমরা সকলেই জানি।

ক্লান্তিকর, একঘেয়ে, যান্ত্রিক কাজ থেকে মুক্ত করে সাহিত্য-সংস্কৃতির ক্ষেত্রে মানুষের অবদানকে চূড়ান্ত শিখরে নিয়ে যাওয়া সম্ভব। যান্ত্রিক কাজগুলো যন্ত্র, রোবট দিয়েই তো হতে পারে। মানুষ তার অমূল্য সময়, কৃত্রিম মেধা ও উন্নত মস্তিষ্ক ব্যবহার করে মহাকাশের অপার রহস্য উন্মোচন করুক, সমুদ্রগর্ভ থেকে তুলে আনুক হাজার হাজার না-জানা রহস্যের চাবিকাঠি।এআই প্রযুক্তিকে কাজে লাগানো হোক, আজকের জ্বলন্ত সমস্যা, প্রকৃতি-মানুষের দ্বন্দ্বের সঠিক ও বৈজ্ঞানিক সমাধানের কাজে।

কিন্তু আমাদের চাওয়াগুলো, সাধারণ মানুষের চাওয়াগুলো তো পুঁজিপতিদের চাওয়া হতে পারে না। তাই ‘কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা’ প্রযুক্তিতে তৈরি রোবটকে যখন, যতটা খুশি, যে ভাবে খুশি ব‍্যবহার করে লক্ষ কোটি মানুষের কর্মচ‍্যুতি ঘটিয়ে পুঁজিপতিরা চাইবেনই মুনাফার পাহাড় গড়ে তুলতে।

আরও পড়ুন রবিবারের পড়া: মহাকাশে চাক্কা জ্যাম

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার প্রযুক্তির সঙ্গে যুক্ত বিশারদরাই বলছেন আগামী ২০২০ সালের মধ্যে আমেরিকায় ৪৯ শতাংশ মানুষ কর্মছুট হবেন। চিন, ভারতের মতো দেশে যা প্রায় সত্তর শতাংশে পৌঁছোবে। এটা ঠিক যে, কম্পিউটারের হার্ডওয়্যার, সফটওয়্যার বানানো, বিভিন্ন যন্ত্র বা রোবট তৈরি এবং তাদের চালানোর জন্য নতুন কিছু চাকরির সংস্থান হবে। কিন্তু এই কর্মকাণ্ডে খুব কম সংখ্যক প্রশিক্ষিত লোকের কর্মসংস্থান হবে। অন্য দিকে ব্যাপক হারে কৃত্রিম মেধার প্রযুক্তি ও রোবটের ব্যবহারের ফলে বিশ্ব জুড়েই কোটি কোটি মানুষ কাজ হারাবেন। শুধু কারখানার মজুর-শ্রমিক নয়, কাজ হারাবেন অফিস-কর্মচারীও। এমনকি আগামী দিনে ডাক্তার ও শিক্ষকদের উপরও কোপ পড়বে। বলা বাহুল্য, দেশে দেশে তথ্যপ্রযুক্তি কর্মীদের উপর এর প্রভাব পড়তে শুরু করেছে, তাঁরা কাজ হারানোর আশঙ্কায় ভুগছেন। আসুন, আমরা আওয়াজ তুলি, পুঁজির সংকট থেকে মুক্তি পাওয়ার মরিয়া প্রচেষ্টা নয়, বিঞ্জান, প্রযুক্তির চরম বিকাশকে কাজে লাগানো হোক মানুষ তথা সমাজের সার্বিক বিকাশের স্বার্থেই। আর এ কাজ ঘটাতে হবে ওদের কবল থেকে বিজ্ঞান প্রযুক্তির তথা নকল মেধার প্রযুক্তিকে মুক্ত করে এর সামাজিককরণের মধ্যে দিয়েই।

আলোচনা করুন, বাস্তবে এই কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে কী ভাবে বিশ্বপুঁজির কবরে শেষ পেরেক ঠুকে বিশ্ব থেকেই চিরতরে পুঁজিবাদকে হটিয়ে দেওয়া যায়। কাজ হারানো লক্ষ কোটি মানুষকে সর্বজনীন মূল আয় (Universal Basic Income বা UBI) বা অন্যান্য দান খয়রাত করে কি পুঁজির সঞ্চলনকে আজ আর টিকিয়ে রাখা যাবে?

সকলের মূল্যবান মতামতের মধ্যে দিয়েই আসুন উত্তর খুঁজি এই সব জ্বলন্ত প্রশ্নের। তাই আসুন, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ও তার প্রযুক্তি নিয়ে জানা বোঝার চেষ্টা করি, প্রশ্ন রাখি। প্রশ্ন, পরিপ্রশ্ন বিতর্ক আমাদের আরও সমৃদ্ধ করবে।

(লেখক সেন্ট জেভিয়ার্স কলেজিয়েট স্কুলের সিনিয়র ফিজিক্স টিচার)

বিজ্ঞান

করোনা রোগীর মৃত্যুর ঝুঁকি কমাতে প্লাজমা থেরাপির কোনো ভূমিকা নেই, বলেছে এইমসের অন্তর্বর্তী বিশ্লেষণ

কোভিড-১৯ রোগীর মৃত্যুর ঝুঁকি হ্রাসের কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি।

সংগৃহীত প্রতীকী ছবি

নয়াদিল্লি: করোনাভাইরাস আক্রান্তের চিকিৎসায় কনভালসেন্ট প্লাজমা থেরাপি প্রয়োগ নিয়ে ব্যাপক হইচই হলেও এতে রোগীর মৃত্যুর ঝুঁকি কমাতে তেমন কোনো সুবিধা পাওয়া যায়নি বলে জানাল এইমস-এর একটি অন্তর্বর্তী বিশ্লেষণ।

এইমস-এর ওই বিশ্লেষণে বলা হয়েছে, প্লাজমা থেরাপি প্রয়োগ করে কোভিড-১৯ (Covid-19) রোগীর মৃত্যুর ঝুঁকি হ্রাসের কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি।

প্লাজমা থেরাপি কী?

এই পদ্ধতিতে করোনাভাইরাসে (Coronavirus) আক্রান্ত হয়ে সুস্থ হওয়া ওঠা কোনো ব্যক্তির শরীর থেকে প্লাজমা বা রক্তরস সংগ্রহ করা হয়। এর পর সেই রক্তরস একই ধরনের ভাইরাসে আক্রান্ত কোনো রোগীর দেহে প্রয়োগ করা হয়। এর আগে স্প্য়ানিশ ফ্লু মহামারি এবং হামের চিকিৎসায় এই পদ্ধতি কাজে লাগানো হয়েছিল।

[সংগৃহীত প্রতীকী ছবি]

চিকিৎসকদের মতে, প্লাজমায় অনেক ধরনের অ্যান্টিবডি থাকে। যখন কেউ কোনো রোগে আক্রান্ত হন, তখন ভাইরাস বা ব্যাকটেরিয়া বিরুদ্ধে এ ধরনের অ্যান্টিবডি প্রোটিন তৈরি হয়। প্লাজমা থেরাপির মাধ্যমে একজনের শরীরের কার্যকর অ্যান্টিবডি অন্যের শরীরে স্থানান্তর করে তাঁকে রোগের বিরুদ্ধে লড়তে সহায়তা করা হয়।

এইমস কী বলছে?

কোভিড-১৯ রোগীর চিকিৎসায় প্লাজমা থেরাপি চলছে ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে।

বৃহস্পতিবার এইমস (AIIMS)-এর ডিরেক্টর ডা. রণদীপ গুলেরিয়া (Dr Randeep Guleria) সংবাদ সংস্থা পিটিআইয়ের কাছে বলেন, ৩০ জন কোভিড -১৯ রোগীর মধ্যে প্লাজমা থেরাপি চলাকালীন মৃত্যুহার কমানোর কোনো স্পষ্ট উপকারিতা পাওয়া যায়নি।

তিনি বলেন, “পরীক্ষা চলাকালীন ওই রোগীদের প্রথামাফিক চিকিৎসার পাশাপাশি কনভালসেন্ট প্লাজমা থেরাপি (Convalescent plasma therapy) দেওয়া হয়। অন্য একটি দলকে শুধুমাত্র ওই প্রথামাফিক চিকিৎসা পরিষেবা দেওয়া হয়। পরীক্ষার অন্তর্বর্তীকালীন বিশ্লেষণে দেখা যায়, উভয় ক্ষেত্রেই মৃত্যুর হার একই। এমনকী প্লাজমা থেরাপি প্রয়োগ করা রোগীদের লক্ষণীয় কোনো উন্নতি হয়নি”।

[ডা. রণদীপ গুলেরিয়া। ফাইল ছবি]

একই সঙ্গে এইমস ডিরেক্টর বলেন, “যদিও এটা অন্তর্বর্তীকালীন বিশ্লেষণ। এ ব্যাপারে আমাদের আরও পর্যবেক্ষণের প্রয়োজনীয়তা রয়েছে। কোনো উপ-গ্রুপ প্লাজমা থেরাপি থেকে উপকৃত হতে পারে কি না, তা দেখতে আরও বিশদ মূল্যায়ন করা দরকার”।

দরকার সতর্কতার

গুলেরিয়া আরও বলেন, প্লাজমা থেরাপির সময় সুরক্ষার বিষয়টিকে অগ্রাধিকার দেওয়া দরকার। পর্যাপ্ত সুরক্ষার সঙ্গেই পরীক্ষা করাতে হবে এবং কোভিড -১৯ রোগীর কাজে লাগার মতো পর্যাপ্ত অ্যান্টিবডি থাকা উচিত।

গত বুধবার এইমস-এর মেডিসিন বিভাগের অধ্যাপক মনীশ সোনেজা বলেন, “প্লাজমা নিরাপদ। কিন্তু এর কার্যকারিতা সম্পর্কে এখনও পর্যন্ত আমাদের কাছে সবুজ সংকেত নেই। তাই এর ক্লিনিক্যাল ব্যবহার অনুমতি সাপেক্ষ এবং সরকারি নির্দেশিকা মেনেই করতে হবে”।

বিভিন্ন জায়গায় এলোমেলো ভাবে করা প্লাজমা থেরাপি পরীক্ষার প্রাথমিক ফলাফল সম্পর্কে সোনেজা বলেছিলেন, “কনভালসেন্ট প্লাজমা কোনো জাদু বুলেট নয়”।

Continue Reading

বিজ্ঞান

সত্যিই কি অক্ষত রয়েছে ‘চন্দ্রযান ২’-এর রোভার প্রজ্ঞান?

চেন্নাইয়ের এক ইঞ্জিনিয়ার প্রজ্ঞান রোভারের খোঁজ পেয়েছেন বলে দাবি করা হয়েছে। পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখছে ইসরো।

ছবি: টুইটার থেকে

ওয়েবডেস্ক: গত বছরের ডিসেম্বরে চাঁদে পৌঁছোনোর আগেই ইসরোর সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় ভারতের ‘চন্দ্রযান ২’-এর সঙ্গে। পরে বিক্রম ল্যান্ডারের ধ্বংসাবশেষের খোঁজ মেলে। এ বার চেন্নাইয়ের এক ইঞ্জিনিয়ার প্রজ্ঞান রোভারের খোঁজ পেয়েছেন বলে দাবি করা হয়েছে। পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখছে ইসরো।

মহাকাশ গবেষণায় উৎসাহী চেন্নাইয়ের তামিল যুবক শানমুগা সুব্রহ্মণ্যন (Shanmuga Subramanian) এর আগে ল্যান্ডার বিক্রমের (Vikram) ধ্বংসাবশেষের সন্ধান দিয়েছিলেন। সেই তিনিই এ বার প্রজ্ঞানের খোঁজ পেয়েছেন বলে দাবি করেছেন। তিনি সোশ্যাল মিডিয়ার একাধিক পোস্টে লিখেছেন, “সঠিক ভাবে চন্দ্রপৃষ্ঠে অবতরণ করতে না পারার কারণে চন্দ্রযান ২ (Chandrayaan-2)-এর বিক্রম ল্যান্ডারের পেলোডস ভেঙে যায়। কিন্তু রোভার প্রজ্ঞান এখনও অক্ষত রয়েছে”।

একই সঙ্গে তাঁর দাবি, “ল্যান্ডারের কাঠামোটি থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়ার পর রোভার প্রজ্ঞান (Pragyan “ROVER”) বেশ কয়েক কিমি পথ পাড়ি দিয়েছে”। সেই পরিক্রমা পথটি ট্র্যাক-ও করেছেন শানমুগা।

কী বলছে ইসরো?

ইসরোর চেয়ারম্যান কে সিবান (K Sivan) সংবাদ সংস্থা আইএএনএস-কে জানিয়েছেন, “আমরা তাঁর (শানমুগা) সঙ্গে যোগাযোগ করছি। আমাদের বিশেষজ্ঞরারও বিষয়টি নিয়ে বিশ্লেষণ চালিয়ে যাচ্ছেন”।

শানমুগা একটি টুইটে দাবি করেছেন, “দেখে মনে হচ্ছে কমান্ডগুলি ল্যান্ডারের কাছে সঠিকপথে পাঠানো হয়নি। তা হলে ল্যান্ডার কমান্ডগুলি গ্রহণ করতে এবং রোভারের কাছে সেগুলোকে রিলে করতে পারত। তবে পৃথক সম্ভাবনা রয়েছে … কিন্তু কোনো কারণে ল্যান্ডার পৃথিবীর সঙ্গে ফের যোগাযোগ করতে সক্ষম হননি”।

[ছবি: টুইটার থেকে]

একই সঙ্গে সিবান জানান, ইসরোর সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ার পরেও তাঁরা বেশ কিছু দিন ক্রমাগত কম্যান্ড পাঠিয়ে গিয়েছেন। তাঁরা আশায় ছিলেন, ল্যান্ডার সেই কম্যান্ড রিসিভ করে রোভারকে পাঠাবে।

তবে শানমুগার মতে, রোভারটি এখনও চাঁদের পৃষ্ঠে অক্ষত অবস্থায় থাকতে পারে। বিক্রমের কাছ চাঁদের মাটিতে রোভারের ট্র্যাকগুলি লুনার রিকনন্যাইসেন্স অরবিটার বা এলআরও (LRO)-র সর্বশেষ পাঠানো ছবিগুলি থেকে দেখা গিয়েছে।

এর আগে যে ধ্বংসাবশেষগুলি পাওয়া গিয়েছিল, সেগুলি প্রসঙ্গে শানমুগা বলেন, সেগুলি অন্য কোনো পে-লোড থেকে হতে পারে। নাসার পাঠানো অন্য কোনো পে-লোডের অ্যান্টেনা এবং থ্রাস্টার থেকে সেগুলি সৃষ্টি হতে পারে।

ভারতের ‘চন্দ্রযান ২’

গত ৭ নভেম্বর চন্দ্রযান-২ এর ল্যান্ডার বিক্রমের চাঁদের মাটি স্পর্শ করার কথা ছিল। কিন্তু তার ঠিক কয়েক মুহূর্ত আগেই তার সঙ্গে সমস্ত রকম যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় সংস্থার। তার প্রায় আড়াই মাস পরে সেই ব্যর্থতা মেনে নেওয়া হল সংস্থার পক্ষ থেকে।

[ফাইল ছবি]

ভারতের মহাকাশ বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জিতেন্দ্র সিংহ একটি রিপোর্ট পাঠ করেন। তাতে তিনি বলেন, চাঁদে অবতরণের প্রথম পর্বটিতে চন্দ্রপৃষ্ঠ থেকে ৩০ কিলোমিটার থেকে ৭.২ কিলোমিটার উচ্চতা পর্যন্ত পথ খুবই দ্রুত অতিক্রম করেছিল চন্দ্রযান-২-এর বিক্রম। কিন্তু তার পরই নির্দিষ্ট পথ ও হিসাবের বাইরে চলে যায় বিক্রম। 

তবে একই সঙ্গে দাবি করা হয়, বেশির ভাগ অংশের ক্ষেত্রেই সাফল্য চিহ্নিত হয়েছে। তার মধ্যে প্রযুক্তির ব্যবহার, বহন পর্ব, ল্যান্ডার বিচ্ছিন্ন করার পদ্ধতি, অর্বিটারের প্রদক্ষিণ-সহ বিভিন্ন ক্ষেত্রগুলিতে সাফল্য এসেছে। 

Continue Reading

দেশ

অক্সফোর্ড করোনা-টিকার ভারতে পরীক্ষা আরও এক ধাপ এগোল

কোভিভ মোকাবিলার আশু প্রয়োজনীয়তা অনুধাবন করে ডিসিজিআই সম্ভবত ‘এ সপ্তাহের শেষেই তাঁর সিদ্ধান্ত’ জানিয়ে দেবেন বলে আশা করা যায়।

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সরকারি ছাড়পত্র পাওয়া শুধুমাত্র সময়ের অপেক্ষা। ভারতে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের (Oxford University) করোনা-টিকার (Corona Vaccine) মানবশরীরে পরীক্ষা তথা হিউম্যান ট্রায়ালের ব্যাপারটি আরও এক ধাপ এগোল। সেরাম ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়া (Serum Institute of India) মানবশরীরে পরীক্ষা সংক্রান্ত যে সংশোধিত খসড়াটি বিশেষজ্ঞ কমিটির (Subject Expert Committee, SEC, এসইসি) কাছে জমা দিয়েছিল, সেই কমিটি শুক্রবার তা অনুমোদন করেছে।

ভারতের ড্রাগ কন্ট্রোলার জেনারেলের (ডিসিজিআই, DCGI) কাছে কোনো ওষুধ, বা টিকা বা মানবশরীরে পরীক্ষা সংক্রান্ত কোনো প্রস্তাব জমা পড়লে, ওই বিশেষজ্ঞ কমিটি ডিসিজিআই-কে এ ব্যাপারে পরামর্শ দেয়।

এ বার সেরাম ইনস্টিটিউটের অনুমোদিত খসড়াটি ডিসিজিআই ভি জি সোমানির কাছে যাবে। কোভিভ মোকাবিলার আশু প্রয়োজনীয়তা অনুধাবন করে ডিসিজিআই সম্ভবত ‘এ সপ্তাহের শেষেই তাঁর সিদ্ধান্ত’ জানিয়ে দেবেন বলে আশা করা যায়।

করোনা টিকা উদ্ভাবন সংক্রান্ত ঘটনাবলির সঙ্গে জড়িত এক প্রবীণ সরকারি অফিসার দ্য প্রিন্টকে বলেন, “কোম্পানি যে সংশোধিত খসড়া জমা দিয়েছিল এসইসি তা অনুমোদন করেছে। ভারত জুড়ে মানবশরীরে পরীক্ষা শুরু করার জন্য কোম্পানির আবেদনের ব্যাপারে তারা ডিসিজিআই সুপারিশ করেছে। এ সপ্তাহ শেষ হওয়ার আগেই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।”

অক্সফোর্ডের করোনা-টিকা

উল্লেখ্য, কোভিড ১৯-এর (Covid 19) বিরুদ্ধে কার্যকর প্রতিরোধী টিকা তৈরি করতে যারা লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে, তাদের মধ্যে সব চেয়ে এগিয়ে রয়েছে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়। তাদের এই উদ্যোগে শরিক হয়েছে সুইডিশ-ব্রিটিশ কোম্পানি অ্যাস্ট্রাজেনেকা (AstraZeneca) এবং ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট।

ভারতের বাইরে এই টিকার  মানবশরীরে পরীক্ষার প্রথম ও দ্বিতীয় দফা সম্পন্ন হয়েছে এবং তার ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে দ্য ল্যানসেট জার্নালে (The Lancet Journal)। এই পরীক্ষার ফল খুবই আশাব্যাঞ্জক। দেখা গিয়েছে, করোনাভাইরাস ঠেকাতে এই টিকা শরীরে প্রয়োজনীয় অ্যান্টিবডি ও টি সেল তৈরি করতে সক্ষম।

সেরাম ইনস্টিটিউটের খসড়া

সেরাম ইনস্টিটিউট প্রথম খসড়া জমা দেয় গত মঙ্গলবার। এসইসি তথা বিশেষজ্ঞ কমিটি আটটি বিষয়ের উপর নতুন করে কাজ করতে বলে। সেন্ট্রাল ড্রাগস স্ট্যান্ডার্ড কন্ট্রোল অর্গানাইজেশন (সিডিএসসিও, CDSCO) তাদের সুপারিশ জমা দেওয়ার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই সেরাম ইনস্টিটিউট তাদের সংশোধিত খসড়াটি পাঠিয়ে দেয়। সেই খসড়া পেয়ে তিন দিনের মধ্যেই ঝটিতি কাজ সেরে শুক্রবারই বৈঠকে বসে সিডিএসসিও-র প্যানেল তথা বিশেষজ্ঞ কমিটি এবং ডিসিজিআই-এর কাছে তাদের সুপারিশ পাঠিয়ে দেয়।

যে সব বিষয়ে খসড়ায় সংশোধন করতে বলা হয়েছিল, তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য মানবশরীরে পরীক্ষা চালানোর ব্যাপারটি সারা ভারত জুড়ে করা। সংশোধিত খসড়া অনুযায়ী দেশের ২০টি জায়গায় এই হিউম্যান ট্রায়াল হবে এবং তাতে যোগ দেবেন ১৬০০ মানুষ।

তা ছাড়া আইসিএমআর-এর ভূমিকা নির্দিষ্ট করে উল্লেখ করার জন্য সিডিএসসিও-র প্যানেল সেরাম ইনস্টিটিউটকে বলেছিল।  

Continue Reading
Advertisement
দেশ5 hours ago

৩৫ ফুট গভীর খাদে, কোড়িকোড়ে বিমান দুর্ঘটনায় মৃত বেড়ে ১৭

দেশ7 hours ago

কোড়িকোড়ে কী ভাবে ধ্বংস হয়ে গেল এয়ার ইন্ডিয়া এক্সপ্রেসের বিমানটি?

রাজ্য9 hours ago

টেস্ট বাড়লেও অল্প কমল নতুন আক্রান্তের সংখ্যা, রাজ্যে কমল মৃত্যুর হারও

দেশ9 hours ago

কোড়িকোড়ে ১৯১ জন যাত্রী নিয়ে পিছলে গিয়ে দু’টুকরো এয়ার ইন্ডিয়া এক্সপ্রেসের বিমান, মৃত পাইলট-সহ ১১

খেলাধুলো9 hours ago

জাতীয় দলের অধিনায়ক-সহ পাঁচ ভারতীয় হকি খেলোয়াড় করোনা পজিটিভ

শরীরস্বাস্থ্য10 hours ago

যষ্টিমধু কেন খাবেন? জেনে নিন উপকারিতা

relation
জীবন যেমন10 hours ago

দীর্ঘ বিচ্ছেদে উৎকণ্ঠায় ভুগছেন? কী ভাবে সামলাবেন এই পরিস্থিতি?

দেশ10 hours ago

পাকস্থলি-জনিত অসুস্থতা নিয়ে হাসপাতালে ভরতি মুলায়ম সিং যাদব

দেশ21 hours ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ৬২৫৩৮, সুস্থ ৪৯৭৬৯

গাড়ি ও বাইক3 days ago

পেট্রোলচালিত গাড়ি ‘এস-ক্রস’ বাজারে নিয়ে এল মারুতি সুজুকি

ক্রিকেট3 days ago

অঘটন! ৩২৯ তাড়া করে বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের হারাল আয়ারল্যান্ড

ক্রিকেট3 days ago

আইপিএলের নিয়মাবলি: গুচ্ছের টেস্টিং, চলা-ফেরায় নিয়ন্ত্রণ, একটি দলের জন্য একটি হোটেল

দেশ3 days ago

রুপোর ইট দিয়ে রামমন্দিরের শিলান্যাস করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী

প্রযুক্তি3 days ago

শাওমি, বাইডু-সহ আরও বেশ কয়েকটি চিনা সংস্থার অ্যাপ নিষিদ্ধ করল কেন্দ্র

Hrithik Roshan
বিনোদন2 days ago

‘ক্রিশ ৪’ নয়, তার আগেই একটি কমেডি ছবিতে হৃতিক রোশনকে দেখা যাবে?

কলকাতা2 days ago

রাতভর প্রবল বৃষ্টিতে ভাসল কলকাতার একাংশ

রবিবারের খবর অনলাইন

কেনাকাটা

কেনাকাটা1 day ago

ঘর ও রান্নাঘরের সরঞ্জাম কিনতে চান? অ্যামাজন প্রাইম ডিলে রয়েছে ৫০% পর্যন্ত ছাড়

খবরঅনলাইন ডেস্ক : অ্যামাজন প্রাইম ডিলে রয়েছে ঘর আর রান্না ঘরের একাধিক সামগ্রিতে প্রচুর ছাড়। এই সেলে পাওয়া যাচ্ছে ওয়াটার...

কেনাকাটা2 days ago

এই ১০টির মধ্যে আপনার প্রয়োজনীয় প্রোডাক্টটি প্রাইম ডে সেলে কিনতে পারেন

খবরঅনলাইন ডেস্ক : চলছে অ্যামাজনের প্রাইমডে সেল। প্রচুর সামগ্রীর ওপর রয়েছে অনেক ছাড়। ৬ ও ৭  তারিখ চলবে এই সেল।...

কেনাকাটা2 days ago

শুরু হল অ্যামাজন প্রাইম ডে সেল, জেনে নিন কোন জিনিসে কত ছাড়

খবরঅনলাইন ডেস্: শুরু হল অ্যামাজন প্রাইম ডে সেল। চলবে ২ দিন। চলতি মাসের ৬ ও ৭ তারিখ থাকছে এই অফার।...

things things
কেনাকাটা1 week ago

করোনা আতঙ্ক? ঘরে বাইরে এই ১০টি জিনিস আপনাকে সুবিধে দেবেই দেবে

খবরঅনলাইন ডেস্ক : করোনা পরিস্থিতিতে ঘরে এবং বাইরে নানাবিধ সাবধানতা অবলম্বন করতেই হচ্ছে। আগামী বেশ কয়েক মাস এই নিয়মই অব্যাহত...

কেনাকাটা1 week ago

মশার জ্বালায় জেরবার? এই ১৪টি যন্ত্র রুখে দিতে পারে মশাকে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: একে করোনা তায় আবার ডেঙ্গুর প্রকোপ শুরু হয়েছে। এই সময় প্রতি বারই মশার উৎপাত খুবই বাড়ে। এই বারেও...

rakhi rakhi
কেনাকাটা2 weeks ago

লকডাউন! রাখির দারুণ এই উপহারগুলি কিন্তু বাড়ি বসেই কিনতে পারেন

সামনেই রাখি। কিন্তু লকডাউনের মধ্যে মনের মতো উপহার কেনা একটা বড়ো ঝক্কি। কিন্তু সেই সমস্যা সমাধান করতে পারে অ্যামাজন। অ্যামাজনের...

কেনাকাটা2 weeks ago

অনলাইনে পড়াশুনা চলছে? ল্যাপটপ কিনবেন? দেখে নিন ৪০ হাজার টাকার নীচে ৬টি ল্যাপটপ

ইনটেল প্রসেসর সহ কোন ল্যাপটপ আপনার অনলাইন পড়াশুনার কাজে লাগবে জেনে নিন।

কেনাকাটা3 weeks ago

করোনা-কালে ঘরে রাখতে পারেন ডিজিটাল অক্সিমিটার, এই ১০টির মধ্যে থেকে একটি বেছে নিতে পারেন

শরীরে অক্সিজেনের মাত্রা বুঝতে সাহায্য করে এই অক্সিমিটার।

কেনাকাটা3 weeks ago

লকডাউনে সামনেই রাখি, কোথা থেকে কিনবেন? অ্যামাজন দিচ্ছে দারুণ গিফট কম্বো অফার

খবরঅনলাইন ডেস্ক : সামনেই রাখি। কিন্তু লকডাউনের মধ্যে দোকানে গিয়ে রাখি, উপহার কেনা খুবই সমস্যার কথা। কিন্তু তা হলে উপায়...

laptop laptop
কেনাকাটা3 weeks ago

ল্যাপটপ কিনবেন? দেখে নিন ২৫ হাজার টাকার মধ্যে এই ৫টি ল্যাপটপ

খবরঅনলাইন ডেস্ক : কোভিভ ১৯ অতিমারির প্রকোপে বিশ্ব জুড়ে চলছে লকডাউন ও ওয়ার্ক ফ্রম হোম। অনেকেই অফিস থেকে ল্যাপটপ পেয়েছেন।...

নজরে

Click To Expand