পুনে : জগতে কিছুই অসম্ভব নয়। এ কথার সত্য তা প্রমাণ করে দিল ১৫ বছরের মানসভি বাহেতি।

সম্পূর্ণ দৃষ্টি শক্তি রহিত মানসভি দশম শ্রেণির পড়ুয়া। সে আর তাঁর বাবা কৈলাস বাহেতি দু’ জনে মিলে সাইকেলে করে ৫০০ কিলোমিটার পথ অতিক্রম করল। তাও যে সে পথ নয়। এক্কেবারে পাহাড়ি ভয়ংকর পথ। মানালি থেকে লে হয়ে খারদুংলা গিরিপথ। শুধু সাইকেলে।

অ্যাডভেঞ্চার বিয়ন্ড বেরিয়ার্স ফাউন্ডেশন (এবিবিএফ) এই অভিযানের আয়োজন করেছিল। এদের উদ্দেশ্য প্রতিবন্ধী মানুষদের এগিয়ে দেওয়া। তাদের তুলে আনা। অক্ষম আর ক্ষমতাবান মানুষদের তারা এক সঙ্গে দুঃসাহসিক অভিযানে নামায়। ২০১৪ সালে এর প্রতিষ্ঠা হয়। ট্রেকিং, স্কুবা ডাইভিং, প্যারাগ্লইডিং এবং পর্বতারোহণের মতো দুঃসাহসিক সব অভিযানের আয়োজন করে এরা।

এরা দাবি করছে অন্ধ আর স্বাভাবিক মানুষদের মিলিত ভাবে হিমালয়ের বুকে এটাই প্রথম অভিযান।

মানসভিদের মতো মোট দশ জোড়া দল এই অভিযানে গিয়েছিল। তারা মানালি থেকে খারদুংলা এই গোটা পথ অতিক্রম করেছে মাত্র ২ সপ্তাহের মধ্যে। এই দশ জোড়ার মধ্যে মানসভিই সব থেকে ছোটো অভিযাত্রী।

সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা দিব্যাংশু গণিত্র বলেন, তাঁদের লক্ষ্য মানুষের মধ্যে থেকে অক্ষমতার ভয়, অন্ধকার দূর করা। মানসভি খুবই সাহসি। এই ভাবে এই অভিযান পেশাদারদের জন্যই যথেষ্ট ভয়ের আর কঠিন। কিন্তু যে ভাবে মানসভি অভিযান করেছে সেটা সত্যিই বিস্ময়কর।

মানসভি বলে, “একটা দারুণ ব্যাপার ছিল। রোজ খুব তাড়াতাড়ি উঠতে হত। মেডিক্যাল পরীক্ষা হত। তাঁবুতে থাকতে হত। অল্প অল্প তুষারপাত হত। ছ’ ছ’টা গিরিপথ অতিক্রম করতে হয়েছে। তার পর খারদুংলা। এটাই সব থেকে সুন্দর। দলের সব বড়োরাই কাঁদছিল। আমি জানি পর্বত মানুষকে ছোটো বানিয়ে দেয়”।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here