arun-raghavanঅরুণ রাঘবন, ত্রিচি, তামিলনাড়ু

নিজের পরিবারকে ভালোবাসা আর সম্মান দেওয়ার সমতুল্য আমার কাছে যদি কেউ থেকে থাকে তা হল সৌরভ। গত কুড়ি বছর ধরে দাদা আমার সব চেয়ে বড়ো অনুপ্রেরণা আর শক্তি। যখনই জীবনে ব্যর্থ হয়েছি, ঘুরে দাঁড়াবার জন্য দাদার দিকেই তাকিয়েছি। লর্ডসে অভিষেকের কুড়ি বছর পূর্ণ হল। যখনই লর্ডসের কথা ওঠে, তখনই বারেবারে ফিরে দেখি দাদার সেই অসামান্য ইনিংসটা। কভার দিয়ে সেই বাউন্ডারিগুলো এখনও আমার স্মরণে টাটকা। মাঝেমধ্যেই ইউটিউবে সেই ইনিংসটা দেখি। অভিষেকে দাদার বোলিংও ভোলার নয়। জীবনে কখনও হাল ছেড়ে দিও না— এই বার্তাই দাদার থেকে পাই সবসময়। ’৯২তে একটা সুযোগ পাওয়ার পর ড্রপ করে দেওয়া, দাদার কঠিন ট্রেনিং, প্র্যাকটিস আবার তাঁকে ফিরিয়ে আনল দলে, তার পর বাকিটা ইতিহাস। তাই জীবনে কখনও হাল ছেড়ে দিও না। তুমি এক বার, দু’বার এমনকি তিন বারও বার্থ হতে পারো, কিন্তু চেষ্টা চালিয়ে যাবে। কে বলতে পারে তোমার লর্ডসের মুহূর্ত তোমার জন্য অপেক্ষা করে আছে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here