বিশেষ প্রতিনিধি: নির্দিষ্ট কোনো সিদ্ধান্ত আজ হওয়ার কথা ছিল না। হয়ওনি। কিন্তু ভারতীয় ফুটবল কোন পথে আগামী দিনে হাঁটবে, তার ইঙ্গিত মিলে গেল কুয়ালা লামপুরে এদিনের এএফসি-র বৈঠকে।

এদিনের বৈঠকে উপস্থিত ছিল আই লিগের ক্লাবগুলি, এআইএফএফ-এর প্রতিনিধি, কেন্দ্রীয় ক্রীড়া মন্ত্রকের প্রতিনিধি এবং আইএমজিআর-এর প্রতিনিধিরা।

বৈঠকের শুরুতে মোহনবাগান এবং ইস্টবেঙ্গল আলাদা আলাদা ভাবে নিজেদের ক্লাব সম্পর্কে প্রেজেন্টেশন দেয়। সেখানে ক্লাবগুলির দীর্ঘ দিনের ঐতিহ্য, সাফল্য এবং ভারতীয় ফুটবলে তাঁদের অবদানের খতিয়ান তুলে ধরা হয়। বক্তব্য রাখেন অন্যান্য প্রতিনিধিরাও। সবার কথা শুনে এএফসি জানিয়েছে, ১০০ বছরের পুরোনো ক্লাবগুলিকে অগ্রাহ্য করা যাবে না আবার নতুন ক্লাবগুলিকে সঙ্গে নিয়েও চলতে হবে।

এদিনের বৈঠকে আইএসএল-কে স্বীকৃতি দেয়নি এএফসি। এআইএফএফ-কে বলা হয়েছে ভারতীয় ফুটবলের স্বল্পমেয়াদি অর্থাৎ আগামী বছরের রোডম্যাপ তৈরি করতে। সেটা দেখে দীর্ঘমেয়াদি রোডম্যাপ তৈরি করবে এএফসি। এ ব্যাপারে অনূর্ধ্ব ১৭ বিশ্বকাপের পরে ফের বৈঠকে বসবে এএএফসি।

অর্থাৎ এ বছর ভারতীয় ফুটবল কোন খাতে বইবে, তা ঠিক করবে এআইএফএফ। বল এখন তাদের কোর্টে। তবে সূত্রের খবর, এ বছর আইএসএল এবং আইলিগ দুটোই হবে। সেক্ষেত্রে ১০ দলের আইএসএল চার মাসে শেষ করার চ্যালেঞ্জ এইআইএফএফ-এর।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন