প্রথম অসামরিক দল হিসেবে হিমাচলের ছ’হাজারি শৃঙ্গে বাংলার এক মাউন্টেনিয়ারিং ক্লাব

0

ওয়েবডেস্ক: হিমাচল প্রদেশের লাহুল-স্পিতি অঞ্চলের এক ছ’হাজারি পিক ‘লেডি অব কেলং।’ ২৮ আগস্টের আগে পর্যন্ত অসামরিক কোনো ভারতীয় অভিযাত্রী দল এই শৃঙ্গে পা রাখেনি। সেটাই করে ফেলল কলকাতার শিখর মাউন্টেনিয়ারিং ক্লাব।

২৮ আগস্ট সকালে সাড়ে সাতটায় দুই গাইড করণ নেগি ও শের সিংকে সঙ্গে নিয়ে এই শৃঙ্গে পা রাখেন এই মাউন্টেনিয়ারিং ক্লাবের দুই সদস্য সুপ্রতিম ও পীতাম্বর লাল।

৬০৬১ মিটার উচ্চতার এই শৃঙ্গে আগে কখনও অসামরিক অভিযাত্রী দল অভিযান করেনি বলে দাবি শিখর মাউন্টেনিয়ারিং ক্লাবের। সে কারণে এই ব্যাপারটা তাদের কাছে আরও বেশি গর্বের।

আরও পড়ুন আবার রাজসিক প্রত্যাবর্তন স্টিভ স্মিথের

উল্লেখ্য, ‘লেডি অব কেলং’ অভিযানের জন্য গত ১৮ আগস্ট কলকাতা থেকে রওনা দেয় দলটি। ২০ আগস্ট চণ্ডীগড়ে নেমে সোজা মানালি পৌঁছে যান অভিযাত্রীরা। এর পর জিসপা হয়ে টিনো গ্রামে পৌঁছে ২৪ তারিখ সেখানে বেসক্যাম্প স্থাপন করা হয়। এখানেই একটি পাহাড়ি কুকুর অভিযাত্রীদলের সঙ্গী হয়। এর পর ক্যাম্প ১ এবং ক্যাম্প ২-তে থেকে ২৭ আগস্ট সামিট ক্যাম্প স্থাপন করেন অভিযাত্রীরা। সেখান থেকে ২৮ আগস্ট ভোর ২:৪৫-এ চূড়ান্ত অভিযানে বেরোন তাঁরা। নড়বড়ে বোল্ডার ও তিন-চারটে আইস ওয়াল পেরিয়ে দক্ষিণ-পশ্চিম গিরিশরা ধরে তাঁরা চলতে থাকেন। শেষ পর্যন্ত সাড়ে ৭টা নাগাদ তাঁরা শৃঙ্গে পৌঁছোন। আশ্চর্যের ব্যাপার হল তাঁদের সঙ্গী কুকুরটা কোন পথ দিয়ে যেন আগেই শৃঙ্গে পৌঁছে যায়।

উল্লেখ্য, আগস্টের শুরু থেকে আবার পর্বতারোহণের মরশুম শুরু হয়েছে। হিমাচল এবং উত্তরাখণ্ডের শৃঙ্গগুলিতে পা রাখতে এগিয়ে যাচ্ছে বিভিন্ন অভিযাত্রী দল। আগামী কয়েক দিনের মধ্যে নন্দাদেবী ইস্টে পা রাখার কথা সাউথ ক্যালকাটা ট্রেকার্স এ্যাসোসিয়েশনের। হিমাচলের চন্দ্রভাগা-১২-এ কিছু দিনের মধ্যেই পা রাখার কথা পানিহাটির নীলকণ্ঠ অভিযাত্রী সংঘেরও।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here