30 C
Kolkata
Friday, June 18, 2021

পৃথিবীতে ফিরে এল চিনা রকেটের অবশিষ্টাংশ, পড়ল ভারত মহাসাগরে

আরও পড়ুন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রবিবার সকালে মলদ্বীপের (Maldives) কাছে ভারত মহাসাগরে (Indian Ocean) পড়ল চিনা রকেটের অবশিষ্টাংশ। চিনা মহাকাশ সংস্থা এই খবর দিয়েছে।

২৯ এপ্রিল লং মার্চ ৫বি ইয়াও-২ রকেট (Long March 5B Yao-2 Rocket) চিনের নতুন মহাকাশ স্টেশনের প্রথম মডিউলটিকে পৃথিবীর কক্ষপথে স্থাপন করে। তার পর এটি পথভ্রষ্ট হয়। ১৮ টনের পথভ্রষ্ট চিনা রকেটটি কোথায় কী অবস্থায় ভেঙে পড়বে তা নিয়ে গত কয়েক দিন ধরেই জল্পনা চলছিল। তারই মাঝে এল এই খবর। বেজিং-এ চিনা আধিকারিকরা বলেছিলেন, রকেটের যে অংশ অবাধে পৃথিবীর দিকে ছুটে আসছে, তা থেকে বিপদের খুব একটা সম্ভাবনা নেই।

Loading videos...
- Advertisement -

তবে মার্কিন মহাকাশ সংস্থা নাসা (NASA) এবং অন্য বিশেষজ্ঞরা বলেন, চিন দায়িত্বজ্ঞানহীনতার পরিচয় দিয়েছে। এই বিশাল একটি বস্তুর অনিয়ন্ত্রিত ভাবে পৃথিবীতে ফিরে আসার মধ্যে ক্ষয়ক্ষতি ও প্রাণহানির আশঙ্কা রয়েছে।

চিনের স্পেস ইঞ্জিনিয়ারিং অফিস এক বিবৃতিতে বলেছে, “নজরদারি চালিয়ে এবং বিশ্লেষণ করে দেখা গিয়েছে, ২০২১-এর ৯ মে সকাল ১০.২৪ মিনিটে (জিএমটি ২.২৪) লং মার্চ ৫বি ইয়াও-২ উৎক্ষেপণ যানের শেষাংশের ধ্বংসাবশেষ বায়ুমণ্ডলে প্রবেশ করেছে।” চিনা কর্তৃপক্ষ যে স্থানাঙ্কের হিসাব দিয়েছেন, তা থেকে অনুমান রকেটের অবশিষ্টাংশ মলদ্বীপের কাছে ভারত মহাসাগরে পড়েছে।

চিনা সংস্থা আরও জানিয়েছে, রকেটের বেশি অংশই নামার সময় টুকরো টুকরো হয়ে ধ্বংস হয়ে গিয়েছে।

মার্কিন সেনাবাহিনীর স্পেস কমান্ড জানিয়েছে, রকেট ৮ মে ইস্টার্ন ডেলাইট টাইম রাত ১০.১৫ (জিএমটি ২.১৫) নাগাদ আরব উপদ্বীপ অঞ্চলে প্রবেশ করে। “রকেটের ধ্বংসাবশেষ ভূমি বা জলে কোনো প্রভাব ফেলেছে কি না তা জানা যায়নি”, বলেছে স্পেস কমান্ড।

মার্কিন সেনাবাহিনী যে তথ্য দেয় তার ভিত্তিতে মহাকাশ নিয়ে নজরদারির পরিষেবা দেয় স্পেস-ট্র্যাক (Space-Track)। স্পেস-ট্র্যাক বলেছে, মার্কিন সিস্টেম শেষ পর্যন্ত যা রেকর্ড করেছে, তাতে রকেটের অবশিষ্টাংশ সৌদি আরবে পড়ার কথা।

স্পেস-ট্র্যাক টুইট করে বলেছে, “রকেটের পরিচালকরা এটা নিশ্চিত করে জানিয়েছে, এর অবশিষ্টাংশ মলদ্বীপের উত্তরে ভারত মহাসাগরে পড়েছে।”

মহাকাশ বিশেষজ্ঞরা বলেছিলেন, রকেটের ধ্বংসাবশেষ সমুদ্রেই পড়বে কারণ এই গ্রহের ৭০ ভাগই তো জল। বিশেষজ্ঞদের এই অনুমান মিলে গেল। চিনা রকেটের পৃথিবীতে নেমে আসা যে হেতু নিয়ন্ত্রণহীন ছিল, তাই এর অবশিষ্টাংশ কোথায় পড়বে তা নিয়ে সাধারণ মানুষের ব্যাপক আগ্রহ ছিল এবং নানা জল্পনা চলছিল।

আরও পড়ুন: অবাক কাণ্ড! বিশ্বের এই জায়গাগুলিতে সূর্য কখনো অস্ত যায় না!

                  

- Advertisement -

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

- Advertisement -

আপডেট

মুকুল রায়কে সামনে রেখে শুভেন্দু অধিকারীকে চাপে ফেলে দিলেন কুণাল ঘোষ

মুকুল রায়কে নিয়ে এত দৌড়াদৌড়ির কী আছে, বাড়িতে গিয়ে বাবাকে বলতে পারেন শুভেন্দু, বললেন কুণাল!

পড়তে পারেন