Connect with us

বিজ্ঞান

রবিবারের পড়া: কৃষ্ণগহ্বরের ছায়াছবি

Published

on

photograph of blackhole

সন্তোষ সেন

২০০ জন বিজ্ঞানী মিলে এ বছর ১০ এপ্রিল ব্ল্যাকহোলের ছবি তুলেছেন। ব্ল্যাকহোলের ছবি না বলে বরং ব্ল্যাকহোলের প্রতিবিম্ব বলাই যুক্তিসঙ্গত। ইভেন্ট হরাইজন টেলিস্কোপ কর্তৃপক্ষের তরফে চারটে মহাদেশের বিভিন্ন অঞ্চলে আটটা বড়ো বড়ো রেডিও টেলিস্কোপ বসানো হয়েছিল। রেডিও টেলিস্কোপগুলির সাহায্যে ব্ল্যাকহোলের এই প্রতিবিম্ব পাওয়া গেছে। কিন্তু প্রশ্ন হল, ব্ল্যাকহোল কী।

Loading videos...

আমরা জানি, নক্ষত্রের মধ্যে নিউক্লিয়ার ফিউশন চলতে থাকে দেড় কোটি ডিগ্রি সেলসিয়াস বা তারও বেশি তাপমাত্রায়। আইনস্টাইনের সমীকরণ E=MC2-এর হিসেবে নক্ষত্র থেকে যে বিপুল পরিমাণ শক্তি বিকিরণ হয় তার ফলে নক্ষত্রের অন্তর্মুখী অভিকর্ষ সামঞ্জস্যে থাকে। যে সব নক্ষত্র শক্তি বিকিরণ করে, এই কারণেই তাদের আকার নিজস্ব অভিকর্ষে ছোটো হয়ে যায় না। কিন্তু নক্ষত্রের মৃত্যুর পর অর্থাৎ যখন নক্ষত্রের সব জ্বালানি শেষ হয়ে যায় (সব হাইড্রোজেন হিলিয়ামে এবং হিলিয়াম থেকে অন্যান্যতে পরিণত হয়ে যায়), তখন তারা সঙ্কুচিত হতে থাকে নিজস্ব অভিকর্ষের অন্তর্মুখী টানে। যে সব নক্ষত্র আমাদের সূর্যের থেকে ১.৪৪ গুণ বড় (চন্দ্রশেখর লিমিট), তাদের সঙ্কোচন এতটাই হয় যে, তত্ত্বগত দিক (ম্যাথমেটিক্যালি) থেকে বলা যায় তাদের আয়তন প্রায় শূন্য কিন্তু ঘনত্ব প্রায় অসীম। চন্দ্রশেখর লিমিটের নীচে যে সব নক্ষত্র, তাদের পরিণতি অন্য রকম হয়। আইনস্টাইনের সাধারণ আপেক্ষিক তত্ত্বে স্থানকালের বক্রতা (১৯১৫) অনুযায়ী, উচ্চভরসম্পন্ন বস্তুর চার দিকের স্থানকাল এতটা বেঁকে যায় যে, সেখানে আলোর সরলরৈখিক গতিপথও বেঁকে যায়। এ বার যে সব নক্ষত্রের পরিণতি, আয়তন প্রায় শূন্য কিন্তু ঘনত্ব প্রায় অসীম, তাদের চার দিকের স্থানকাল এতটাই বেঁকে যায় যে, ওই বক্রতায় আলো প্রবেশ করলে তা প্রায় শূন্য আয়তনে সঙ্কুচিত প্রায় অসীম স্থান অতিক্রম করে বেরিয়ে আসবে অসীম সময় পর। অর্থাৎ, সেখানে যা কিছু প্রবেশ করে, সেগুলো বেরিয়ে আসে না। যেন, অন্ধকার গর্ত, একেই বলে কৃষ্ণগহ্বর বা ব্ল্যাকহোল।

ব্ল্যাকহোল থেকে তো আলো বেরিয়ে আসতে পারে না, তা হলে ব্ল্যাকহোলের ছবি তোলা সম্ভব হল কী করে? ব্ল্যাকহোলের কেন্দ্র থেকে যে দূরত্ব অতিক্রম করলে আর বেরিয়ে আসা যায় না, ব্ল্যাকহোলের চার দিকে সেই দুরত্বের গোলোককে বলে ‘ইভেন্ট হরাইজন’ বা ‘ঘটনা দিগন্ত’। যে কোনো বস্তু (গ্রহ, উল্কা, নক্ষত্র, বা অন্যান্য জ্যোতিষ্ক বা পদার্থ) যখন ‘ঘটনা দিগন্ত’-এর কাছাকাছি চলে যায়, তারা প্লাজমা অবস্থায় চলে যায়, অর্থাৎ পদার্থের পরমাণুগুলো ইলেকট্রন, প্রোটোন ও নিউট্রনে ভেঙে যায়। সেখান থেকে সব রকম তড়িৎচুম্বকীয় তরঙ্গ (ইলেক্ট্রো ম্যাগেনেটিক ওয়েভ) বিকিরণ হতে পারে। ব্ল্যাকহোল থেকে কোনো আলো আসতে পারে না বলে যে হেতু ব্ল্যাকহোল দেখা সম্ভব নয়, তাই ব্ল্যাকহোলের ছবি মানে সেই ‘ঘটনা দিগন্ত’-এরই প্রতিবিম্ব যার মাঝে রয়েছে অন্ধকূপের মতো কৃষ্ণগহ্বর। ইভেন্ট হরাইজন টেলিস্কোপ ব্যবহার করে ২০০ জন বিজ্ঞানী গত দশ বছরের চেষ্টায় মেসিয়র ৮৭ নীহারিকার কেন্দ্রের ব্ল্যাকহোলের ‘ঘটনা দিগন্ত’-এর মানচিত্র বের করতে পেরেছেন। মেসিয়র ৮৭ নীহারিকা আমাদের থেকে ৫৩৪ কোটি ৯০ লক্ষ আলোকবর্ষ দূরে রয়েছে। এর কেন্দ্রের ব্ল্যাকহোলের ভর আমাদের সূর্যের ২ লক্ষ ৪০ হাজার গুণ।

ইভেন্ট হরাইজন টেলিস্কোপ প্রধানত দুটো ব্ল্যাকহোলের ওপর নজর রাখছিল, একটা বর্তমান আলোচ্য মেসিয়র ৮৭-এর কেন্দ্রে, আর একটা আমাদের নীহারিকা স্যাজিটেরিয়াস এ-র কেন্দ্রে । কিন্তু আমাদের নীহারিকার কেন্দ্রের ব্ল্যাকহোল অতটা শক্তিশালী নয়, তাই পর্যাপ্ত পর্যবেক্ষণ সম্ভব হয়নি স্যাজিটেরিয়াস এ-কে নিয়ে। ইভেন্ট হরাইজন টেলিস্কোপ কর্তৃপক্ষের তরফে আটটা রেডিও টেলিস্কোপ দিয়ে মেসিয়র ৮৭ নীহারিকার কেন্দ্রের ব্ল্যাকহোল থেকে আসা উচ্চ তরঙ্গদৈর্ঘ্যের বেতার তরঙ্গ (রেডিও ওয়েভ) গ্রহণ করা হয়েছে। ওই রেডিও টেলিস্কোপগুলো থেকে পাওয়া সব তথ্য একত্র করে উন্নত প্রযুক্তির সফটওয়্যারে সেগুলোকে দৃশ্যমান আলোয় রূপান্তরিত করা হয়েছে। এই ভাবে আমরা দানবাকার সক্রিয় ব্ল্যাকহোলের ‘ঘটনা দিগন্ত’-এর সম্পূর্ণ ছবি পেয়েছি। কোনো ক্যামেরা নয়, উন্নত প্রযুক্তি দিয়ে ইভেন্ট হরাইজন টেলিস্কোপ ব্যবহার করে আমরা ব্ল্যাকহোলের ছবি তুলতে সক্ষম হয়েছি। এই ভাবে প্রযুক্তির উন্নতি আবার প্রমাণ করল, বিজ্ঞানের গুরুত্বপূর্ণ আধুনিক তত্ত্বটি, স্থান-কালের বক্রতা। আর বিজ্ঞানীরা ব্ল্যাকহোলের ভরও হিসেব করতে সক্ষম আজ।

আরও পড়ুন প্রথমবার ব্ল্যাক হোলের ছবি প্রকাশ, আরও একবার সত্যি প্রমাণিত হতে চলেছেন আইনস্টাইন

এখন বিজ্ঞানীরা চেষ্টা করে যাচ্ছেন, আমাদের মিল্কিওয়ে (আকাশগঙ্গা) নীহারিকার কেন্দ্রের ব্ল্যাকহোলের ছবি তুলতে, আর তার পর অন্য ব্ল্যাকহোলগুলোরও। মহাকাশ আর গভীর সমুদ্রগর্ভের রহস্য সন্ধানে বিজ্ঞান আর প্রযুক্তির উন্নতি আজীবন চলবে। আশা রাখি, বর্তমান সমাজে মানুষ আর প্রকৃতির মধ্যে অসঙ্গতির সমাধানও করবে বিজ্ঞান আর প্রযুক্তির উন্নতি।

অনুবাদ: গঙ্গোত্রী (এনআইএসসি)

বিজ্ঞান

রক্তের গ্রুপের উপর কি কোভিড আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে, গবেষণায় জানাল সিএসআইআর

‘এবি’ এবং ‘বি’ রক্তের গ্রুপ হলে কোভিড আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা বেশি!

Published

on

খবর অনলাইন ডেস্ক: এক বছরের বেশি সময় ধরে করোনা অতিমারি গোটা বিশ্ব দাপিয়ে বেড়ালেও এই ভাইরাস নিয়ে এখনও অনেক প্রশ্নের উত্তরই অধরা। ফলে অসংখ্য গবেষণা চলছে নিরবচ্ছিন্ন ভাবে। সম্প্রতি তেমনই একটি গবেষণায় উঠে এসেছে, নির্দিষ্ট রক্তের গ্রুপের মানুষের উপর এই ভাইরাসের সংক্রমণ কতটা সংবেদনশীল।

কাউন্সিল অব সায়েন্টিফিক অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিয়াল রিসার্চের (CSIR) একটি গবেষণাপত্র পেশ করেছে। যেখানে দাবি করা হয়েছে, গবেষণায় দেখা গিয়েছে, অন্যান্য রক্তের গ্রুপের তুলনায় ‘এবি’ এবং ‘বি’ গ্রুপের ক্ষেত্রে কোভিড -১৯ (Covid-19)-এর প্রতি বেশি সংবেদনশীল। অর্থাৎ, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা তাঁদের বেশি থাকে।

Loading videos...

আমিষ এবং নিরামিষভোজী

সিএসআইআর-এর গবেষণাটি বলছে, যাঁরা আমিষ খাবার খান, তাঁরা নিরামিষভোজীদের থেকে কোভিড-১৯-এর প্রতি বেশি সংবেদনশীল।

কারণ হিসেবে অনুমান করা হয়েছে, নিরামিষ খাবারের মধ্যে যে পুষ্টি গুণ থাকে, তা শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে অনেক বাড়িয়ে তোলে। নিরামিষ খাবারে বেশি পরিমাণে ফাইবার উপাদান রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে তোলে। পাশাপাশি সংক্রমণ-পরবর্তী জটিলতাও প্রতিরোধ করতে পারে।

১০ হাজার মানুষের উপর সমীক্ষা

দেশ জুড়ে ১০ হাজারের মানুষের উপর সমীক্ষা চালিয়েছেন গবেষকরা। তথ্যগুলি বিশ্লেষণ করেছেন ১৪০ জন চিকিৎসক। সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, সব থেকে বেশি আক্রান্তের রক্ত ‘এবি’ গ্রুপের। এর পরেই ছিল ‘বি’ গ্রুপ। ‘ও’ রক্তের গ্রুপ যুক্ত আক্রান্তের সংখ্যা সব থেকে কম।

গবেষণায় আরও বলা হয়েছে, ‘ও’ গ্রুপের রক্তের মানুষেরা যেমন ভাইরাসে সব চেয়ে কম আক্রান্ত হয়েছিলেন, তেমনই তাঁদের বেশির ভাগই উপসর্গহীন অথবা মৃদু উপসর্গযুক্ত ছিলেন।

আরও পড়তে পারেন: স্বাস্থ্যকর্মীর ভুলে এক মহিলাকে কোভিড টিকার ৬টি ডোজ, তার পর কী হল

Continue Reading

বিজ্ঞান

পৃথিবীতে ফিরে এল চিনা রকেটের অবশিষ্টাংশ, পড়ল ভারত মহাসাগরে

স্পেস-ট্র্যাক টুইট করে বলেছে, “রকেটের পরিচালকরা এটা নিশ্চিত করে জানিয়েছে, এর অবশিষ্টাংশ মলদ্বীপের উত্তরে ভারত মহাসাগরে পড়েছে।”

Published

on

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রবিবার সকালে মলদ্বীপের (Maldives) কাছে ভারত মহাসাগরে (Indian Ocean) পড়ল চিনা রকেটের অবশিষ্টাংশ। চিনা মহাকাশ সংস্থা এই খবর দিয়েছে।

২৯ এপ্রিল লং মার্চ ৫বি ইয়াও-২ রকেট (Long March 5B Yao-2 Rocket) চিনের নতুন মহাকাশ স্টেশনের প্রথম মডিউলটিকে পৃথিবীর কক্ষপথে স্থাপন করে। তার পর এটি পথভ্রষ্ট হয়। ১৮ টনের পথভ্রষ্ট চিনা রকেটটি কোথায় কী অবস্থায় ভেঙে পড়বে তা নিয়ে গত কয়েক দিন ধরেই জল্পনা চলছিল। তারই মাঝে এল এই খবর। বেজিং-এ চিনা আধিকারিকরা বলেছিলেন, রকেটের যে অংশ অবাধে পৃথিবীর দিকে ছুটে আসছে, তা থেকে বিপদের খুব একটা সম্ভাবনা নেই।

Loading videos...

তবে মার্কিন মহাকাশ সংস্থা নাসা (NASA) এবং অন্য বিশেষজ্ঞরা বলেন, চিন দায়িত্বজ্ঞানহীনতার পরিচয় দিয়েছে। এই বিশাল একটি বস্তুর অনিয়ন্ত্রিত ভাবে পৃথিবীতে ফিরে আসার মধ্যে ক্ষয়ক্ষতি ও প্রাণহানির আশঙ্কা রয়েছে।

চিনের স্পেস ইঞ্জিনিয়ারিং অফিস এক বিবৃতিতে বলেছে, “নজরদারি চালিয়ে এবং বিশ্লেষণ করে দেখা গিয়েছে, ২০২১-এর ৯ মে সকাল ১০.২৪ মিনিটে (জিএমটি ২.২৪) লং মার্চ ৫বি ইয়াও-২ উৎক্ষেপণ যানের শেষাংশের ধ্বংসাবশেষ বায়ুমণ্ডলে প্রবেশ করেছে।” চিনা কর্তৃপক্ষ যে স্থানাঙ্কের হিসাব দিয়েছেন, তা থেকে অনুমান রকেটের অবশিষ্টাংশ মলদ্বীপের কাছে ভারত মহাসাগরে পড়েছে।

চিনা সংস্থা আরও জানিয়েছে, রকেটের বেশি অংশই নামার সময় টুকরো টুকরো হয়ে ধ্বংস হয়ে গিয়েছে।

মার্কিন সেনাবাহিনীর স্পেস কমান্ড জানিয়েছে, রকেট ৮ মে ইস্টার্ন ডেলাইট টাইম রাত ১০.১৫ (জিএমটি ২.১৫) নাগাদ আরব উপদ্বীপ অঞ্চলে প্রবেশ করে। “রকেটের ধ্বংসাবশেষ ভূমি বা জলে কোনো প্রভাব ফেলেছে কি না তা জানা যায়নি”, বলেছে স্পেস কমান্ড।

মার্কিন সেনাবাহিনী যে তথ্য দেয় তার ভিত্তিতে মহাকাশ নিয়ে নজরদারির পরিষেবা দেয় স্পেস-ট্র্যাক (Space-Track)। স্পেস-ট্র্যাক বলেছে, মার্কিন সিস্টেম শেষ পর্যন্ত যা রেকর্ড করেছে, তাতে রকেটের অবশিষ্টাংশ সৌদি আরবে পড়ার কথা।

স্পেস-ট্র্যাক টুইট করে বলেছে, “রকেটের পরিচালকরা এটা নিশ্চিত করে জানিয়েছে, এর অবশিষ্টাংশ মলদ্বীপের উত্তরে ভারত মহাসাগরে পড়েছে।”

মহাকাশ বিশেষজ্ঞরা বলেছিলেন, রকেটের ধ্বংসাবশেষ সমুদ্রেই পড়বে কারণ এই গ্রহের ৭০ ভাগই তো জল। বিশেষজ্ঞদের এই অনুমান মিলে গেল। চিনা রকেটের পৃথিবীতে নেমে আসা যে হেতু নিয়ন্ত্রণহীন ছিল, তাই এর অবশিষ্টাংশ কোথায় পড়বে তা নিয়ে সাধারণ মানুষের ব্যাপক আগ্রহ ছিল এবং নানা জল্পনা চলছিল।

আরও পড়ুন: অবাক কাণ্ড! বিশ্বের এই জায়গাগুলিতে সূর্য কখনো অস্ত যায় না!

                  

Continue Reading

বিজ্ঞান

কোভিডের ভাইরাস বায়ুবাহিত, ৬ ফুট পর্যন্ত ছড়াতে পারে, দাবি শীর্ষ মার্কিন সংস্থার

কোভিডের ভাইরাস বায়ুবাহিত এবং ৬ ফুট পর্যন্ত ছড়াতে সক্ষম, জানাল শীর্ষ মার্কিন মেডিক্যাল সংস্থা।

Published

on

খবর অনলাইন ডেস্ক: মাসখানেক আগে চিকিৎসা সংক্রান্ত আন্তর্জাতিক পত্রিকা ল্যানসেট (Lancet) দাবি করেছিল, কোভিড-১৯ (COVID-19) রোগের জন্য দায়ী সারস-কোভ-২ (SARS-CoV-2) বাতাসের মাধ্যমে সংক্রমণ ঘটাতে পারে। এ বার আমেরিকার সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন (US CDCP) জানাল, এই ভাইরাস বায়ুবাহিত এবং ৬ ফুট পর্যন্ত ছড়াতে সক্ষম।

শীর্ষ মার্কিন মেডিক্যাল সংস্থা জানিয়েছে যে সংক্রামক উৎসের তিন থেকে ছয় ফুটের মধ্যেই সংক্রমণের ঝুঁকি সব চেয়ে বেশি। যেখানে এই অতি সূক্ষ্ম ফোঁটা এবং কণার ঘনত্ব সবচেয়ে বেশি।

Loading videos...

একাধিক ভাবে সারস-কোভ-২ সংক্রমণ ঘটতে পারে। যেগুলির মধ্যে এখন অন্যতম হিসেবে দেখা হয়, প্রশ্বাসের সঙ্গে ভাইরাসের প্রবেশ, উন্মুক্ত শ্লৈষ্মিক ঝিল্লিতে ভাইরাস জমা হওয়া এবং ভাইরাসযুক্ত দূষিত স্থানে হাত দেওয়ার পরে তার সঙ্গে শ্লৈষ্মিক ঝিল্লির স্পর্শ।

সংস্থাটির মতে, শ্বাস-প্রশ্বাস, কথা বলা, গান গাওয়া, কাশি, হাঁচি বা অন্যান্য কাজের সময় মানুষের নাক-মুখ থেকে ফোঁটা আকারে তরল ছড়ায়। যাকে ড্রপলেট বলা হয়। ১-৯টি এ ধরনের ফোঁটা ভাইরাস বহন করে এবং অন্যকে সংক্রমিত করে। এই সূক্ষ্ম ফোঁটাগুলি দ্রুত শুকিয়ে যায়। সেগুলি থেকে তৈরি হওয়া ফোঁটা বা কণাগুলি অতি ক্ষুদ্র এবং অতি সূক্ষ্ম হওয়ার কারণে কয়েক মিনিট থেকে কয়েক ঘণ্টা পর্যন্ত বাতাসে থেকে যেতে পারে।

গবেষকরা বলছেন, সংক্রমণ বিস্তারের ঝুঁকির সঙ্গে এ ক্ষেত্রে সম্পর্ক রয়েছে উৎস থেকে দূরত্ব এবং শ্বাস ছাড়ার সময়ের। তবে যদিও সংক্রামক উৎস থেকে ৬ ফুটের বেশি দূরত্বে শ্বাস নেওয়া হলে অন্য ব্যক্তির সংক্রমিত হওয়ার ঝুঁকি কম থাকে।

পাশাপাশি সতর্কতামূলক পদক্ষেপ প্রসঙ্গে সংস্থাটি বলেছে, শারীরিক দূরত্ব, ভালো ভাবে ফিট হয় এমন মাস্ক ব্যবহার, পর্যাপ্ত বায়ুচলাচল এবং ভিড়বহুল জায়গাগুলি এড়ানোই ভাইরাস সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের হাতিয়ার।

আরও পড়তে পারেন: পঞ্চায়েত ভোটের আবহে উত্তরপ্রদেশে এক মাসে কোভিড আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েছে ৮ লক্ষ

Continue Reading
Advertisement
Advertisement
দেশ8 mins ago

Telangana Lockdown: ১২ মে থেকে ১০ দিনের শর্তসাপেক্ষ লকডাউন জারি হচ্ছে তেলঙ্গানায়

প্রযুক্তি33 mins ago

পশ্চিমবঙ্গ সরকারের কোভিড অ্যাপ, সহজে জানা যাবে যাবতীয় তথ্য

রাজ্য1 hour ago

দিব্যেন্দু অধিকারীর বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ জেলা তৃণমূলের

বিজ্ঞান2 hours ago

রক্তের গ্রুপের উপর কি কোভিড আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে, গবেষণায় জানাল সিএসআইআর

বিদেশ3 hours ago

স্বাস্থ্যকর্মীর ভুলে ইতালির এক মহিলাকে কোভিড টিকার ৬টি ডোজ, তার পর কী হল

রাজ্য4 hours ago

বিধায়ক পদ ছাড়ছেন রাজ্যের দুই বিজেপি নেতা

দেশ5 hours ago

আক্রান্ত কর্মীদের দেখতে গিয়ে হামলার শিকার ত্রিপুরার প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকার, অভিযুক্ত বিজেপি

দেশ5 hours ago

Corona Update: দৈনিক সংক্রমণকে ছাপিয়ে গেল সুস্থতা, দু’মাস ধরে টানা বৃদ্ধির পর অবশেষে কমল সক্রিয় রোগী

দেশ3 days ago

Covid Crisis: জলে গুলে খেতে হবে, করোনারোধী ওষুধে ছাড়পত্র দিল ডিজিসিআই

বিজ্ঞান2 days ago

কোভিডের ভাইরাস বায়ুবাহিত, ৬ ফুট পর্যন্ত ছড়াতে পারে, দাবি শীর্ষ মার্কিন সংস্থার

রাজ্য2 days ago

Bengal Corona Update: নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় একই, রাজ্যে বাড়ল সুস্থতা

রাজ্য3 days ago

Bengal Corona Update: সংক্রমণের হার ফের ৩০ শতাংশ পার, বাড়ল মৃতের সংখ্যাও, তবে কলকাতা-সহ ৯ জেলায় কমল সক্রিয় রোগী

দেশ2 days ago

ভ্যাকসিন এবং কোভিডের চিকিৎসা সরঞ্জামে ট্যাক্স কেন? মমতার চিঠির পর ১৬টা টুইট কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর

রাজ্য2 days ago

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তৃতীয় মন্ত্রীসভায় একাধিক নতুন মুখ

বিজ্ঞান2 days ago

পৃথিবীতে ফিরে এল চিনা রকেটের অবশিষ্টাংশ, পড়ল ভারত মহাসাগরে

দেশ3 days ago

Vaccination Drive: শীঘ্রই চতুর্থ কোভিড-টিকা পেয়ে যেতে পারে ভারত

ভিডিও

কেনাকাটা

কেনাকাটা2 months ago

বাজেট কম? তা হলে ৮ হাজার টাকার নীচে এই ৫টি স্মার্টফোন দেখতে পারেন

আট হাজার টাকার মধ্যেই দেখে নিতে পারেন দুর্দান্ত কিছু ফিচারের স্মার্টফোনগুলি।

কেনাকাটা3 months ago

সরস্বতী পুজোর পোশাক, ছোটোদের জন্য কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সরস্বতী পুজোয় প্রায় সব ছোটো ছেলেমেয়েই হলুদ লাল ও অন্যান্য রঙের শাড়ি, পাঞ্জাবিতে সেজে ওঠে। তাই ছোটোদের জন্য...

কেনাকাটা3 months ago

সরস্বতী পুজো স্পেশাল হলুদ শাড়ির নতুন কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সামনেই সরস্বতী পুজো। এই দিন বয়স নির্বিশেষে সবাই হলুদ রঙের পোশাকের প্রতি বেশি আকর্ষিত হয়। তাই হলুদ রঙের...

কেনাকাটা4 months ago

বাসন্তী রঙের পোশাক খুঁজছেন?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সামনেই আসছে সরস্বতী পুজো। সেই দিন হলুদ বা বাসন্তী রঙের পোশাক পরার একটা চল রয়েছে অনেকের মধ্যেই। ওই...

কেনাকাটা4 months ago

ঘরদোরের মেকওভার করতে চান? এগুলি খুবই উপযুক্ত

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ঘরদোর সব একঘেয়ে লাগছে? মেকওভার করুন সাধ্যের মধ্যে। নাগালের মধ্যে থাকা কয়েকটি আইটেম রইল অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদন লেখার...

কেনাকাটা4 months ago

সিলিকন প্রোডাক্ট রোজের ব্যবহারের জন্য খুবই সুবিধেজনক

খবরঅনলাইন ডেস্ক: নিত্যপ্রয়োজনীয় বিভিন্ন সামগ্রী এখন সিলিকনের। এগুলির ব্যবহার যেমন সুবিধের তেমনই পরিষ্কার করাও সহজ। তেমনই কয়েকটি কাজের সামগ্রীর খোঁজ...

কেনাকাটা4 months ago

আরও কয়েকটি ব্র্যান্ডেড মেকআপ সামগ্রী ৯৯ টাকার মধ্যে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: আজ রইল আরও কয়েকটি ব্র্যান্ডেড মেকআপ সামগ্রী ৯৯ টাকার মধ্যে অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদন লেখার সময় যে দাম ছিল...

কেনাকাটা4 months ago

রান্নাঘরের এই সামগ্রীগুলি কি আপনার সংগ্রহে আছে?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রান্নাঘরে বাসনপত্রের এমন অনেক সুবিধেজনক কালেকশন আছে যেগুলি থাকলে কাজ অনেক সহজ হয়ে যেতে পারে। এমনকি দেখতেও সুন্দর।...

কেনাকাটা4 months ago

৫০% পর্যন্ত ছাড় রয়েছে এই প্যান্ট্রি আইটেমগুলিতে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: দৈনন্দিন জীবনের নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসগুলির মধ্যে বেশ কিছু এখন পাওয়া যাচ্ছে প্রায় ৫০% বা তার বেশি ছাড়ে। তার মধ্যে...

কেনাকাটা4 months ago

ঘরের জন্য কয়েকটি খুবই প্রয়োজনীয় সামগ্রী

খবরঅনলাইন ডেস্ক: নিত্যদিনের প্রয়োজনীয় ও সুবিধাজনক বেশ কয়েকটি সামগ্রীর খোঁজ রইল অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদনটি লেখার সময় যে দাম ছিল তা-ই...

নজরে