বহমান ইছামতী, ও-পার বাংলার নদীতট, মাছভাত

0

subir chowdhury

সুবীর চৌধুরী

সাবেক টাকি রাজ্যের পূর্বতন রাজধানী শহর ছিল ‘টাকি’। বর্তমানে এই মিউনিসিপ্যালিটি শহরটি পশ্চিমবঙ্গের উত্তর ২৪পরগনা জেলার বসিরহাট সাবডিভিশনের হাসনাবাদ থানার অর্ন্তগত। এই শহরের পাশ দিয়ে বহমান ইছামতী নদী ভারত ও বাংলাদেশের সীমান্তরেখা। ইছামতী নদী-তীরে গড়ে ওঠা এই জনপদে টাকি রাজ্যের পত্তন হয়েছিল মোঘল সাম্রাজ্যের সময় থেকে। এমনকী মোঘল যুগ অতিক্রম করে ইংরাজ আমলেও বর্তমান ছিল এই রাজত্ব।

taki 3
আজ সেই ঐতিহাসিক টাকি শহর এক ঐতিহ্যমণ্ডিত (হেরিটেজ টাউন) শহর হিসাবে ঘোষিত এবং উল্লেখযোগ্য ভ্রমণস্থান হিসাবে পরিচিত। টাকি শহরকে সুন্দরবনের প্রবেশদ্বার বলে চিহ্নিত করা হয়। নদীপথে বঙ্গপোসাগরের দূরত্ব এখান থেকে খুব বেশি নয়।
বেড়াতে এসে থাকার ব্যবস্থা এখানে আনেক। তবে টাকি পৌরসভা পরিচালিত গেস্টহাউস ‘নৃপেন্দ্র অতিথিশালা’ সবার চেয়ে ভালো। ভাড়া খুব বেশি নয়। যে ঘরগুলি থেকে নদী দেখা যায় সেগুলির দর একটু বেশি। তবে এখানে ঘর পওয়া বেশ কঠিন এবং কমপক্ষে এক মাস আগে থেকে তার জন্য চেষ্টা করা উচিত। এই গেস্টহাউসেই খাবার ব্যবস্থা আছে। চিংড়ি-পারশে-ভেটকি- রুই বা কাতলা মাছ পাবেন যথেষ্ট ঠিকঠাক দামে। মিল সিস্টেমে খাওয়ার ব্যবস্থা। চিকেন বা মটন পাওয়া গেলেও এ সব খেতে কি আর এখানে কেউ আসে ? এখানে মানুষ আসে মাছ খেতে।

taki 13
আপনি চাইলে নৌকা করেও ইছামতী ভ্রমণের সুযোগ আছে। সারা দিনের (চার ঘণ্টা) জন্য নৌকা ভাড়া করে পিকনিক করতে পারেন। ওই রকম ভাবে ভাড়া হল ২৫০০ টাকা। সে ক্ষেত্রে আগে থেকে খাবার তুলে নিতে হয়। কারণ সময়াভাবে নৌকায় রান্না করে খাবার তৈরি করে খাওয়া যায় না।
টাকী বিশ্রামের জন্য অত্যন্ত উপযুক্ত ও মনোরম জায়গা। তিনটে দিন। প্রথম দিন এসে পৌঁছলেন, দ্বিতীয় দিন পিকনিক আর তৃতীয় দিন ফেরা। দুটো রাতের জন্য থাকার বুকিং। উদাস নদী, মাছের মালাইকারি ঝোল, বেসুরে গান, ও-পারের নষ্টালজিয়া, ফিরে পাওয়া প্রেম। এই নিয়ে ইছামতী। যাবেন নাকি ?

নৃপেন্দ্র অতিথিশালার ঠিকানা :

টাকি ঘাট রোড, টাকি, পশ্চিমবঙ্গ – ৭৪ ২৪৩৯। ফোন : ০৩২১৭-২৩৩৩২৮।



LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here