কলকাতা: ইন্ডিয়ান সুপার লিগ, ভারতীয় ফুটবলের উন্নতিতে নতুন দিন এনেছে বা আনবে। এমন ধারণা রয়েছে অনেকেরই। নানা বিষয়ে ভিন্নমত থাকলেও কলকাতার দুই প্রধান যে আগামী দিনে আইএসএল খেলতে আগ্রহী, তা ঠারেঠোরে বুঝিয়ে দিচ্ছেন কর্মকর্তারা। এএফসি-ও জানিয়ে দিয়েছে কর্পোরেট উদ্যোগকে বাদ দিয়ে ভারতীয় ফুটবলকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া যাবে না। কিন্তু আইএসএল, ভারতীয় ফুটবলের উন্নতিতে কোনো দিক দেখাতে পারছে কি? যে মডেলে এই লিগ চলছে, তাতে স্বচ্ছতা কতটা রয়েছে? এই সব নিয়ে আইএসএল-এর আয়োজক সংস্থা আইএমজিআর এবং ভারতীয় ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা অল ইন্ডিয়া ফুটবল ফেডারেশনের কাছে, তথ্যের অধিকার আইনে তিনটি প্রশ্নের উত্তর চেয়েছিলেন মোহনবাগান ক্লাবের সদস্য সৌগত ঘোষ।

আইএমজিআর-এর কাছে তাঁর প্রশ্ন ছিল, ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্লাবগুলির থেকে গত ক’বছরে যে ৩৬০ কোটি টাকা নেওয়া হয়েছে, সেগুলি কীভাবে খরচ হচ্ছে বা হয়েছে?

দ্বিতীয় প্রশ্ন ছিল, আইএমজিআর বলে আইএসএল-র প্রতিটি ক্লাবের সঙ্গে তাঁদের চুক্তি আছে, এই প্রতিযোগিতায় দেশের একটি শহর থেকে একটি ক্লাবই খেলতে পারবে। এই চুক্তিপত্রটি দেখতে চেয়েছিলেন সৌগতবাবু।

আইএমজিআর-এর তরফে কোনো প্রশ্নেরই উত্তর দেওয়া হয়নি।

এইএফএফ-এর কাছে সৌগত ঘোষের প্রশ্ন ছিল, ভারতীয় ফুটবলের উন্নতিতে তাঁরা কটি ফুটবল একাডেমি চালায়? একই সঙ্গে তিনি জানতে চেয়েছিলেন, তৃণমূল স্তরে ফুটবলের উন্নতি ফেডারেশন কী করছে? কারণ বেসরকারি লিগের অনুমোদন দেওয়ার যুক্তিই ছিল, এর ফলে ফেডারেশনের যে লাভ হবে, তা ভারতীয় ফুটবলের কাজে লাগবে?

এই প্রশ্নের উত্তরে এআইএফএফ, গোয়ার তাঁদের তিনটি একাডেমির কথা বলেছেন। এবং ৬-১২ বছর বয়সিদের জন্য ফেডারেশনের যে কর্মসূচি নিরন্তর চলছে, তা এক বাক্যে উল্লেখ করেছে। দেখে নিন ফেডারেশনের বিবৃতিটি:

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন