kiran patra on mt. kilimanjaro
মধুমন্তী চট্টোপাধ্যায়

লাইফ বিগিন্স অ্যাট ফরটি…। না না, ওটা সিক্সটি হবে বোধহয়। তা না হলে এমন ঘটনাও ঘটে! হ্যাঁ বিশ্বাস করা কঠিন হলেও ঘটেছে। বয়সের হিসেবে খুব শিগগির প্রবীণ নাগরিকত্ব পেতে চলা কিরণ পাত্র সম্প্রতি পা রেখেছেন কিলিমাঞ্জারোর চুড়োয়। বেসরকারি এক অ্যাডভেঞ্চার সংস্থা আয়োজিত অভিযানের সাত জন অভিযাত্রীর মধ্যে কিরণবাবুই ছিলেন প্রবীণতম। অভিযানের ব্যবস্থাপনায় ছিল ট্রিপ ৩৬০ ডিগ্রি। সাত পর্বতারোহী দলের নেতৃত্বেও ছিলেন সপ্তশৃঙ্গ জয়ী বাঙালি সত্যরূপ সিদ্ধান্ত। বাকি সদস্যরা ভারতের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে যোগ দিয়েছিলেন অভিযানে।

kiran patra on expedition৫৯ বছরের কিরণ পাত্র পেশায় ব্যবসায়ী। ছাত্রজীবনে ফুটবল ছিল নেশা। পাহাড়ে ট্রেকিং-এর শখটাও বেশ আগে থেকেই। তবে বড়োসড়ো অভিযান বা এক্সপিডিশন বলতে যা বোঝায় তার হাতেখড়ি ২০১৩ সালে। এর মধ্যে মাউন্ট কানামো, এলব্রুসের মতো পর্বতে সফল অভিযানের অভিজ্ঞতা রয়েছে তাঁর ঝোলায়। মাত্র বছর পাঁচেকের মধ্যেই কিরণবাবু পা রাখলেন সিংহরাজের দেশে। টিম লিডার সত্যরূপের ভাষায়, “আবহাওয়া প্রতিকূল থাকায় অভিযান যথেষ্ট চ্যালেঞ্জিং ছিল। স্থানীয় লোকেরাই বলেছেন শেষ দু’ দশকে এমন আবহাওয়া প্রত্যক্ষ করেননি কেউ। এ বারের কিলিমাঞ্জারো (উচ্চতা ৫৮৯২ মিটার) অভিযান আরেকটা কারণেও বেশ অভিনব ছিল। দলের দু’জনের বয়স ছিল চল্লিশের ওপরে। বাকি দু’জন পঞ্চাশের ঘরে। কিরণদা ষাট ছুঁই ছুঁই। ওঁরা প্রমাণ করল এজ ইজ জাস্ট আ নাম্বার।”

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here