হেলসিঙ্কি: আদতে একটি রেডিও স্টেশন আয়োজিত গানের উৎসব। উৎসবে যোগ দিতে আসা দর্শক ও শিল্পীদের জন্য এই ইভেন্টটির আয়োজন করেন উদ্যোক্তারা। লক্ষ্য ছিল, ১০০০ মানুষকে পূর্ব ফিনল্যান্ডের ওই হ্রদের বরফ-ঠান্ডা জলে নামানো, নগ্ন অবস্থায়। কিন্তু তা হয়নি। জন্মের সময়কার পোশাকে হ্রদে নামেন শেষ পর্যন্ত অনেক কম মানুষ। ৭৮৯ জন।

তাতেও হয়ে গেছে বিশ্বরেকর্ড। এর আগে ২০১৫  সালের ৮ মার্চ অস্ট্রেলিয়ার পার্থের সমুদ্রে একসঙ্গে নগ্ন-স্নান করেছিলেন ৭৮৬ জন। এবার ফিনল্যান্ডে বেশি হল ৩ জন। তবে ওই রেকর্ড ভাঙার চেষ্টা চলেছে গত ২ বছরও। ফিনল্যান্ডের এই রক সঙ্গীতের রেডিও স্টেশনটির উদ্যোগে ২০১৫ এবং ২০১৬ সালে নগ্ন-স্নানে যোগ দেওয়ার আহ্বান জানানো হয়েছিল জনগণকে। কিন্তু কোনোবারই ৩০০-র বেশি লোক জোটেনি।

ফিনল্যান্ডের নানা প্রান্ত থেকে এই স্নানে যোগ দিতে এসেছিলেন মানুষ। নিয়ম হল, বিশ্বরেকর্ড ভাঙতে হলে জলে অন্তত ৫ মিনিট থাকতে হবে। কিন্তু হাড় হিম করা ঠান্ডা জলে ৫ মিনিট থাকা কি মুখের কথা! সাড়ে চার মিনিট পেরোতেই অংশগ্রহণকারীরা একসঙ্গে শুরু করে দেন ফিনল্যান্ডের জাতীয় সঙ্গীত।

আরও পড়ুন: সারা দুনিয়ায় ছড়িয়ে থাকা বিচিত্র সব যৌন আচার, ১১টি নমুনা

এখন অপেক্ষা, গিনেস বুক অফ রেকর্ডস কবে আনুষ্ঠানিক ভাবে বিশ্বরেকর্ডের স্বীকৃতিটা দেয়!

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন