ওয়েবডেস্ক: কেদারনাথ আর বদরীনাথের মাঝে যোগাযোগের রাস্তা ওই একটাই। পানপাতিয়া গিরিপথ। ১২০ কিলোমিটার দীর্ঘ পথের পুরোটাই দুর্গম। গাড়োয়াল হিমালয়ের এই অঞ্চল পর্বতারোহীদের কাছে এখনও তেমন জনপ্রিয় নয়। তাই তাঁদের প্রথম অভিযান হিসেবে পানপাতিয়া গিরিপথকে বেছে নিয়েছিলেন আরোহণ মুসাফিরের ১৬ জন সদস্য। প্রাকৃতিক দুর্যোগ, রাস্তার ভয়াবহতাকে জয় করে অবশেষে সফল ভাবে অভিযান সম্পূর্ণ করলেন দলের ১৩ জন সদস্য।

সফল ১৩ অভিযাত্রীর মধ্যে ছিলেন এক মহিলা সদস্যও। দলের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, বহ্নিদীপা মল্লিক খুব সম্ভবত দ্বিতীয় মহিলা পর্বতারোহী, যিনি এই অভিযান সফল ভাবে সম্পন্ন করলেন।

আরোহণ মুসাফিরের পথ চলা শুরু এ বছরের প্রথমেই। দলের অধিকাংশ সদস্যই অবশ্য আরোহণে অভিজ্ঞ। চন্দননগরের শুভজিত ঘোষ এবং সুশোভন পালচৌধুরীর নেতৃত্বে কলকাতা থেকে অভিযান শুরু করে ১৬ সদস্যের দল। অভিযানের খরচ তোলার দায়িত্ব ছিল নিজেদের ওপরেই। তবে সাহায্য পেয়েছেন শুভাকাঙ্ক্ষীদের। যেমন অভিযানের উপযোগী রোদচশমা এবং টুপির জোগান দিয়েছেন চন্দননগরের চিকিৎসক প্রিয়ম্বদ লস্কর। “কম্পিউটার গেমস্‌-এর যুগে বাচ্চারা যেখানে মাঠে নামতেই ভুলে গেছে, সেখানে এমন অ্যাডভেঞ্চারের কথা ভেবেই ভালো লাগে। টাকাপয়সার জোগাড় ওঁরাই করেছেন, আমি পাশে থাকার চেষ্টা করেছি মাত্র”, বললেন প্রিয়ম্বদবাবু।

সেপ্টেম্বরের ৪ তারিখ বেসক্যাম্প ছেড়ে বেরিয়ে পড়া ফাইনাল মার্চের লক্ষ্যে এবং অবশেষে ৫ তারিখ সকাল সওয়া আটটায় ১৩ জন আরোহীর পানপাতিয়ার উচ্চতম বিন্দুতে (৫২৬০মি) পা রাখা। কেমন ছিল সে সব অভিজ্ঞতা? স্বপ্ন ছোঁয়ার রাস্তাটা কিন্তু স্বপ্নের মতো ছিল না। বরং তার  উলটোটাই। টানা সাত-আট দিন বৃষ্টি, তুষারধস, মাঝে মাঝে মেঘ ভাঙা বৃষ্টি, বাদ পড়েনি কিছুই। ১০-১২ দিন জল, খাওয়া-দাওয়া কোনোটাই যথেষ্ট ছিল না। উপরন্তু ছিল চারপাশ থেকে বিপদের হাতছানি। কখনও হাঁটু অবধি বরফের নীচে ডুবে গিয়েছে পা, কখনও বা ফাঁদ বিছিয়ে অপেক্ষা ক্রিভাসের। তৃষ্ণা মেটাতে এক সময় খাবলা খাবলা বরফ মুখে পুরেছেন ওঁদের কেউ কেউ।

প্রচণ্ড প্রতিকূল পরিবেশেও পাশে পেয়েছেন সঙ্গে থাকা শেরপা প্রেম ঠাকুর এবং গুমান নেগিকে, খবর অনলাইনকে জানালেন দলনেতা শুভজিতবাবু। জানাতে ভুললেন না, ভয়ংকর সুন্দরের টানে আবারও বেরিয়ে পড়বেন অজানায়, সব ঠিক থাকলে সামনের মে-তেই।

2 মন্তব্য

  1. অসংখ্য ধন্যবাদ খবরOnline কে আমাদের পানপাতিয়া কল অভিযানের প্রতিবেদন প্রকাশ করার জন্য।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here