হেলসিঙ্কি: আদতে একটি রেডিও স্টেশন আয়োজিত গানের উৎসব। উৎসবে যোগ দিতে আসা দর্শক ও শিল্পীদের জন্য এই ইভেন্টটির আয়োজন করেন উদ্যোক্তারা। লক্ষ্য ছিল, ১০০০ মানুষকে পূর্ব ফিনল্যান্ডের ওই হ্রদের বরফ-ঠান্ডা জলে নামানো, নগ্ন অবস্থায়। কিন্তু তা হয়নি। জন্মের সময়কার পোশাকে হ্রদে নামেন শেষ পর্যন্ত অনেক কম মানুষ। ৭৮৯ জন।

তাতেও হয়ে গেছে বিশ্বরেকর্ড। এর আগে ২০১৫  সালের ৮ মার্চ অস্ট্রেলিয়ার পার্থের সমুদ্রে একসঙ্গে নগ্ন-স্নান করেছিলেন ৭৮৬ জন। এবার ফিনল্যান্ডে বেশি হল ৩ জন। তবে ওই রেকর্ড ভাঙার চেষ্টা চলেছে গত ২ বছরও। ফিনল্যান্ডের এই রক সঙ্গীতের রেডিও স্টেশনটির উদ্যোগে ২০১৫ এবং ২০১৬ সালে নগ্ন-স্নানে যোগ দেওয়ার আহ্বান জানানো হয়েছিল জনগণকে। কিন্তু কোনোবারই ৩০০-র বেশি লোক জোটেনি।

ফিনল্যান্ডের নানা প্রান্ত থেকে এই স্নানে যোগ দিতে এসেছিলেন মানুষ। নিয়ম হল, বিশ্বরেকর্ড ভাঙতে হলে জলে অন্তত ৫ মিনিট থাকতে হবে। কিন্তু হাড় হিম করা ঠান্ডা জলে ৫ মিনিট থাকা কি মুখের কথা! সাড়ে চার মিনিট পেরোতেই অংশগ্রহণকারীরা একসঙ্গে শুরু করে দেন ফিনল্যান্ডের জাতীয় সঙ্গীত।

আরও পড়ুন: সারা দুনিয়ায় ছড়িয়ে থাকা বিচিত্র সব যৌন আচার, ১১টি নমুনা

এখন অপেক্ষা, গিনেস বুক অফ রেকর্ডস কবে আনুষ্ঠানিক ভাবে বিশ্বরেকর্ডের স্বীকৃতিটা দেয়!

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here